* ওমরাহ পালন করলেন প্রধানমন্ত্রী           * ওবায়দুল কাদেরের উদারতা!           *  জেএসসি পরীক্ষা বাংলায় ভালো করার সহজ উপায়           * নেইমারকে দশ নম্বর জার্সি পরতে বাধ্য করা হয়           *  ১২৫ সিসির নতুন স্ট্রিট ফাইটার           * জ্বর-শ্বাসকষ্ট নিয়ে ধর্মমন্ত্রী হাসপাতালে           * আর কত হারবে হাথুরুর শ্রীলঙ্কা?            * চোখের সামনেই মেয়ের হত্যাকারীর ফাঁসি দেখলেন জয়নাবের বাবা            * জোটের পরিসর নিয়ে সিদ্ধান্ত পরে : কাদের            * শেখ হাসিনাকে আবার ক্ষমতায় দেখতে চান সৌদি বাদশাহও           * ‘রুপালি গিটার’ ছেড়ে চলে গেলেন আইয়ুব বাচ্চু           * মাধবদীর ‘জঙ্গি আস্তানায়’ ১৪৪ ধারা জারি           * বিশ্বকাপের ট্রফি এখন ঢাকায়           * এবার সৌদি সম্মেলন বয়কটের সিদ্ধান্ত গুগলের           * দুই জোটই আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ           * আজ রিয়াদে ব্যস্ত দিন কাটবে প্রধানমন্ত্রীর           * জুয়াড়িদের গুলিতে আহত সাংবাদিক অন্তর চিকিৎসার অভাবে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে           * সুনামগঞ্জে ১৮০ বোতল ভারতীয় মদসহ বিক্রেতা আটক           * দাম জানা গেল নকিয়া ৭.১ ফোনের           * পালিত হচ্ছে বিশ্ব খাদ্য দিবস          
* ওমরাহ পালন করলেন প্রধানমন্ত্রী           * ওবায়দুল কাদেরের উদারতা!           * আর কত হারবে হাথুরুর শ্রীলঙ্কা?           

ঈশ্বরগঞ্জ ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার হাদিউল ইসলামের ঘুষ বাণিজ্যে অসহায় জমির মালিক

নিজস্ব প্রতিবেদক | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৭
ঈশ্বরগঞ্জ ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার হাদিউল ইসলামের  ঘুষ বাণিজ্যে অসহায় জমির মালিক
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায় উচ্চবিত্ত থেকে সাধারণ সকলেরই যেন এখানে জমি কেনার হিড়িক পড়েছে। রয়েছে জনসংখ্যার চাপ। এসব কেন্দ্র করে জমির ব্যবসা এখানে রমরমা। রমরমা স্থানীয় ভূমি অফিসের ঘুষ বাণিজ্য। ঈশ্বরগঞ্জ ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার (জরিপকারক) হাদিউল ইসলামের  ঘুষ বাণিজ্যে অসহায় জমির মালিক । দুর্নীতিবাজ এই কর্মকর্তার ঘুষের দাবি মেটাতে গিয়ে অসহায় হয়ে পড়েছেন জমির মালিকরা।

ঈশ্বরগঞ্জ ভূমি অফিসে গেলে ভুক্তভোগীরা সার্বেয়ার হাদিউল ইসলামের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ করেন। তারা জানান, এই কর্মকর্তার ঘুষ-দুর্নীতি অনেকটা ওপেন সিক্রেট। যে যত ঘুষ দেন তার ফাইল তাড়াতাড়ি সই করেন তিনি । না হলে ঘুরতে হবে মাসের পর মাস।

ভুক্তভোগীরা জানান, নাম প্রস্তাব, সার্ভে রিপোর্ট, নামজারি, ডিসিআর সংগ্রহ থেকে শুরু করে সবকিছুতেই ঘুষের কারবার। এক্ষেত্রে সার্ভেয়ারের টা মাত্রাতিরিক্ত ।

জমির পরিমাণ বেশি হলে ঘুষের পরিমাণও বাড়ে। আবার কাগজপত্রে হেরফের থাকলে টাকার অঙ্ক ছাড়িয়ে যায় লাখের কোঠা। খ তফসিল জমি খারিজ করতে শতক প্রতি নেয়া হয় ১ হাজার টাকা।
সার্ভেয়ার হাদিউল ইসলাম প্রতিটি ফাইলেই সংশ্লিষ্ট বাদী-বিবাদীর সাথে ঘুষের সমঝোতা করেন। সমঝোতা না হলে জমি মালিকদের অহেতুক হয়রানি করা হয়। কাগজপত্রে ভুলত্রুটি রয়েছে এবং তা সংশোধনের কথা বলে মোটা টাকা দাবি করা হয়। অনেকেই এ অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদ করে উল্টো হয়রানির শিকার হচ্ছেন।

ঈশ্বরগঞ্জে সার্ভেয়ার হাদিউলের ঘুষের চাহিদার টাকা পূরণে ব্যর্থ হলে, বৈধ কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও টাকা না দেয়ায় মাসের পর মাস ঘুরতে হচ্ছে অনেককেই । সার্ভেয়ার মোটা অংকের ঘুষ না দিলে তার সংশ্লিষ্ট কোন কাজই করতে চান না।
ইতিপূর্বে দৈনিক ময়মনসিংহ প্রতিদিনে সার্ভেয়ার হাদিউল ইসলামের দুর্নীতি অনিয়মের অভিযোগ প্রকাশ করা হয় । সংবাদে বলা হয় ,  ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার (জরিপকারক) হাদিউল ইসলামের বিরুদ্ধে এক বৃদ্ধার নিকট থেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর আদায় করে রাখার অভিযোগ উঠেছে । ওই সাদা কাগজের স্বাক্ষরকে পূঁজি করে বৃদ্ধার প্রতিপক্ষের নিকট থেকে মোটা অংকের টাকা ঘুষ আদায় করেছেন সার্ভেয়ার হাদিউল ইসলাম । ভূক্তভোগী ঈশ্বররগঞ্জের বাসিন্দা বৃদ্ধা আজিদা খাতুন ১৯ ডিসেম্বর জমির মামলা সংক্রান্ত কাজে ঐসার্ভেয়ারের নিকট গেলে সার্ভেয়ার পরিকল্পিতভাবে এঘটনা ঘটনায় ।

অভিযোগ আছে, আদালত থেকে জমির ১৪৪ ধারা, ১৪৫ ধারার মামলা সংক্রান্ত তদন্তে সার্ভেয়ার হাদিউল ইসলাম মোটা অংকের টাকা উৎকোচ নেন প্রতিপক্ষের নিকট থেকে । তিনি টাকার অংকে ৫০ হাজার টাকা থেকে এক লাখ টাকার নিচে অর্থাৎ কম ঘুষ নেন না ।  তিনি রিপোর্ট করেন,  ঘুষের অংকে টাকার বিবেচনায় । জমির প্রকৃত দখলদার কিংবা মালিকের পক্ষে বা প্রকৃত অবস্থার পক্ষে রিপোর্ট করেন না  ।
সার্ভেয়ার হাদিউলের কারণে ঈশ্বরগঞ্জের কৃষক ও সাধারণ মানুষের মধ্যে শান্তিভঙ্গের ঘটনা ঘটছে প্রতিনিয়ত ।
আদালতের মামলার প্রেক্ষিতে সরেজমিন  তদন্ত প্রতিবেদন সার্ভেয়ার হাদিউল প্রকৃতদের পক্ষে দেন না । যার কাছ থেকে টাকা বা ঘুষ পান তার পক্ষে প্রতিবেদন তৈরি করে আদালতে জমা দেন। অধিকাংশ লোকজনের নিকট থেকে তদন্ত প্রতিবেদন তার বা তাদের পক্ষে দেওয়ার কথা বলে ওই সার্ভেয়ার ঘুষ দাবি করেন। এতে রাজি না হলে সার্ভেয়ার মিথ্যা প্রতিবেদন তৈরি করে আদালতে এবং উপজেলা সহকারী কমিশনারের (ভূমি)কাছে জমা দেন।


অপরদিকে সার্ভেয়ার হাদিউল আলম ঈশ্বরগঞ্জের বিভিন্ন ইউনিয়নের স্থানীয় দালালদের মাধ্যমে দীর্ঘদিন যাবৎ মোটা অংকের উৎকোচ নিয়ে বিভিন্ন খাস জমি সহ এক জনের জমি অন্য জনের নামে নামজারী ও জমা খারিজ করে দিতে ধু¤্রজাল সৃষ্টির মাধ্যমে সহযোগীতা করছেন । এতে করে উভয় পক্ষের মাঝে বাড়ছে ঝগড়া- বিবাদ এবং সংঘষর্ । যা মামলা মোকদ্দমায় গড়াচ্ছে থানা ও আদালতে।

তার দাবীকৃত উৎকোচ দিতে অস্বীকার করলে, তিনি মিথ্যা রিপোর্ট লিখে নানা জটিলতার সৃষ্টি করেন । এই সার্ভেয়ার দীর্ঘদিন ধরে এজেলার বিভিন্ন উপজেলায় কর্মরত থেকে নিজেকে ভূমি সচিবের আত্মীয় পরিচয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন। গত কয়েক বছরে তিনি কয়েক কোটি টাকার মালিক বনে গেছে। ভোগান্তির শিকার ভুক্তভোগীদের দাবি তাকে অপসারণ করা না হলে অবরোধ, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি দেয়া হবে।
এব্যাপারে সার্ভেয়ার হাদিউল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন ।
এদিকে হাদিউল ইসলামের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের পরও তিনি এর কোন তোয়াক্কা করেননা বলে অভিযোগ উঠেছে ।










আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close