*  ত্রিশালে বিসমিল্লাহ্‌ ফুডস্'র আড়ালে নোংরা পরিবেশে পণ্য তৈরি !           *  ত্রিশাল উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স রোগীদের চরম ভোগান্তি           * ময়মনসিংহ সদর উপজেলা শাখা যুবলীগের আয়োজিত আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে মেয়র টিটু            * অবৈধ ভাবে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় শিশুসহ ২৪ নারী-পুরুষ আটক           * নির্বাচন আর পেছানোর সুযোগ নেই : সিইসি            * আসিয়া বিবিকে আশ্রয় দিতে চায় কানাডা           * ধোনির সঙ্গে দিন কাটাতে চান পাকিস্তানের সানা           * আস্থা রাখুন : ফখরুল            * আলোর মুখ দেখছেন বিমানের ১৩৭ কেবিন ক্রু            * মাদারীপুরে স্পিডবোট ডুবি, তিন যাত্রীর লাশ উদ্ধার           * ভোট পেছানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত আজ           * গাজায় প্রবেশ করে ইসরায়েলি বাহিনীর হামলা, নিহত ৭           * বগুড়ায় নৌকা চান অপু           *  ফরিদগঞ্জে হত্যা মামলায় পিতা-পুত্রের যাবজ্জীবন           * খেলায় মনোযোগ দাও, সাকিবকে প্রধানমন্ত্রী           * ধেয়ে আসছে ‘গাজা’, ২ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত           * দরজা খুলতেই নওয়াজ ঝাঁপিয়ে পড়েন           * তিন উইকেট হারিয়ে লাঞ্চ বিরতিতে বাংলাদেশ           * অনাহারে নয়, সমৃদ্ধির পথে এগোবে ইরান           *  জানুয়ারির আগেই রাজশাহী হবে পলিথিনমুক্ত          
* নির্বাচন আর পেছানোর সুযোগ নেই : সিইসি            * আসিয়া বিবিকে আশ্রয় দিতে চায় কানাডা           * ধোনির সঙ্গে দিন কাটাতে চান পাকিস্তানের সানা          

ভাড়ি যানবাহন চলাচল করায় ক্ষত-ক্ষত হেলিপ্যাড ও সংযোগ সড়ক !

কলাপাড়া প্রতিনিধি, | সোমবার, অক্টোবর ১০, ২০১৬
ভাড়ি যানবাহন চলাচল করায় ক্ষত-ক্ষত হেলিপ্যাড ও সংযোগ সড়ক !
যথাযথ রক্ষাণাবেক্ষন এবং তদারকীর অভাবে ক্ষত-বিক্ষত হচ্ছে কলাপাড়ার সংরক্ষিত দুটি হেলিপ্যাড। স্থানীয় প্রশাসনের নজড়দারি না থাকায় উন্নয়ন কাজে কলাপাড়ায় আসা বিভিন্ন কোম্পানীর কর্মকর্তা ও শ্রমিকরা হেলিপ্যাডসহ মাঠটি যথেচ্ছা ব্যবহার করছে। হেভি ওয়েট সম্পন্ন ভেকু, ক্যারেংসহ বিভিন্ন যানবাহন পারাপারের কাজে ব্যবহার হচ্ছে হেলিপ্যাড মাঠসহ হেলিপ্যাড দুটি। এতে দুটি হেলিপ্যাডের একটিতে ফাটল সৃষ্টি হয়েছে। প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে প্রায় আড়াইশ ফুট পিচ ঢালাইয়ের রাস্তা।
সরেজমিন দেখাগেছে, সংরক্ষিত হেলিপ্যাড মাঠে প্রবেশের দুটি সংযোগ সড়কে কোন ব্যারিকেড না থাকায় যেকোন যানবাহন অনায়সে প্রবেশ করছে। আন্ধারমানিক নদের তীরে অবস্থিত হেলিপ্যাডসহ মাঠে ট্রাক ভর্তি করে বাঁশ এনে খালস করা হচ্ছে। অপর প্রান্তে অবস্থান করছে বিশাল আকৃতির একটি ক্যারেং। ক্যারেংটি দুই দিন আগে একটি পন্টুন থেকে মাঠে নামিয়ে রাখা হয়েছে। নদে ভাসমান অপর একটি পন্টুনের সাথে থাকা বিশাল আকৃতির ক্যারেং সংস্কার কাজ হচ্ছে মাঠে নামানো ওই ক্যারেংয়ের মাধ্যমে। সংস্কার সম্পন্ন করেই পুনরায় ক্যারেংটি হেলিপ্যাড মাঠ থেকে চালিয়ে ওই পন্টুনে ওঠার প্রস্তুতি চলছে। এর আগে ওই মূল হেলিপ্যাডেই অবস্থান ছিলো দু’একটি ভেকু। ভেকু,ক্যারেং এবং অন্যান্য ভাড়ি যানবাহন চলাচলে বিধ্বস্ত-বিপর্যস্ত এবং নিশ্চিহ্ন হয়ে পরেছে হেলীপ্যাডের পিচ ঢালাই রাস্তাটি। রাস্তাটি এখন মাঠের কাদা মাটিতে পরিনত হয়েছে। ভেকু চলাচল এবং ভাড়ি যানবাহন হেলিপ্যাডের মূল কনক্রিডের ওপর দিয়ে চলাচল করায় মাঠের পশ্চিম পাশের হেলিপ্যাডটি ফেটে গিয়ে দেবে গেছে।  
জানাগেছে, ২০১২ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি ততকালীন ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কলাপাড়ায় আগমন উপলক্ষ্যে কলাপাড়া উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে চার লাখ টাকা ব্যায়ে আরসিসি ঢালায়ের দুটি হেলিপ্যাড এবং সংযোগ সড়ক নির্মান করা হয়। বিগত দিন হেলিপ্যাড মাঠটি মোটামুটি সংরক্ষিত থাকলেও কলাপাড়ায় পায়রা বন্দার এবং বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মান কাজ শুরু হওয়ার সাথে সাথে আন্ধারমানিক নদের তীরের হেলিপ্যাড মাঠটি অরক্ষিত হয়ে পরে। যার ইচ্ছে সে ওখান থেকে ভাড়ি যানবাহনসহ ট্রাক ভড়ে বিভিন্ন মালামাল এবং যন্ত্রাংশ পরিবহন ও খালাস করছে। স্থানীয় বাসিন্দা মো. কবির হোসেন অভিযোগ করে কলেন, এই হেলিপ্যাডটি রাষ্ট্রিয় সম্পদ। এটি এখন সংরক্ষিত না থেকে উম্মুক্ত হয়েগেছে শুধু স্থানীয় প্রসাশনের উদাসীনতা এবং দায়িত্ব হীনতার জন্য।  
হেলিপ্যাড মাঠে ক্যারেং তোলার কাজে নিয়োজিত থাকা দি-ব্যাঙ্গল ইলেকট্রিক লিমিটেডের প্রজেক্ট ম্যানেজার সালামত উল্লাহ খান, কালের কন্ঠকে বলেন, আমরা চিনা কোম্পানী হারবার এর জন্য কলাপাড়ার নিশানবাড়িয়ায় নির্মানাধীন বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ক্যারেংটি নিয়ে এসেছি। ক্যারেংটি সেখানে পৌছাতে পন্টুনের সাথে থাকা বিশালাকৃতির ক্যারেংয়ের সংস্কার কাজ করছি। এ জন্য স্থলে চলাচলযোগ্য ক্যারেংটি মাঠে নামিয়ে তার সাহায্যে পন্টুনের ক্যারেংয়ের সংষ্কার কাজ করছি। কাজ শেষ হলেই আমরা চলে যাবো। তবে সংরক্ষিত হেলিপ্যাড মাঠে বিশাল দৈত্যকারের যান উঠানো এবং নামানোর প্রশ্নে তিনি আরো বলেন, এই হেলিপ্যাডের কনক্রিডের ওপর একটি বিশালাকৃতির একটি ভ্যাকু দেখে আমাদের ধারনা হয়েছে এখান থেকেই ভাড়ির যানবান ওঠা-নামা করানোর ব্যবস্থা করে রাখা হয়েছে। সে কারনেই আমরা অনিচ্ছাকৃত ভুল করেফেলেছি। আমাদের মাধ্যমের হেলিপ্যাডের কোন ক্ষতি হয়নি। হেলিপ্যাডের যে টুকু ভেঙ্গেছে আগে যারা হেলিপ্যাড মাঠ ব্যবহার করেছে তাদের মাধ্যমে ভেঙ্গেগেছে। তবে কলাপাড়ায় সরকারের অধিনে বিদ্যুৎকেন্দ্র এবং পায়রা সমুদ্র বন্দরের মতো দুটি বড় প্রকল্প নির্মান কাজ চলছে। নির্মান কাজের জন্য কলাপাড়া শহর থেকে নৌ পথে বড় বড় যানবাহন পরিবহনের কাজ করতে হবে ওই দুটি প্রকল্পেই। সে ক্ষেত্রে আমাদের একটি পরামর্শ হচ্ছে এই যে, দুটি হেলিপ্যাডের মূল স্থাপনা সংরক্ষিত রেখে তার মাঝ দিয়ে ফাকা জায়গা দিয়ে মূল সড়কের সাথে একটি অস্থায়ী সংযোগ সড়ক নদীর সাথে দিয়ে দিলে জানবাহন গুলো পরিবহনের সুবিধা হতো। এর বিনিময়ে স্থানীয় প্রশাসন টোল আদায়ের ব্যবস্থা করলে রাজস্ব হতো এবং অস্থায়ী রাস্তা নির্মান খরচও উঠে আসতো।    
ক্যারেং পরিবহন কাজ তদারকীর দায়িত্বে থাকা চায়না হারবার কোম্পানীর সাইড ইঞ্জিনিয়র মো. জহিরুল আলম সাংবাদিকদের বলেন, আমরা জানি এই হেলিপ্যাড সংরক্ষিত। তবে আমাদের ক্যারেং পরিবহনের কাজে নিয়োজিত থাকা দি- বেঙ্গল ইলেকট্রনিক লিমিটেডের শ্রমিকরা অন্যকে অনুকরন করেই নিরুপায় হয়ে এই মাঠে ভাড়ি যানবাহন এবং যন্ত্রাংশ নামিয়েছে। তবে আমাদের কোন যন্ত্রাংশ এবং যানবাহনের মাধ্যমে হেলিপ্যাডের মূল স্থাপনার ক্ষতি হয়নি এবং হবেও না।
এব্যাপারে কলাপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব তালুকদার সাংবাদিকদের বলেন,  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ.বি.এম সাদিকুর রহমানসহ আমরা উপস্থিত থেকে হেলিপ্যাড মাঠের অবস্থা বুঝেই ওখানে ভাড়ি যানবাহন এবং যন্ত্রাংশ নামানো কাজে বাঁধা দেওয়া হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে সেখান থেকে ক্যারেংসহ সকল যন্ত্রাংশ সরিয়ে নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। হেলিপ্যাড মাঠ এবং হেলিপ্যাডের মূল স্থাপনা রক্ষা এবং সংরক্ষনের উদ্যোগ নিয়েছি। সেখানে পুলিশ মোতায়নের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।




আরও পড়ুন



সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close