* গৌরীপুরে গৃহবধুকে মধ্যযুগী কায়দায় নির্যাতন হাসপাতালে ভর্তি !           * চট্টগ্রামের সেই ইউসুফ মারা গেছেন           * নড়াইলের মানচিত্র থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে জমিদার বাবুদের চিত্রার নাম!           * চুয়াডাঙ্গায় তিন পুলিশ সদস্যকে কুপিয়ে জখম           *  দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী           *  জেলা প্রশাসকদের আজ স্মারকলিপি দেবে বিএনপি           *  মেক্সিকোতে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে নিহত ১৩           * মিতুর ‘স্বপ্ন ভেঙে চুরমার’           * সিলেটে শেষ সম্মান রক্ষার লড়াই           * হালুয়াঘাটে চেয়ারম্যান কামরুলের ১৫৩ টি উন্নয়ন প্রকল্প            * রাজশাহীর বাজারে আগাম তরমুজ           * সাফারি পার্কে ব্ল্যাক সোয়ানের ৬ ছানা           * ঝিনাইগাতীতে কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ : সেবা ব্যাহত           *  নান্দাইলে রাস্তায় বালুর পরিবর্তে কাদামাটি ব্যবহার            * নান্দাইল পৌরসভা- একুশ বছর ধরে ভাড়া ভবনে চলছে কার্যক্রম           * তারাকান্দা উপজেলায় ৪৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নেই           * ত্রিশালের ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদের জাতীয় পতাকা অবমাননার তদন্ত ধামাচাপা           * প্রতিটি মানুষের জীবনে লাইফ ইন্সুরেন্স করার ফল উপকারে আসে- মেয়র টিটু           * ময়মনসিংহে ১১শ পিচ ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী রনি ডিবি কর্তৃক আটক            *  গাজীপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে যুবক নিহত          
* ঝিনাইগাতীতে কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ : সেবা ব্যাহত           * ময়মনসিংহে ১১শ পিচ ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী রনি ডিবি কর্তৃক আটক            * আজ দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী          

ডলারের বর্ধিত মূল্য চালের দাম বাড়াচ্ছে আবার

নিজস্ব প্রতিবেদক | শনিবার, ডিসেম্বর ২, ২০১৭
ডলারের বর্ধিত মূল্য চালের দাম বাড়াচ্ছে আবার
গত কয়েকদিন ধরে অস্থির ডলারের বাজার। চালের আমদানি ব্যয় মেটানোর মুদ্রাটির দাম হঠাৎ বেড়ে গেছে দুই থেকে তিন টাকা। আর বোরোর উৎপাদনে ঘাটতির পর আমদানির ওপর নির্ভরশীল চালের বাজারেও বেড়েছে দাম। গত চার দিন ধরে পাইকারি ও খুচরা বাজারে চালের দাম বাড়ার প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

গত বোরো মৌসুমে হাওর এলাকায় বন্যায় বড় ধরনের ক্ষতি এবং এরপর উত্তরাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে অতিবৃষ্টি, বন্যা ও ব্লাস্ট রোগের কারণে চালের উৎপাদনে এবার ক্ষতি হয়েছে ব্যাপক। গবেষণা সংস্থার হিসাবে, দেশে চাল উৎপাদনের প্রধান মৌসুমে এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে কম উৎপাদন অস্থির করে তুলে চালের বাজার। সরকার নিজে আমদানি করে এবং শুল্ক কমিয়ে বেসরকারি খাতে আমদানিতে উৎসাহ দিয়ে বাজার নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে।

এই চেষ্টা কিছুটা সফলও হয়। মোটা চালের দাম ৫০ থেকে কমে ৪২ থেকে ৪৪ টাকা, আর মোটা চালের দাম ৭০ টাকা থেকে কমে ৬০ এর কাছাকাছি নামে।

কিন্তু ডলারের বাজারে সাম্প্রতিক অস্থিরতা কয়েকদিন ধরে আবার দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে চালের। সরকার চালের শুল্ক কমানোর সময় আমদানিকারকরা ৮০ থেকে ৮১ টাকা দরে ডলার কিনলেও এখন কিনতে হচ্ছে ৮৩ থেকে ৮৫ টাকা দরে। আর এই বাড়তি টাকাটা তারা তুলে নিচ্ছেন চালের দাম বাড়িয়ে। এ কারণে পাইকারিতে চালের দাম এক টাকার মতো আর খুচরায় বেড়েছে দুই থেকে তিন টাকা।

আমদানিকারকদের পাশাপাশি দেশের মিল মালিকরাও এই তথ্য পেয়ে বাড়িয়ে দিয়েছেন দাম। ব্যবসায়ীরা জানান, এখন মিলগেটে প্রতি কেজি মিনিকেট মানভেদে ৫৪ থেকে ৫৭ টাকায় বিক্রি হয়, যা আগে ছিল ৫৩ থেকে ৫৫ টাকা। এ ছাড়া বিআর-২৮ চাল মিলগেটে ৪৩ থেকে ৪৪ টাকা ছিল। এখন তা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৪৪ থেকে ৪৫ টাকা কেজিতে।

রাজধানীর বাবুবাজার এলাকার চালের পাইকারি আমদানিকারক ওবায়দুর রহমান ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘সম্প্রতি ডলারের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। এর প্রভাব চালের বাজারে পড়েছে। ডলারের দাম বৃদ্ধি পেলে চালের দাম বাড়বে, এটাইতো স্বাভাবিক।’

এই ব্যবসায়ী বলেন, ‘এবার দেশে বোরো মওসুমে অকাল বন্যার কারণে ব্যাপক ধান নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। সেকারণে কলগুলোতে ধানের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যায়। ধানের দাম বৃদ্ধি পেলে বন্দরে চালের চাহিদা বেড়ে যায়। আমদানি বাড়লে ভারতও দাম বাড়িয়ে দেয়। এ কারণে চালের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।’

রাজধানীর রায়সাহেব বাজার ও বেগমবাজার চালের আড়তে বিভিন্ন মানের ভালো মিনিকেট চালের দাম উঠেছে কেজিপ্রতি ৫৬ থেকে ৫৮ টাকায়, যা আগে ছিল ৫৪ থেকে ৫৬ টাকা। প্রতি ৫০ কেজির বস্তায় দাম বেড়েছে ১০০ টাকা। প্রতি কেজি স্বর্ণা চালের দাম ছিল ৩৮ থেকে ৩৯ টাকা। এখন তা বেড়ে হয়েছে ৩৯ থেকে ৪১ টাকা। একইভাবে বেড়েছে মাঝারি মানের বিআর-২৮ চালের দামও।

বেগমবাজারের জাবেদা রাইস এজেন্সির স্বত্বাধিকারী আবদুর রহিম ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘ডলারের দাম বৃদ্ধির কারণে দেশের বিভিন্ন মোকামে আমদানি করা চালের দাম বেড়েছে। একই সময়ে মিল মালিকরা চালের দাম বাড়িয়েছেন। এর প্রভাবে পাইকারি আড়তে একই হারে বেড়েছে। আমরা তো আর ইচ্ছেকৃতভাবে দাম বাড়াই না। উপর থেকে দাম বাড়তি থাকলে আমাদের মত ক্ষুদ্রব্যবসায়ীদের দাম তো বাড়াতেই হয়।’

পাইকারি ব্যবসায়ীরা জানান, অনেক মিল মালিক ভারত থেকে মিনিকেট চাল আমদানি করে প্যাকেটজাত করে বিক্রি করছেন। আমদানিতে চালের দাম বেশি এবং দেশে ধানের দাম বৃদ্ধির কথা বলে চালের দাম বাড়িয়ে দিচ্ছেন।

খুচরা বাজারে নতুন দামের প্রভাব পড়েছে। প্রতি কেজিতে দুই থেকে তিন টাকা বেড়ে খুচরায় এখন মিনিকেট ৬০ থেকে ৬৩ টাকা ও বিআর-২৮ সহ মাঝারি মানের চাল ৪৮ থেকে ৫৪ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মোটা চালের দামও কেজিতে দুই টাকা বেড়ে ৪২ থেকে ৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রাজধানীর পলাশী বাজারের ব্যবসায়ী মোক্তার হোসেন ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘বোরো মৌসুমে উৎপাদিত চাল থেকে তৈরি হয় মোটা স্বর্ণা ও মিনিকেট চাল। এখন আমন মৌসুম শুরু হলেও মিনিকেট চাল উৎপাদনের ধান মিলগুলো পাচ্ছে না। এ কারণে ভারত থেকে আমদানি করে বর্তমানে চাহিদা মিটছে। এ সুযোগে মোকামে দাম বাড়ানো হচ্ছে।’

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, চালের আমদানি মূল্যও বেড়েছে। সপ্তাহের ব্যবধানে ভারতে প্রতি টন সিদ্ধ চালের রফতানি মূল্য পাঁচ ডলার বেড়ে ৩৯৫ ডলার হয়েছে।




আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close