* শীতকালে শুষ্ক ও ফাটা ত্বকের ঘরোয়া সমাধান           *  ইতিহাস গড়ে জিতল বাংলাদেশ           *  দণ্ডিতদের ভোটে আসার পথ আটকাই থাকল           *  গোলাম মাওলা রনির মনোনয়নপত্র বাতিল           * হিরো আলমের প্রার্থিতা বাতিল           *  ইবি অধ্যাপক নূরী আর নেই           * কেন্দুয়ায় চিথোলিয়া গ্রামে বসেছিল রাতব্যাপী লালন সংগীতের আসর           * গাজীপুরে মরুভূমি ফুল এর মানবন্ধন           *  শান্তিচুক্তির ২১ বছর পাহাড়ে থামেনি ভাতৃঘাতী সংঘাত           *  প্রতিপক্ষকে প্রথমবার ফলোঅন করালো বাংলাদেশ           *  ১৫০ সিসির নতুন পালসার আনল বাজাজ           *  গাঁজা সেবনের দায়ে যুবকের জেল           *  সেরা ডিজিটাল ব্যাংকের পুরস্কার পেল সিটি ব্যাংক           * দেশে পৌঁছেছে ‘হংসবলাকা’            * মোদি কেমন হিন্দু, প্রশ্ন রাহুলের            * মিরাজের ঘূর্ণিতে ফলোঅনে উইন্ডিজ           * কাঠবোঝাই ট্রাক চাপায় প্রাণ গেল তিন শ্রমিকের           * নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত           * আলাস্কায় ভয়াবহ ভূমিকম্প, ৬ ঘণ্টায় ৪০ বার কম্পন           * জাতিসংঘের মিশনে বিমান বাহিনীর ২০২ সদস্যের কঙ্গো গমন          
* দেশে পৌঁছেছে ‘হংসবলাকা’            * মোদি কেমন হিন্দু, প্রশ্ন রাহুলের            * মিরাজের ঘূর্ণিতে ফলোঅনে উইন্ডিজ          

ময়মনসিংহ প্রতিদিনে সংবাদ প্রকাশের পর ত্রিশালের দুর্নীতিবাজ শিক্ষা অফিসার বদলী ---- আমি ঘুষ নেইনি তবে অন্যারা নিয়েছে বলে শুনেছি

খায়রুল আলম রফিক | শুক্রবার, অক্টোবর ২৭, ২০১৭
ময়মনসিংহ প্রতিদিনে সংবাদ প্রকাশের পর ত্রিশালের দুর্নীতিবাজ শিক্ষা অফিসার বদলী ----
আমি ঘুষ নেইনি তবে অন্যারা নিয়েছে বলে শুনেছি
ময়মনসিংহ প্রতিদিন পএিকায় সংবাদ প্রকাশের পর বদলী হলেন, ত্রিশাল উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সৈয়দ আহমেদ । জানাগেছে,সৈয়দ আহমেদ ৮১ জন নৈশ প্রহরী নিয়োগে প্রায় সাড়ে ৪ কোটি টাকার দুর্নীতিতে অভিযুক্ত হয়েছেন কিন্তু দুর্নীতিবাজ এই শিক্ষা অফিসার অন্যত্র বদলী হবার কারনে গরীব প্রার্থী প্রহরীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে, এতগুলো টাকা কিভাবে উদ্ধার হবে ? ঘুষের টাকা তো ভাগ বাটোয়ারা হয়ে শিক্ষা অফিসার,প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, গভঃ বডির সদস্যগন,দুর্নীতিবাজ কয়েক জন শিক্ষক ও বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ত্রিশাল শাখার নেতা আঃ হাই ,সদস্য মাজাহার,মশিউর রহমান, দালাল  প্রভৃতি জনের পকেটে চলে গেছে। তারা কি এখন ঘুষ বানিজ্যের কথা স্বীকার করবেন নাকি ত্রিশাল উপজেলার শিক্ষা অফিস এই ঘুষের টাকা ফিরে দেবার দায়িত্ব নেবে ?  এই টাকা কি ভাবে উদ্ধার হবে ? প্রকাশ , ত্রিশাল উপজেলার শিক্ষা অফিসে ৮১ জন নৈশ প্রহরী নিয়োগের ঘোষনা পরবর্তীতে একটি ঘুষ বানিজ্য সিন্ডিকেট মাঠে নামে এবং শিক্ষা কর্মকর্তা সৈয়দ আহমেদ ঘুষ ও আত্বসাতের একটি কৌশল অবলম্বল করে ঘুষ বানিজ্যের হোতাদের সাথে যোগাযোগ রাখতে থাকেন । বিষয়টি ফাঁস হয়ে পড়লে ময়মনসিংহ প্রতিদিন পত্রিকায় গুরুত্বের সাথে একটি সংবাদটি প্রকাশ করে । ফলে ঘঠনাটি জনসমক্ষে চলে আসে । জানাগেছে, শতভাগ চাকরী দেবার গ্যারান্টি দিয়ে শিক্ষা কর্মকর্তা সৈয়দ আহমদ এসময় বিভিন্ন জনের কাছ থেকে প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা হাতিয়ে নেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এই অর্থ কেলেংকারীতে আরও জড়িয়ে পড়েন কতিপয় দুর্নীতিবাজ শিক্ষক নেতা এবং একটি দালাল গোষ্ঠী। জানাগেছে, পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হবার পর সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয় বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নামেন এবং সংবাদটি সত্যতা পান। মন্ত্রনালয় তৎখনাত শিক্ষা কর্মকর্তা সৈয়দ আহমদকে কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলাতে বদলীর আদেশ দেন এ রিপোট লেখা পর্যন্ত সৈয়দ আহমদ পাকুন্দিয়ায় চলে গেছেন বলে তিনি নিজেই ময়মনসিংহ প্রতিদিনকে জানান।এদিকে দুর্নীতিবাজ শিক্ষক নেতাদের গ্রুপটি সৈয়দ আহমদকে পুনঃরায় ত্রিশাল ফিরিয়ে আনতে মিছিল মানববন্দন ইত্যাদি কর্মসূচীর ডাক দিয়েছে বলে জানাগেছে। এব্যাপারে শিক্ষক নেতাদের সাথে কথা বললে তারা ময়মনসিংহ প্রতিদিনকে জানান, ঘুষের সাড়ে ৪ কোটি টাকা ফেরৎ পেতে হলে সৈয়দ আহমদকে প্রয়োজন বলেই তারা সৈয়দ আহমদের বদলীর আদেশ স্থগিত করার জন্য আন্দোলনে নেমেছেন কিন্ত একটি সূত্র জানায় , আন্দোলন কারীদের সাথে সৈয়দ আহমেদের সম্পর্ক ছিল নিবিড় বন্ধুত্বের । তাদের স্বার্থে কুঠারাঘাত বলেই সৈয়দ আহমদকে তারা চাইছেন। বিদায়ী শিক্ষা কর্মকর্তা সৈয়দ আহমেদ এর সাথে এব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে তিনি ময়মনসিংহ প্রতিদিনকে বলেন, আমি ঘুষ নেইনি তবে অন্যরা নিয়েছে বলে শুনেছি । তিনি আরোও বলেন, আমি দুই বছর ৪ মাস সততার সাথে চাকুরী করিছি, সাবেক শিক্ষা অফিসার আমাকে বদলী করেছে ? এদিকে চাকরী দেবার নাম করে প্রতারনা পূর্বক সাড়ে ৪ কোটি টাকার জ্বালা নিয়ে পথে পথে ঘুরছে চাকরী প্রার্থী গরিব মানুষের দল । তাদের টাকাও গেল চাকরীও হলোনা । অভিযোগ রয়েছে, সৈয়দ আহমেদ নিরহ শিক্ষকদের বিভাগীয় মামলার ভয় দেখিয়ে  মোটা টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। পর্যবেক্ষক মহলের মতে, একজন দুর্নীতিবাজ শিক্ষা কর্মকর্তাকে শাস্তি মূলক ভাবে শুধূ অন্যত্র বদলী করে দিলেই সমস্যার সমাধান হবে না প্রয়োজন বোধে সৈয়দ আহমদ এর মতো ঘুষখোড় দুর্নীতিবাজদের চাকুরী থেকে বরখাস্ত করা প্রয়োজন কেন না দেশে অনেক শিক্ষিত -উচ্চ শিক্ষিত বেকার যুবক চাকুরী না পেয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে । প্রয়োজন বোধে তাদের সেখানে স্থলাভিষিক্ত করা হোক ।






আরও পড়ুন



সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close