* ঘূর্ণিঝড় ‘দেয়ি’ : ৩ নম্বর সঙ্কেত বহাল            * নূপুর আছে মরিয়ম নেই, রাজহাঁসের বুকের ২ টুকরা মাংস নেই           * বাকৃবিতে কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিক্ষোভ           * বিসিএস উত্তীর্ণ মেয়েকে উদ্ধারে থানার সামনে অবস্থান বাবা-মায়ের           * ক্লান্ত মাশরাফিদের সামনে সতেজ ভারত           * নিউইয়র্কের উদ্দেশে সকালে ঢাকা ছাড়ছেন প্রধানমন্ত্রী           *  প্রতারক কামাল-মাসুদ এর বিরুদ্ধে চার মামলা            * হালুয়াঘাটে পুলিশের হাতে ফের আটক-৬           *  ঝিনাইগাতীতে বাবা শ্রেষ্ঠ শিক্ষক মেয়ে সেরা শিক্ষার্থী           * ভারত থেকে প্রশিক্ষন প্রাপ্ত ২০ টি ঘোড়া আমদানী           *  ফুলপুরে ৭৭ জন ভিক্ষুকের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ            * কেন্দুয়ায় নারী বিসিএস ক্যাডারকে অপহরণের অভিযোগ           * মাদ্রাসায় জোড়া খুন: পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা           * তরুণীরা আবেদনময়ী সেলফি তোলেন কেন?            * মাথাপিছু আয় বেড়েছে ১৬,৩৮৮ টাকা           * সৌন্দর্যের গোপন রহস্য জানালেন শ্রীদেবীর মেয়ে            * নবনিযুক্ত দুই রাষ্ট্রদূতের রাষ্ট্রপতির কাছে পরিচয়পত্র পেশ           * শ্রীলঙ্কার দুর্দিন দেখে অবসর ভেঙে ফেরার ইঙ্গিত দিলশানের            * স্মার্টফোনের আসক্তি কাটানোর নয়া অস্ত্র           * আলোচনায় বসতে মোদিকে ইমরানের চিঠি          
* ঘূর্ণিঝড় ‘দেয়ি’ : ৩ নম্বর সঙ্কেত বহাল            * বাকৃবিতে কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিক্ষোভ           * বিসিএস উত্তীর্ণ মেয়েকে উদ্ধারে থানার সামনে অবস্থান বাবা-মায়ের          

এপারের সবাইকে কাদিয়ে চলে গেল ওরা

জেলা প্রতিনিধি | শুক্রবার, নভেম্বর ২০, ২০১৫
এপারের সবাইকে কাদিয়ে চলে গেল ওরা

নিজ পিতৃভুমি ভারতের নাগরিকত্ব বজায় রাখা সদ্য বিলুপ্ত ভারতীয় ছিটমহলের ২০১টি পরিবারের ৯৮৫ জন সদস্য আগামী রবিবার থেকে পাঁচ দফায় ভারত যাচ্ছে। এ প্রক্রিয়া চলবে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত। এর মধ্যে প্রথম দফা ২২ নভেম্বর, দ্বিতীয় দফা ২৩ নভেম্বর, তৃতীয় দফা ২৪ নভেম্বর ও চতুর্থ দফা যাবে ২৬ নভেম্বর। এই চার দফায় যারা যেতে পারবে না তাদেরকে পঞ্চম দফায় পাঠানো হবে।

 সেই সাথে তারা রেখে যাচ্ছেন মুল ভুখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন থাকা অন্য স্বাধীন দেশের অভ্যন্তরে নিজ দেশের ক্ষুদ্র হতে ক্ষুদ্রতরও অংশে বাস করা দীর্ঘ ৬৮ বছরের সদ্য বিলুপ্ত ভুখন্ডের হাজারো স্মৃতি। তাদের পৈত্রিক ভূমি এখন অন্য দেশের অংশ। তাই তারা দেশ প্রেমে বলিয়ান হয়ে নিজ দেশের মুল ভূ-খন্ডে আশ্রয় গড়তে যাচ্ছেন। সেই সাথে ছিড়ে যাচ্ছে তাদের অনেক রক্তের সম্পর্ক, ভাই ভাইকে ছেড়ে, বোন ভাইকে ছেড়ে, ভাই বোনকে ছেড়ে, স্বামী স্ত্রীকে ছেড়ে, স্ত্রী স্বামীকে ছেড়ে চলছে নিজ দেশের ঠিকানায়।

এ অবস্থায় তাদের মাঝে যেমন রয়েছে বিষাদ আর বেদনার সুর তেমনি দেখা যাচ্ছে নিজ ভুখন্ডে যাওয়ার অনন্য প্রশান্তি আর উজ্জল ভবিষতের হাতছানি। নাম প্রকাশে অন্ছিুক ভারত যাত্রী জানান, কোন প্রলোভন বা লোভ লালসা তাদের টেনে নিয়ে যাচ্ছেনা কেবল মাত্র দেশ প্রেমই তাদেরকে নিজভুমিতে নিয়ে যাচ্ছে। তাদের দাবী এতদিন নিজ দেশ থেকে অনেক দুরে বাস করলেও ইচ্ছা ছিল দেশকে কিছু দেব দিতে পারিনি। আজ সুযোগ এসেছে তাই সে সুযোগকে কাজে লাগাচ্ছে তারা। হয়তো ভৌগলিক কারনে হোক কিংবা আত্বীয়তার বন্ধনে হোক এদেশের সাথে দীর্ঘ বসবাস ও কোন দেনা পাওনা বা কোন সম্পর্কেই তাদেরকে আটকাতে পারলোনা। তারা ফিরে যাবে নিজ দেশে এ আনন্দ এখন তাদের পাওয়ার আনন্দ।

সূত্র জানায়, জেলার ডোমার উপজেলার ভোগডাবুড়ী ডাঙ্গাপাড়া-হলদিবাড়ী অভিবাসন সীমান্ত দিয়ে যাবে পঞ্চগড় জেলার ১১টি বিলুপ্ত ছিটমহলের ৯৯ পরিবারের ৪৭১ জন। বুড়িমারী-চেংরা বান্ধা অভিবাসন দিয়ে লালমনিরহাটের ৭টি বিলুপ্ত ছিটমহলের ৪০ পরিবারের ১৯৭ জন ও বাঘভান্ডার-সাহেবগঞ্জ অভিবাসন দিয়ে কুড়িগ্রামের দুটি বিলুপ্ত ছিটমহল থেকে ৬২ পরিবারের ৩১৭ জন সদস্য। ভারতীয় কর্তৃপক্ষ এই বিষয়ে বাংলাদেশকে অবগত করেছে। এর আগে এই পরিবারগুলোর ভারত গমনের দিনক্ষণ প্রস্তুত করা হয়েছিল চার দফায়। কিন্তু ভারত কর্তৃপক্ষ পরে তা স্থগিত করেছিল। ফলে ওই সব পরিবারের ভারত গমন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল।

এসব ছিটমহলের অধিবাসীদের ভারত গমনের সবরকম প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে নীলফামারীর ভোগডাবুড়ি ডাঙ্গাপাড়া থেকে ভারতের হলদিবাড়ী সীমান্ত দিয়ে একটি সংযুক্ত সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া, তাদের বর্তমান বাসস্থান থেকে চিলাহাটি সীমান্তে পৌঁছে দেওয়ার জন্যে স্থানীয় প্রশাসন পরিবহনের ব্যবস্থা নিয়েছে। এখান থেকে ভারতীয় সীমান্ত অতিক্রমের সময় ওপারের ভারতীয় প্রতিনিধিদের হাতে তাদের বুঝিয়ে দেওয়া হবে। অসমর্থিত একটি সূত্র জানায়, যারা ভারত গমন করছে তাদের বরণ করে নিতে হলদিবাড়ী সীমান্তে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ বিশাল আকারের সবুজ রংয়ের একটি প্যান্ডেল তৈরী করে রেখেছে। সেখানে বরণ অনুষ্ঠান করবেন তারা। এরপর তাদের নিয়ে যাওয়া হবে স্থানীয়ভাবে বসবাসের জন্য তৈরী করা হলদিবাড়ী কৃষিখামার আবাসন প্রকল্পে। সেখানে প্রতিটি পরিবারের জন্য একটি করে দুইশ’ স্কয়ার ফিটের ঢেউটিন দিয়ে তৈরী ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে স্থলসীমান্ত চুক্তির পর গত ৩১ জুলাই মধ্যরাত থেকে দুই দেশের ভেতরে থাকা ১৬২টি ছিটমহল বিলুপ্ত হয়। ভারতের ছিটমহল বাংলাদেশ ভূখণ্ডে মিশে গিয়েছে আর বাংলাদেশের ছিটমহল ভারত ভূখণ্ডের সঙ্গে মিশে গিয়েছে।

সে সময় বাংলাদেশে থাকা তিন জেলার ২০টি ভারতীয় ছিটমহলের ২০১টি পরিবারের ৯৮৫ জন সদস্য তাদের মূল খন্ড ভারতের নাগরিকত্ব বজায় রেখেছিল। তারাই স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য ভারত গমন করবে। এদের মধ্যে কুড়িগ্রামের ১৩টি পরিবারের ৫৫ জন্য সদস্য তাদের ভারতীয় নাগরিকত্বসহ ভারত গমন বাতিল চেয়ে পরবর্তীতে আবেদন করে।




আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close