* গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠান থেকে এসে মুক্তিযোদ্ধা মানিক শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বেই সারাদেশে হবে নৌকার বিজয়            * নির্বাচন থেকে সরে গেলেন নিজামীপুত্র           *  বাইসাইকেলের ফ্রেমে ফেনসিডিল পাচার           *  কম খরচে সিসিটিভি ক্যামেরা কিনতে চান?           *  স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে তাহসান-মেহজাবিন           * আইয়ুব বাচ্চু একজনই ছিল, একজনই থাকবে           * নির্বাচন এক ঘণ্টাও পেছাবেন না           * টেলরের ব্যাটে প্রতিরোধ জিম্বাবুয়ের            * দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউল ৮ ঘণ্টার জন্য থেমে যাবে           * নয়াপল্টনের ঘটনায় তিন মামলা, গ্রেপ্তার ৫০           * ময়মনসিংহে নৈরাজ্য দাখিল মাদ্রাসায়            * ঢাবির ১০ শিক্ষার্থীকে এনবিআরের পুরস্কার           *  চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে ২০ লাখ টাকা জব্দ           *  ১৮ হাজার টাকায় ধান কাটা মেশিন           * ত্রিশাল আসনে মনোনয়ন ফরম তুলেছেন ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী           *  সুন্দরবনে মাছ ধরতে যেয়ে আটক ১৫ জেলেকে ফেরত দিয়েছে ভারত           * বদলগাছীতে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর উপজেলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত           * গাজীপুরে আয়কর মেলার উদ্বোধন           * বেনাপোল সীমান্তে ৫০০ পিস ইয়াবাসহ নারী আটক           * অভিযুক্তদের ৭১৫ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে দুদক          
* গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠান থেকে এসে মুক্তিযোদ্ধা মানিক শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বেই সারাদেশে হবে নৌকার বিজয়            * আইয়ুব বাচ্চু একজনই ছিল, একজনই থাকবে           * নির্বাচন এক ঘণ্টাও পেছাবেন না          

শরীয়তপুরে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ বিপাকে এসএসসি পরিক্ষার্থীরা

শেখ জাভেদ,শরীয়তপুর প্রতিনিধি: | শনিবার, জানুয়ারী ৩০, ২০১৬
শরীয়তপুরে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ
বিপাকে এসএসসি পরিক্ষার্থীরা

শরীয়তপুরে অবৈধভাবে পিডিবি-র শুধুমাত্র আওতাধীন পৌরসভা বা জেলা শহরের জন্য বরাদ্দকৃত বিদ্যুৎ এখন পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় সরবারাহ করছে এক শ্রেণীর অসাধু কর্মকর্তারা। এতে করে বিপাকে পড়েছে পৌরবাসী ও এসএসসি পরিক্ষার্থীরা। কিন্তু একথা মানতে রাজি না শরীয়তপুর পিডিবির নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল ওয়াহাব।

অনুসন্ধানে জানা যায়, শরীয়তপুর সদরের বেশ কিছু ইউনিয়নে বর্তমানে পিডিবি ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোং লিঃ বা ওজোপাডিকো এর অধীনে প্রায় ৫ টি গ্রামে কয়েকশত অবৈধ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। ফলে শীতের মৌসুমেও প্রায় প্রতিদিনে ৫/৭ বার করে লোডশেডিং সহ নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিয়েছে। এতে করে ভোগান্তিতে পড়েছে শরীয়তপুর পৌরবাসী।

তবে অবৈধ সংযোগের একথা বার বার অস্বিকার করছেন শরীয়তপুর পিডিবির নির্বাহী প্রকৌশলী। এতে করে ভোগান্তিতে পরেছেন এসএসসি পরিক্ষার্থী সহ নানা শ্রেণী পেশার মানুষ। এই পিডিবি-র ব্যবস্থাপনার আওতায় শরীয়তপুর পৌর এলাকার আঙ্গারিয়া, রাজগঞ্জ, আটং ও শরীয়তপুর টাউন ফিডার এর মাধ্যমে শরীয়তপুর জেলা সদরে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়।

এই ফিডারগুলোর মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিভাগের এক শ্রেণীর অসাধু কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সহায়তায় শহরের বিদ্যুৎ সংযোগ চলছে ইউনিয়ন গুলোতে। ফলে বাড়তি লোড সামলাতে না পেরে দিনের পুরো সময় প্রায় ৫/৭ বার করে লোডশেডিং সহ ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে পৌরবাসীদের।

পৌর গ্রাহকরা অভিযোগ করে বলেছেন, বিদ্যুৎ বিভাগের অসাধু লাইন ম্যান ও তার সহযোগীরা গত ১ থেকে ২ বছরে অন্তত কয়েক শতাধীক অবৈধ সংযোগ দিয়ে রেখেছে ও লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। ইতিমধ্যে অবৈধ বিদ্যুৎ সরবরাহ করার অপরাধে কোন কোন লাইন ম্যান কারাভোগও করেছিল।

অবৈধ ভাবে ১ থেকে ৩ কি.মি. দূরে পৌরসভার বিদ্যুৎ ইউনিয়নে পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় সংযোগ দেওয়ায় বর্তমানে শীতের মৌসুমেও ভোগান্তি হচ্ছে। প্রতিদিন প্রায় ৫ থেকে ৭ বার বিদ্যুৎ চলে যায় সরবরাহকৃত অবৈধ লাইনের কারণে। আর ব্যাটারি চালিত অটো চার্জের কারনে এই ভোগান্তি আর বাড়ছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, আঙ্গারিয়া ফিডার থেকে ১কি.মি. দূরে কাশিপুর গ্রামের বাঁশের খুটির সাহায্যে জয়নাল বেপারী, সবুজ বেপারী, আবুল আলেম সা, আতাউর সা, সলেমান চোকদার, নুরুল ইসলাম রাড়ি, শাজাহান শিকদার, মোতালেব চৌকিদার, রহমান মোল্লা, ইউসুফ আলি মোল্লা, নুরু বেপারীর বাড়ি সহ প্রায় ৫০ থেকে ৬০ টি ঘড়ে এই অবৈধ লাইন চলছে। এছাড়া আঙ্গারিয়া ফিডার থেকে ৩ কি.মি. দূরে ২ টি মিটার স্থাপন করে শতাধীক লোককের বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে। এই ২ টি মিটার থেকে ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের খুটি ও খেজুর গাছ ও কড়ই গাছের সাথে তার টানিয়ে প্রায় ৬০ থেকে ৭০ টি বাড়িতে অবৈধ সংযোগ চলছে। প্রতিটি সংযোগের বিনিময়ে ২৫ থেকে ৪০ হাজার টাকা নিয়ে এই অবৈধ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আরো, আটং ফিডার থেকে পূর্ব কাগদী গ্রামে প্রায় ৩০/৪০ টি বাড়িতে এই অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে। এছাড়া রয়েছে পৌর এলাকার বাহিরে রুদ্রকর, চিতলিয়া, তুলাসার ও পালং ইউনিয়নে অবৈধ ভাবে কয়েকশত লাইন দেওয়া চলছে।
কাশিপুর গ্রামের নুর মোহাম্মদ বলেন, আমাদের এলাকায় দীর্ঘ দিন যাবৎ এই বিদ্যুৎ লাইন চলছে। ভাই আমরাতো কিছুই জানিনা। আমরা প্রতি মাসে বিদ্যুৎ বিল দিচ্ছি। লাইন অবৈধ হলে ইউনিয়নে আসলো কিভাবে।
দাদপুর গ্রামের শাহিন খাঁ বলেন, আমরাতো প্রতি মাসে বিল দিতাছি। এইযে বিলের কাগজ। এটি অবৈধ কিনা বুজবো কিভাবে। কিন্তু দিনে অনেক বার কারেন্ট যায় আসে।
শরীয়তপুর পিডিবির নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল ওয়াহাব অবৈধ লাইনের কথা মানতে রাজি না হয়ে বলেন, বিভিন্ন সমস্যার কারণে লোড শেডিং হতে পারে। এ বিষয়ে আর কিছু বলতে চান না তিনি।





আরও পড়ুন



সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close