* জামাল খাসোগি হত্যা: ১৭ সৌদি নাগরিকের ওপর নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের           * মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় আজীবন কাজ করেছেন মওলানা ভাসানী           * আমার স্ত্রী সত্যিই দারুণ: জাস্টিন বিবার           * চট্টগ্রাম টেস্টে নেই তামিম           * টাঙ্গাইলের দুই আসনে মনোনয়নপত্র কিনলেন কাদের সিদ্দিকী           *  নতুন আইপ্যাড আনল অ্যাপল           *  সুনামগঞ্জ পৌর মেয়রের সঙ্গে ভারতের সহকারী হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ           * রাজশাহীতে বাস উল্টে নিহত ১, আহত ১০           * বিশ্ব ইজতেমা স্থগিত           * নবদম্পতির বিয়ের ছবি নিলামে উঠছে           * খাসোগি হত্যা ১৭ সৌদি নাগরিকের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা           * স্পেনকে হারিয়ে প্রতিশোধ ক্রোয়েশিয়ার           * গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠান থেকে এসে মুক্তিযোদ্ধা মানিক শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বেই সারাদেশে হবে নৌকার বিজয়            * নির্বাচন থেকে সরে গেলেন নিজামীপুত্র           *  বাইসাইকেলের ফ্রেমে ফেনসিডিল পাচার           *  কম খরচে সিসিটিভি ক্যামেরা কিনতে চান?           *  স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে তাহসান-মেহজাবিন           * আইয়ুব বাচ্চু একজনই ছিল, একজনই থাকবে           * নির্বাচন এক ঘণ্টাও পেছাবেন না           * টেলরের ব্যাটে প্রতিরোধ জিম্বাবুয়ের           
* জামাল খাসোগি হত্যা: ১৭ সৌদি নাগরিকের ওপর নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের           * মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় আজীবন কাজ করেছেন মওলানা ভাসানী           * আমার স্ত্রী সত্যিই দারুণ: জাস্টিন বিবার          

বগুড়ায় মোস্তাকিমের উত্থান টোকাই থেকে টেরর পরে কাউন্সিলর

প্রতীক ওমর, বগুড়া | রবিবার, এপ্রিল ১, ২০১৮
বগুড়ায় মোস্তাকিমের উত্থান
টোকাই থেকে টেরর পরে কাউন্সিলর
আজ থেকে বছর দশেক আগেও তার পরিচয় ছিলে টোকাই। এলাকায় ছোটখাটো চুরি-ছিনতাইয়ের মধ্য দিয়ে আলোচনায় আসেন মোস্তাকিম। ২০০৮-৯ সালের দিকে খান্দার এলাকার টপটেরর সুজনের নজরে আসেন তিনি। ওই সময় সুজন বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে চলত বগুড়ার একটা অংশ। মোস্তাকিমের বেপরোয়া কাজকর্মে ‘সন্তুষ্ট’ সুজন তাকে সদস্য করে নেন নিজের বাহিনীর। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি মোস্তাকিমকে।

তবে বগুড়া আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক সাহজাহানের ওপর হামলার ঘটনায় তাকে পেছন ফিরতে হয়। ভারতে পালাতে গিয়ে দিনাজপুরে তিনি গ্রেপ্তার হন পুলিশের হাতে। আজ তাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।

গ্রেপ্তার হওয়ার পর ‘দুর্ধর্ষ’ মোস্তাকিমের অপরাধ কর্মকা- নিয়ে কিছুটা মুখ খুলছেন এলাকার মানুষ। তারা জানান, সুজনের দলে যোগ দেয়ার পর মারামারি, দখল, চাঁদাবাজির সব আয়োজনে মোস্তাকিমের উপস্থিতি ছিল তখন অবধারিত। একপর্যায়ে ‘ওস্তাদ’ সুজনের সেকেন্ড ইন কমান্ড হয়ে ওঠেন মোস্তাকিম। তার বাহিনীর ভয়ে পুরো এলাকার সাধারণ মানুষ তটস্থ হয়ে ওঠে। দোকানে চাঁদা, জমি দখল, বাড়ি তৈরিতে চাঁদা, মাদক ব্যবসা, বিভিন্ন সরকারি অফিসে টেন্ডারবাজি এমনকি ভাড়াটে খুনের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন মোস্তাকিম।

সুজনের বাহিনীতে যোগ দেয়ার বছর তিনেকের মধ্যে মোস্তাকিম অপ্রতিরোধ্য ক্ষমতাধর হয়ে ওঠেন। তখন আর কারো অধীনে কাজে মন ভরে না তার। ফলে সুজনের সঙ্গে দ্বন্দ্ব লেগে যায় মোস্তাকিমের। ২০১২ সালের নভেম্বর মাসে মোস্তাকিমের হাতে খুন হন তার ওস্তাদ সুজন। এরপর নিজেই ওস্তাদ বনে যান মোস্তাকিম।

২০১২ সালের ৩ নভেম্বর সুজন হত্যার দায়ে মোস্তাকিমের নামে মামলা হয়। ক্ষমতার দাপটের কাছে ওই মামলা অসহায় হয়ে পড়ে। ঢিমেতালে চলা মামলা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আরও কমে যায় এর গতি। এখন অনেকটাই নিখোঁজের পর্যায়ে সেই মামলা। এর আগে থেকে মোস্তাকিমের নামে ২০১২ সালের ২ অক্টোবর একটি মারামারির মামলা, একই বছরের ২৩ এপ্রিল অস্ত্র মামলা, ২০১১ সালের ২ আগস্ট চাঁদাবাজির মামলা চলমান।

কিন্তু মোস্তাকিম যেন সব ধরাছোঁয়ার বাইরে। বগুড়া শহরের খান্দার, কৈগাড়ী, ছিলিমপুর, মালগ্রাম, শাকপালার সাধারণ মানুষ অসহায় হয়ে ওঠে তার দাপটের কাছে। তার বিরুদ্ধে কোনো কথা বলার সাহস কারোই ছিল না। মোস্তাকিমের বিরুদ্ধে কোনো দিন পুলিশ অ্যাকশন নেয়নি।

এলাকার মানুষের অভিযোগ, মোস্তাকিমকে এত ক্ষমতাধর করে তোলার পেছনে সহযোগিতার হাত রয়েছে বগুড়ার একজন প্রভাবশালী যুবলীগ নেতার। তার ছত্রছায়ায় মোস্তাকিম একসময় শহর যুবলীগের শহর কমিটির দপ্তর সম্পাদকের পদ পেয়ে যান। এরপর গেল পৌরসভা নির্বাচনে ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হন তিনি। অভিযোগ আছে, ভোটারদের অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে তার পক্ষে সিল মারতে বাধ্য করা হয়।

বেপরোয়া মোস্তাকিম বাহিনী বগুড়ায় যা করছে

টোকাই মোস্তাকিম কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর তার বাহিনীর পরিধি বাড়তে থাকে। বর্তমানের তার অধীনে দেড় শতাধিক টোকাই কাজ করে। এদের দিয়ে এমন কোনো অপরাধ নেই যা তিনি করেননি।

বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মোস্তাকিমের এলাকাতে অবস্থিত। ওই হাসপাতালের বিভিন্ন সরঞ্জাম কেনার প্রায় সব টেন্ডার বাগিয়ে নেন তিনি। তার ভয়ে অন্য কেউ সেখানে টেন্ডার দিতে পারে না। শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কেন্দ্রিক ২৫-৩০টি বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্স আছে। মোস্তাকিম এসব অ্যাম্বুলেন্স নিয়ন্ত্রণ করেন। সেখানে পালাক্রমে তার বাহিনীর সদস্যরা অবস্থান করে। অপর একটি গ্রুপ সার্বক্ষণিক মেডিকেলের ইমারজেন্সি বিভাগের সামনে কাজ করে। গুরুতর রুগীদের ভর্তি হতে সাহায্য করার নামে  অপরেশেনের জন্য ব্যবহৃত জিনিসপত্র, ওষুধ একটি দোকান থেকে বেশি দামে কিনতে বাধ্য করে তারা।

মোস্তাকিমের আরেক বাহিনী এলাকায় জমিজমা নিয়ে কাজ করে। তারা কাগজপত্রের সমস্যা আছে এমন জমির মালিকদের খুঁজে নিয়ে এক পক্ষের মাধ্যমে কাউন্সির বরাবর বিচার চেয়ে দরখাস্ত করায়। মোস্তাকিম কৌশলে এক পক্ষের হয়ে বিচার করে দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। আবার জমিজমা নিয়ে দুই পক্ষের মামলা চলছে এমন ঘটনায় মোস্তাকিম এক পক্ষ থেকে জোর করে নামমাত্র টাকা দিয়ে বায়না দলিল করে নেন। তার পর সেখানে বড় সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেয় ‘বায়না সূত্রে এই জমির মালিক মোস্তাকিম রহমান’। বগুড়া শহরে এরকম শত শত বিঘা জমি এখন মোস্তাকিমের দখলে।

এ ছাড়া খান্দার গোহাইল রোডে প্রতিদিন তিন শতাধিক অটোরিকশা চলাচল করে। এগুলোর চালকদের প্রতিদিন মোস্তাকিম বাহিনীর হাতে চাঁদা দিতে হয় ৬০ টাকা করে।

বগুড়া শহরের দক্ষিণ পশ্চিম অঞ্চলে কেউ নতুন বাড়ি করতে চাইলে মোস্তাকিমকে দিতে হয় বাড়ির আকারভেদে  দুই লাখ থেকে ১০ লাখ টাকা।

যেভাবে ফেঁসে গেলেন মোস্তাকিম

বগুড়ার পাসপোর্ট অফিসের আগের সহকারী পরিচালকসহ অন্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগসাজশের মাধ্যমে মোস্তাকিম বাহিনীর সদস্যরা সেখানে দালালি করত। এতে হয়রানির শিকার হতো সাধারণ মানুষ। বর্তমান সহকারী পরিচালক (এডি) সাজাহান কবির যোগদানের পর তিনি অফিস থেকে দালালদের বিতাড়িত করেন। এতে ক্ষুব্ধ মোস্তাকিম বাহিনী গত ২৯ মার্চ দুপুরে সাজাহানকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। তাকে প্রথমে বগুড়া মেডিকেলে এবং পরে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয় উন্নত চিকিৎসার জন্য।

ওই রাতেই বগুড়া পাসপোর্ট অফিসের অফিস সহকারী শাজেনুর আলম বাদী হয়ে মোস্তাকিমকে প্রধান আসামি করে আরো ১১ জনের নাম উল্লেখসহ মামলা করেন শাজাহানপুর থানায়। বৃহস্পতিবার (৩০ মারর্চ) রাতে জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে চারজন এবং দিনাজপুরে হাকিমপুর উপজেলার ডাঙ্গাপাড়া সাতকুড়ি বাজার থেকে শুক্রবার সকালে মোস্তাকিমকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পাঁচ দিনের রিমান্ডে মোস্তাকিম

আজ শনিবার মোস্তাকিমকে বগুড়ার সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। বিচারক আবু রায়হান শুনানি শেষে ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ এ তথ্য জানান।




আরও পড়ুন



সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close