* ছেলেকে মানুষ না করতে পারলে আত্মহত্যা করব-- অপু           *  বিরাট কোহলির নামে গাড়ি!           * ইরান বিশ্বের জন্য বড় হুমকি: নেতানিয়াহু           *  বিকালে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী           * ময়মনসিংহে অস্ত্রসহ স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আটক           *  ময়মনসিংহে বিএনপির স্বারকলিপি প্রদান           * গৌরীপুরে গৃহবধুকে মধ্যযুগী কায়দায় নির্যাতন, ৩ নারী আটক            * প্রেমের পর বিয়ে, সন্তান অস্বীকার করছেন বাবা           * ত্রিশালে বই মেলার শুভ উদ্বোধন           * দুই উপজেলার ১০ গ্রামের মানুষের ভরসা বাঁশের সাঁকো            * গলাচিপায় ককটেল ও পিস্তল সহ ২ ডাকাত আটক, আহত ৮           * রাবিতে ড. শামসুজ্জোহা দিবস পালন           * গাছে গাছে মুকুলের মৌ মৌ গন্ধে জানান দিচ্ছে বসন্তের আগমনী বার্তা           * গৌরীপুরে গৃহবধুকে মধ্যযুগী কায়দায় নির্যাতন হাসপাতালে ভর্তি !           * চট্টগ্রামের সেই ইউসুফ মারা গেছেন           * নড়াইলের মানচিত্র থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে জমিদার বাবুদের চিত্রার নাম!           * চুয়াডাঙ্গায় তিন পুলিশ সদস্যকে কুপিয়ে জখম           * দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী           * জেলা প্রশাসকদের আজ স্মারকলিপি দেবে বিএনপি           * মেক্সিকোতে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে নিহত ১৩          
*  বিকালে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী           * ময়মনসিংহে অস্ত্রসহ স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আটক           * গৌরীপুরে গৃহবধুকে মধ্যযুগী কায়দায় নির্যাতন, ৩ নারী আটক           

পাগলায় নদীতে অবৈধ ড্রেজিং সরকারের কোটি টাকার রাজস্ব ক্ষতি

স্টাফ রিপোর্টার | মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৭

পাগলায় নদীতে অবৈধ ড্রেজিং সরকারের কোটি টাকার রাজস্ব ক্ষতি

ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানার দুটো উল্লেখযোগ্য উপনদী যথাক্রমে বানার নদী ও টাঙ্গাবর নদীর সর্বনাশ সাধনে জায়গায় জায়গায় চলছে ড্রেজার দিয়ে পরিকল্পনাহীন বালু উত্তোলন। ফলে সরকার হারাচ্ছে কোটি কোটি টাকার রাজস্ব অন্যদিকে নদী দুটি হারাচ্ছে স্বাভাবিক গতিপথ। জানাগেছে, টাঙ্গাবর ও বানার নদীর যে প্রকৃত অনুমোদিত লীজ গ্রহনকারীকে  প্রাণনাশের হুমকী দিয়ে আসছে।

অভিযোগে রয়েছে, ড্রেজার দিয়ে যত্রতত্র বালু উত্তোলনের নেতৃত্ব দিচ্ছে হারুর মোল্লা এবং তার সহযোগী হিসেবে রয়েছে আলাল ডাকাত,সোহরাব উদ্দিন ও শামসুল আলম সহ একাধিক ব্যক্তি যারা স্থানীয় ডাকাত বলে চিহ্নিত।  এদের বিরুদ্ধে কাপাসিয়ায় দস্যুতার একাধিক মামলা রয়েছে। মামলা নং-২৬ ইং ২১/৭/১৭ এমনকি পাগলা থানায় গ্রেফতারী পরোয়ানাও রয়েছে। কিন্তু পাগলা থানার ওসি  চানমিয়া এদের গ্রেফতার করেনা। 

স্থানীয়বাসীরা এই প্রতিনিধিকে জানান, স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের  সাথে তাদের কমিশন ভিত্তিক অর্থনৈতিক যোগসাজস আছে তাই ওয়ারেন্ট থাকা সত্ত্বেও পুলিশ এদের ধরে না। এছাড়া স্থানীয় প্রভাবশালী মহল হারুন মোল্লাগংকে শেল্টার দেবার ফলে গফরগাঁও এবং আশ পাশের নদ নদী গুলোর দৈনদশার চিত্র ফুটে উঠছে সে সাথে ধ্বংস হচ্ছে দেশের অর্থনৈতিক মেরুদন্ড। জানাগেছে,

এই  অবৈধ মাল উত্তোলনকারী হারুন মোল্লাগং এর নদী সন্ত্রাসের কারণে গফরগাঁওয়ের সাবেক সংসদ সদস্য মহরম আলতাফ হোসেন গোলন্দাজের নামে একটি আশ্রায়ণ প্রকল্পও আজ বিলীন হবার পথে। প্রত্যক্ষদর্শী জানান, গত ছয় মাসে এই  নদীর দুর্বৃত্তায়নের সরকারের দেড় কোটি টাকার মত রাজস্ব হারিয়েছে। 

স্থানীয়বাসী  অভিযোগ করেন, সরকার দলীয়  একটি প্রভাবশালী মহল হারুন মোল্লাগংকে আস্কারা দিয়ে  গফরগাঁওয়ের নদী সম্পদকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিয়েছে। বানারে ও টাঙ্গাবর নদীর তীরবর্তী মানুষ এই দুটির বর্তমান করুণ চিত্র বর্ণনা করে এই প্রতিবেককে জানান, ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনই পারেন বালু খেকোদের হাত থেকে বানার ও টাঙ্গাবোরকে বাচাঁতে। 

এদিকে প্রকৃত ইজারাদেরকে বলপূর্বক হটিয়ে অবৈধ বালু দস্যুদের পরিকল্পনাহীন বালু উত্তোলনের ফলে দুই নদীর যে অচলা অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে সে ব্যাপারে ময়মনসিংহ  অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এর  দৃষ্টি আকর্ষন করলে তিনি জানান,  ঘটনা সম্পর্কে তিনি সম্পূর্ণ অবগত। অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের বিষয়টি জরুরীভিত্তিতে প্রশাসন ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। 

এদিকে গফরগাঁও উপজেলার নিবার্হী অফিসারের কাছে  ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি। তার কাছে লিখিত  অভিযোগ প্রদান করা হলেও  তিনি অদ্যাবধি কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন নি বলে জানাগেছে। অন্যদিকে ভালুকা উপজেলার ক্ষীরু নদীর উপরেও চলছে  বালুদস্যুদের যথেচ্ছার তান্ডব। ফলে ক্ষীরু নদী সংলগ্ন ব্রীজটি হুমকীর মধ্যে রয়েছে। 

প্রজাতন্ত্রের সরকারের কাছে স্থানীয় বাসীর একটাই প্রশ্ন নদ-নদ, খাল- বিল, কাল-ভার্ট, বীজ ইত্যাদি সংরক্ষনের  প্রধান দায়িত্ব সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এবং প্রশাসনের কিন্তু গুটিকয়েক নদী দস্যুদের (যাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাও আছে) কারণে দেশের সম্পদ বিলীন এবং স্থানীয় বাসীদের দুর্ভোগ সৃষ্টি হয় তাহলে এর দায়-দায়িত্ব কে নেবে ? যেখানে সরকার স্বয়ং বাদী হয়ে মামলা করেছেন, এর পরও যদি কিছু না হয় তাহলে দায়িত্বশীলরা কোথায় যাবেন ?





আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close