*  জেএসসি পরীক্ষা বাংলায় ভালো করার সহজ উপায়           * নেইমারকে দশ নম্বর জার্সি পরতে বাধ্য করা হয়           *  ১২৫ সিসির নতুন স্ট্রিট ফাইটার           * জ্বর-শ্বাসকষ্ট নিয়ে ধর্মমন্ত্রী হাসপাতালে           * আর কত হারবে হাথুরুর শ্রীলঙ্কা?            * চোখের সামনেই মেয়ের হত্যাকারীর ফাঁসি দেখলেন জয়নাবের বাবা            * জোটের পরিসর নিয়ে সিদ্ধান্ত পরে : কাদের            * শেখ হাসিনাকে আবার ক্ষমতায় দেখতে চান সৌদি বাদশাহও           * ‘রুপালি গিটার’ ছেড়ে চলে গেলেন আইয়ুব বাচ্চু           * মাধবদীর ‘জঙ্গি আস্তানায়’ ১৪৪ ধারা জারি           * বিশ্বকাপের ট্রফি এখন ঢাকায়           * এবার সৌদি সম্মেলন বয়কটের সিদ্ধান্ত গুগলের           * দুই জোটই আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ           * আজ রিয়াদে ব্যস্ত দিন কাটবে প্রধানমন্ত্রীর           * জুয়াড়িদের গুলিতে আহত সাংবাদিক অন্তর চিকিৎসার অভাবে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে           * সুনামগঞ্জে ১৮০ বোতল ভারতীয় মদসহ বিক্রেতা আটক           * দাম জানা গেল নকিয়া ৭.১ ফোনের           * পালিত হচ্ছে বিশ্ব খাদ্য দিবস           * সৌদির সামরিক বিমান বিধ্বস্ত, নিহত সবাই           * আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল ম্যাচ রাতে          
* আর কত হারবে হাথুরুর শ্রীলঙ্কা?            * চোখের সামনেই মেয়ের হত্যাকারীর ফাঁসি দেখলেন জয়নাবের বাবা            * জোটের পরিসর নিয়ে সিদ্ধান্ত পরে : কাদের           

ময়মনসিংহে শিক্ষকদের আহাজারী থামবে কবে

স্টাফ রিপোর্টার | শুক্রবার, জানুয়ারী ১৯, ২০১৮
ময়মনসিংহে শিক্ষকদের আহাজারী থামবে কবে
৬ শ শিক্ষকের আজাহারীতে  উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা,জেলা শিক্ষা অফিসার এবং উপ-পরিচালক (ডিডি) অফিসের বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে । শিক্ষকরা অন্দনরত অবস্থায় তাদের কাজের কি হবে,ঘুষের টাকা ফেরৎ প্ওায়া যাবে কিনা এই অস্থিরতায় পড়ে নাভিশ্বাস উঠেছে । ঘুরযাগ খাচ্ছে তাহের অনিশ্চিত কর্মপন্থার ভবিষ্যত । প্রকাশ, ময়মনসিংহ মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা কার্যালয়গুলোতে নিয়ন্ত্রিত হয় ময়মনসিংহসহ কিশোরগনজ,নেত্রকোনা,জামালপুর,শেরপুর ্ও টাঙগাইল উচ্চ বিদ্যালয়,মাদ্রসা,কলেজগুলো দেখভালএমপিও ভুক্তকরণ থেকে শুরু করে শিক্ষা প্রতিষ্টান গুলো মান নিয়ন্ত্রন এবং শিক্ষক প্রতিষ্টানিক কর্মকর্তা কর্মচারীর পিওন, অফিস সহকারী প্রভৃতিক বদলীকরণ ইত্যাদি । যার সর্বশেষ মূল ব্যাক্তিটি বা কার্যালয় হচ্ছে ময়মনসিংহের উপ-পরিচালক  মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা কার্যালয় ।এর আগে স্তরে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা,জেলা শিক্ষা অফিসারের হাত ঘুরে ফাইল পৌছায় ময়মনসিংহের ডিডির দফতরে । জানাগেছে,৬ জেলার মাদ্রসার (দাখিল ফাজিল) বিদ্যালয় ও কলেজের প্রায় ৬শ শিক্ষক  তাদের প্রতিষ্টান এমপিওভুক্ত করার জন্য বারবার ধর্না দিয়ে চলেছে এই তিনধাপের তিন কার্যালয়ে। কিন্তুক উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কার্যালয়ে যাচাই বাছাই পূর্ব্বক এমপিও ভূক্তকরণের জন্য ঘুষ দিয়ে বস করতে হয়েছে প্রতিষ্টান প্রতি এক লাখ । পরবর্তীতে জেলা শিক্ষা কার্যালয় থেকে হাতিয়ে নেয়া হয়েছে প্রতি শিক্ষকের নিকট হতে   প্রায় ৫০ হাজার টাকা এবং কাগজপত্রে ভুল হলে  টাকার অংক দ্বিগুন হয় । অভিযোগ রয়েছে, প্রতিটি শিক্ষকের  এই টাকার অংক প্রদানে কখনও অ-রাজি হয়নি কারন মাধ্যমিক ও জেলা শিক্ষা কার্যালয়ের অসাধু কর্মকর্তারা টাকার পাহাড় দেখে শুধু আশ্বাসই দিয়ে গেছে  বলে হবেই হবে ,এমপিও ভুক্তকরণ হবেই ! কিন্তুক সকল আশ্বাসে গত বছরের ডিসেম্বর থেকে জানুয়ারী পযর্ন্ত ৬শ শিক্ষককে চরম হতাশার মধ্যে নিক্ষেক করে ৬ জেলা শিক্ষা অফিসার, এমপিও ভূক্তের সুপারিশ করে ময়মনসিংহ জেলা পায় ২২৪ জনের ফাইল পাঠায় ডিডির কাছে । ডিডি প্রতিটি ফাইল যাচাইবাছাই করে ঢাকার শিক্ষা অধিদপ্তরে পাঠিয়ে দেয়ার কথা থাকলেও বেশী টাকা ঘুষ যারা দিয়েছেন তাদের ফাইল  অধিদপ্তরে পাটিয়েছেন। বাকী ফাইল অনিশ্চিত ভবিষ্যতের জন্য আটকে পড়ে যায় । ফলে গত বছর ডিসেম্বর থেকে অদ্যাবধি বিদ্যালয় এমপিও ভুক্তকরনের স্বপ্ন ধুলিস্মাৎ হয়ে ৫৮০ জন শিক্ষকের মাঝে কান্নার রোল ওঠে কিন্তুক  তবুও মাধ্যমিক ও জেলা শিক্ষা কার্যালয়ের দুর্নীতিবাজ অসাধু কর্মকর্তারা নাকি এখনও  আজাহারীরত শিক্ষকদের অভয় দিয়ে বলছেন,হবে, হবে  পরবর্তীর ধাপে এমপ্ওি ভুক্ত হবেই ? এ যেনো শিয়াল আর কুমিরের গল্প । জানাগেছে, কোটি কোটি টাকার শিক্ষা কেলেংকারী করেও অসাধু দুর্নীতিবাজ শিক্ষা কর্মকর্তারা বীরদর্পে শুধু বলেই যাচ্ছে হবে.....হবে । প্রশ্ন হলো ‘এই হবের’ ভিক্তি তারা কোথাকে পায় । এদিকে এমপিও করার জন্য প্রায় ৬শ শিক্ষক প্রতিদিনেই ময়মনসিংহ জেলা তথা অন্যান্য  জেলা শিক্ষা অফিসার,মাধমিক শিক্ষা অফিসার  এবং ময়মনসিংহ ডিডি অফিসে ভিড় জমাচ্ছে । জানাগেছে, লক্ষ লক্ষ টাকা তারা নাকি জমি বেছে কিংবা সুধী করে এনেছিল । ভুক্তভোগী শিক্ষকরা জানান, শিক্ষকরা শিক্ষা কর্মকর্তাদের পা পযর্ন্ত ধরেছে । জানাগেছে, বাড়ী থেকে বেরিয়ে দুপুরের খ্ওায়া খেয়ে বাসভাড়া গাড়ীভাড়া দিয়ে লক্ষ টাকা ঘুষ দিয়ে গরিব শিক্ষকরা এখন পাগল পায় । তারা না ফেরত পাচ্ছে ঘুষের টাকা, না করতে পারছে এমপিও ভুক্ত । অনেকেই জানান, প্রতিদিন সকাল ১০টার দিকে শিক্ষকরা আসেন ধর্না দিতে পাচঁ পরে যান খালি হাতে । একটি অভয়বানী শুনে হবে-হবেই এমপিও ভূক্ত হবে-গত কয়েক বছর যাবৎ এটাই চলছে ময়মনসিংহ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে । সচেতন ব্যাক্তিরা জানান, এমপিও ভূক্ত অনুপোযোগী শিক্ষা প্রতিষ্টারের শিক্ষকদের ইচ্ছা করলেই জানিয়ে দিতে পারেন শিক্ষা কর্মকর্তারা কিন্তুক তারা সেটা কখনই জানায় না কারন ঘুষ ফস্কে যাবে । জানাগেছে, জামালপুরের বকশীগনজ টাংগারী পাড়া আমিনা দাখিল মাদ্রাসার ৬ জন শিক্ষককে ভুয়া কাগলপত্রে নিয়োগ দেখিয়ে ৩৬ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় ডিডি,জামালপুরের জেলা শিক্ষা অফিসার,বকশীগনজ মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সানোয়ার হোসেন ও সভাপতি ।




আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close