*  ওয়্যারলেস চার্জারের যত সুবিধা-অসুবিধা           * চারটি রোগের কাছে হারছে মানুষ            *  পাঁচ দিনের সফরে হাওরে যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি           * সরকারি ব্যয়ে হজ পালনে ধর্মমন্ত্রীর জেলা শীর্ষে            * ট্রাকের ধাক্কায় নর্থ-সাউথের শিক্ষার্থী নিহত            * ধর্ষণের পর মাথা কেটে নিয়ে গেল ধর্ষণকারীরা            * দক্ষিণ আফ্রিকায় ঘোড়ার কবলে পড়ে বাংলাদেশি যুবক নিহত           * শ্রমিকদের অবরোধে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে তীব্র যানজট            *  ৯১তম অস্কারে মনোনয়ন ‘ডুব’ নাকি ‘কমলা রকেট’?           * সেলিম ওসমানের আসনে এবার আ.লীগের শোডাউন           * মরিচের গুড়া ঢুকিয়ে নারকীয় অত্যাচার           *  প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দিচ্ছে মালদ্বীপ           * নিজেকে প্রমাণ করতে ব্যর্থ আশরাফুল           * ঘূর্ণিঝড় ‘দেয়ি’ : ৩ নম্বর সঙ্কেত বহাল            * নূপুর আছে মরিয়ম নেই, রাজহাঁসের বুকের ২ টুকরা মাংস নেই           * বাকৃবিতে কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিক্ষোভ           * বিসিএস উত্তীর্ণ মেয়েকে উদ্ধারে থানার সামনে অবস্থান বাবা-মায়ের           * ক্লান্ত মাশরাফিদের সামনে সতেজ ভারত           * নিউইয়র্কের উদ্দেশে সকালে ঢাকা ছাড়ছেন প্রধানমন্ত্রী           *  প্রতারক কামাল-মাসুদ এর বিরুদ্ধে চার মামলা           
* ঘূর্ণিঝড় ‘দেয়ি’ : ৩ নম্বর সঙ্কেত বহাল            * বাকৃবিতে কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিক্ষোভ           * বিসিএস উত্তীর্ণ মেয়েকে উদ্ধারে থানার সামনে অবস্থান বাবা-মায়ের          

ঝিনাইগাতী সীমান্তে চা চাষের উজ্জল সম্ভাবনা

জাহিদুল হক মনির | শুক্রবার, এপ্রিল ২৭, ২০১৮
ঝিনাইগাতী সীমান্তে চা চাষের উজ্জল সম্ভাবনা

ভারত সীমান্তবর্তী শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার পাহাড়ি গ্রামগুলোতে চা চাষাবাদের উজ্জল সম্ভাবনা রয়েছে। এ গারো পাহাড়ের মাটির গুনাগুন ও আবহাওয়া চা চাষাবাদের অত্যন্ত উপযোগি।
২০০৪ সালে বাংলাদেশ টিবোর্ড চা চাষাবাদের উদ্দেশ্যে গারো পাহাড়ের মাটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে চা চাষাবাদের উপযোগী হিসেবে ঘোষণা করেন। তাদের মতে, জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলায় ১৮শ’ ৫৬ একর, নালিতাবাড়ী উপজেলায় ২৫শ’ একর ও শ্রীবরদী উপজেলায় ১১শ’ ৫১ একর জমি রয়েছে যাতে চা চাষ করা সম্ভব। কিন্ত উদ্যোগের অভাবে আজো তা গড়ে উঠেনি।

এ গারো পাহাড়ের তাওয়াকোচা, গুরুচরনদুধনই, পানবর, বাকাকুড়া, ছোটগজনী, গান্দিগাঁও, হালচাটি, গজনী, নওকুচি, রাংটিয়া, ডেফলাই, সন্ধ্যাকুড়া, গোমড়া ও হলদিগ্রামসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রচুর পরিমাণের পতিত জমি রয়েছে। এতে চা চাষ করে প্রচুর পরিমাণের মুনাফা অর্জন সম্ভব। সরকারি ও বেসকারিভাবে উদ্যোগ গ্রহন করা হলে এখানে চা চাষাবাদ করে প্রচুর পরিমানের অর্থ আয় ও গারো পাহাড়ের শতশত বেকার মানুষের কর্মসংস্থানের পথ সৃষ্টি করা সম্ভব বলে মনে করেন চা গবেষকরা।

কিন্তু সরকারি বা বেসরকারিভাবে এর কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি।
তবে বাংলাদেশ চা বোর্ডের পরীক্ষা-নিরীক্ষার ১৪ বছর পর গারো হিল্স টি কোম্পানী নামে একটি প্রতিষ্ঠান চা চাষের উদ্যোগ হাতে নেয়। ওই কোম্পানী ইতিমধ্যে ২৭ হাজার চারা উৎপাদন করেছে। এসব চারা ২৭জন কৃষকের মাধ্যমে ১৬টি স্থানে রোপণ করে প্রদর্শনী চা বাগান করা হবে। আগামী ২৯ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে চারা বিতরণ উদ্বোধন করবেন শেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন।
কোম্পানীর ব্যবস্থাপক মো. আমজাদ হোসেন ফনিক্স বলেন, জেলার ৩টি উপজেলার সীমান্তবর্তী পাহাড়ি অঞ্চলের ক্ষুদ্র-নৃ গোষ্ঠী ও পাহাড়ি অধিবাসী সংশ্লিষ্টতার মাধ্যমে ক্ষুদ্র পরিসরে চা বাগান গড়ে তোলবেন। তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, সরকারিভাবে সহযোগীতা পেলে গারো পাহাড়ে চা চাষ করে বিপ্লব ঘটানো সম্ভব।
শেরপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিন বলেন, বাংলাদেশ চা বোর্ড’র তথ্য মতে, জেলার সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে চা চাষের উজ্জল সম্ভাবনা রয়েছে।





আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close