অপরাধ সংবাদ
* নব নিযুক্ত পুলিশ সুপারকে ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাবের ফুলেল শুভেচ্ছা           * গাজীপুরের দুম্বা এখন কোরবানির পশুর হাটে           *  তৃতীয় দিনেও ট্রেনে শিডিউল বিপর্যয়           * সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে শেরপুরে মানববন্ধন           *  হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু, মিনায় লাখো হাজি           *  ঘ্রাণেই তরতাজা           *  শক্তিশালী গেমিং ল্যাপটপ           *  টুং টাং শব্দে মুখর সিরাজগঞ্জের কামারপল্লী           *  মুক্তিযোদ্ধা কোটা রেখে বাতিল হচ্ছে বাকিগুলো           * পদ্মা গিলে খেল বিলাসবহুল চারতলা বাড়ি           *  শাকিব-বুবলীর ‘ম্যাও ম্যাও’ ঝড়           *  ইলিশ নিতে গিয়ে শাহজালালে বিপাকে ভারতীয় পাইলট           *  রোনালদোর অভিষেকে জুভেন্টাসের নাটকীয় জয়           * সিমলার ১০ লাখ টাকার উট           * খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করলেন পরিবারের সদস্যরা           * হালুয়াঘাটে মোবাইলে গেইম খেলাকে কেন্দ্র করে কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা           * নড়াইলের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির স্ত্রী’র মৃত্যুবার্ষিকী পালিত           * ঈদে জয়দেবপুর রেল স্টেশনে যাত্রীসেবা নিশ্চিত করার ব্যাপারে সভা            *  ঈদুল আজহার জন্য প্রস্তুত শোলাকিয়া : পরিদর্শনে প্রশাসন           * রাতে মৌসুম শুরু করবে মেসির বার্সেলোনা          
* সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে শেরপুরে মানববন্ধন           * খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করলেন পরিবারের সদস্যরা           * সাংবাদিক মহলে নিন্দা, প্রতিবাদ কর্মসূচীর ঘোষনা ময়মনসিংহ প্রতিদিন সম্পাদককে জড়িয়ে মিথ্যা অভিযোগে মামলা          

গাবতলীতে উদ্ধার করা সরকারি সম্পত্তির রক্ষকই ভক্ষক!

নিজস্ব প্রতিবেদক | শুক্রবার, মে ১১, ২০১৮
গাবতলীতে উদ্ধার করা সরকারি সম্পত্তির রক্ষকই ভক্ষক!
বেদখল হয়ে যাওয়া সরকারি সম্পত্তির মধ্যে অনেকগুলোই উদ্ধার করেছে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন। রাজধানীর গাবতলী এলাকার প্রায় এক কিলোমিটার দখল করা জায়গা উদ্ধার করে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। কিন্তু সেই জায়গা আবার বেহাত হয়ে গেছে। সরকারি সম্পত্তি দখল করে সেখানে চলছে ইট-পাথর বিক্রির রমরমা ব্যবসা। টিনের বেড়া দিয়ে বানানো হয়েছে বাঁশ রাখার জায়গাও। অথচ কয়েক মাস আগেই এগুলো ভেঙে জায়গাটি নিজেদের দখলে নিয়েছিল সিটি করপোরেশন।

‘সম্পত্তির মালিক ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন, প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত এমন সাইন বোর্ড থাকলেও নেই এর কার্যকারিতা। সাইনবোর্ডের নিচেই ইটের বিশাল স্তূপ। প্রতিদিন শত শত ট্রাক ইট-পাথর বিক্রি হয় এখান থেকে। কিন্তু এতে সরকারের আয় হচ্ছে না। তবে টাকা সরকারের কোষাগারে না গেলেও যাচ্ছে সরকারি দল সমর্থিত ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের ছেলে ও পরিবারের সদস্যদের পকেটে। এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে স্থানীয় একটি সূত্র।

সরকারি এক কিলোমিটার সম্পত্তি বেদখলের পেছনে ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবুল হোসেনের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ আছে। পরিচয় গোপন রাখার শর্তে এক ট্রাক ট্রাইভার  বলেন, গাড়ি কি ফাও রাখি? ট্যাকা দেওয়া লাগে। কমিশনার ট্যাকা পায়। যারা গদি বহাইছে তারাও ট্যাকা দিছে। দুই লাখ কইরা দিয়া তারপর ব্যবসা করতাছে। নাইলে কার বাপের ক্ষমতা আছে ভাইঙ্গা দেওয়ার পর, আবার আগের সরকারি জাগায় বহার?

তবে সংবাদকর্মীদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি নন কোনো ব্যবসায়ী। স্থানীয় সূত্র জানায়, দুই লাখ টাকা হারে আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে সরকারি জমিতে আবার ব্যবসার সুযোগ পেয়েছেন ব্যবসায়ীরা। আর এই টাকা দেয়া হয়েছে ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিল মো. আবুল হোসেনের ছেলে সাজুকে। এই কাউন্সিলর গাবতলী উচ্ছেদ কমিটির প্রধান। বর্তমানে তিনি অসুস্থ, দেশের বাইরে চিকিৎসাধীন।

আর্থিক লেনদেনের বিষয়টি অস্বীকার করে সাজু দাবি করেন, এই জমি ব্যবসায়ীদের পৈত্রিক সম্পত্তি। তারা ৩২ বছর ধরে এখানে আছেন। তাই তারা এই জায়গা ছাড়তে চায় না। উচ্ছেদের নয় মাস পর তারা আবার স্ব স্ব অবস্থানে ব্যবসা শুরু করেছেন।

আর্থিক লেনদেনের বিষয়ে জানতে চাইলে সাজু ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘না, এমন কিছু না। আমার বাবা এখানকার কমিশনার। আমার বিপক্ষে অনেকে কথা বলবে এটাই স্বাভাবিক। যারা এখানে ব্যবসা করছে তারা তো আমার সামনে বসার সাহস রাখে না। আর্থিক লেনদেন তো অনেক পরের বিষয়।

উচ্ছেদ কমিটির প্রধান হলেও সিটি করপোরেশনের সম্পত্তি বেদখল হয়েছে তারই নাকের ডগায়। চলছে ব্যবসা। তারপরও কাউন্সিলর নীরব থাকার কারণ জানতে চাইলে ছেলে সাজু  বলেন, প্রথম যখন উচ্ছেদ করা হয় তখন আমার বাবা নিজে ছিলেন। আনিসুল হক স্যার মারা যাওয়ার পর ব্যবসায়ীরা আবার ব্যবসা শুরু করেন। কয়েকজনকে আমরা আবার উচ্ছেদ করেছি। এখন আমরা আবার কিছু করতে গেলে তো ভোটের ওপর প্রভাব পড়বে।

তবে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সাজুর সঙ্গে আর্থিক লেনদেনে বনিবনা না হওয়ায় তিনি ইট ও ব্লকের দুটি গদি উচ্ছেদ করিয়েছেন।




আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close