* মুক্তাগাছার কুমারগাতায় দালালদের দৌরাত্ম্য বাড়ছে অপরাধ           * রাষ্ট্রপতির ক্ষমার ১০ বছর পর মুক্তি মিলল স্কুলশিক্ষকের!           * আজ লন্ডন যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী           * প্রেমের টানে লক্ষ্মীপুরে আমেরিকান নারী           * মৃত্যুর ১৪ দিন পর কবর থেকে তাসলিমার লাশ উত্তোলন           *  বরগুনার এসপি এবার বললেন, ‘স্বীকারোক্তি তো পুলিশের কাছে হয় না, হয় জজের কাছে’            *  দুর্নীতির অভিযোগে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী আব্বাসি গ্রেফতার           * পূর্বধলায় ছেলে ধরা সন্দেহে ১ জন আটক            * শিশুর কাটা মাথা নিয়ে মদ খেতে গিয়েছিলেন ওই যুবক           * ‘দুর্নীতিগ্রস্ত’ ওয়াসার ‘লুকোচুরি’           * ১০৩ টাকায় পুলিশে চাকরি, গফরগাঁও থানায় সংবর্ধনা           *  কেউ পাস করেনি ১ বেসরকারি কলেজে ময়মনসিংহের ৩ সরকারি কলেজে এইচএসসি’র ফল বিপর্যয়           * ত্রিশালের উন্নয়নে সকলকে কাজ করতে হবে ---------- বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন সরকার           * বাল্য বিবাহ রোধে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে ------------মোজাহারুল হক শহীদ           * নেত্রকোনায় অজ্ঞাত যুবকের ব্যাগে শিশুর মাথা, গণপিটুনিতে হত্যা           *  মুক্তাগাছা থানা পুলিশের নাম ভাঙিয়ে দালালদের দৌরাত্ম্য           * অচেতন শিশু নিয়ে ভিক্ষাবৃত্তি, কথিত বাবাকে পুলিশে দিয়ে হাসপাতালে ছুটলেন এএসপি           *  এইচএসসি’র ফলাফলে জিপিএ-৫ কমেছে ময়মনসিংহের সেরা ১২ কলেজ থেকে ১,১৩৭জন জিপিএ-৫ পেয়েছে           *  ময়মনসিংহ ডিবি’র পৃথক অভিযানে ৮১ পিস ইয়াবা ও ২৯ গ্রাম সহ গ্রেফতার ০৫           * মিন্নি পাঁচ দিনের রিমান্ডে          
* শিশুর কাটা মাথা নিয়ে মদ খেতে গিয়েছিলেন ওই যুবক           * দিয়াবাড়ির অস্ত্র রহস্য তিন বছর পরও অজানা           * ত্রিশালে বাধাগ্রস্থ উন্নয়ন রাজনৈতিক বিরোধের সুযোগে সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতি          

জমি লিখে না দেয়ায় টাঙ্গাইলে শিক্ষক দম্পতিকে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক | শনিবার, মে ১৯, ২০১৮
জমি লিখে না দেয়ায় টাঙ্গাইলে শিক্ষক দম্পতিকে হত্যা

 ৬০ শতাংশ জায়গা লিখে না দেয়ায় টাঙ্গাইলে শিক্ষক অনিল কুমার দাস ও তার স্ত্রীকে হত্যা করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। প্রায় নয় মাস পর এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করে শুক্রবার দুপুরে টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় জানান, হত্যাকাণ্ডে ছয়জন অংশ নেয়। তারা প্রথমে অনিল কুমার দাসকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। স্ত্রী কল্পনা রানী ঘটনাটি দেখে ফেলায় তাকেও একইভাবে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। পরে উভয় লাশের গলায় ইটের বস্তা বেঁধে বাড়ির সেপটিক ট্যাংকের খোলা কূপে ফেলে দেয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় বলেন, স্কুল শিক্ষক অনিল কুমার দাসের পার্শ্ববর্তী বিক্রমহাটী এলাকায় ৬০ শতাংশ জায়গা রয়েছে। সেই জায়গা আত্মসাৎ করার জন্য তার বৈমাত্রেয় ভাই স্বপন কুমার দাস ওরফে স্বপন সৌমিত্র পরিকল্পনা করে। তার সঙ্গে যোগ দেয় রসুলপুর এলাকার কয়েকজন মাদকসেবী। তারা মিলে পরিকল্পনা করে কিভাবে জমি অনিল কুমার দাসের কাছ থেকে লিখে নেয়া যায়। এ কাজ করতে পারলে স্বপন সৌমিত্র তার সহযোগিদের পাঁচ লাখ টাকা দেবে এবং জমি বিক্রির অর্ধেক টাকাও তাদের দেয়া হবে বলে জানায়। ঘটনার দিন ছয়জন অনিল কুমার দাসের বাড়ি গিয়ে তিনটি দলিলে স্বাক্ষর দিতে বলে। কিন্তু তিনি তাতে রাজি না হওয়ায় তাকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনা তার স্ত্রী কল্পনা রানী দাস দেখে ফেলায় তাকেও একইভাবে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়। পরে তাদের লাশ সেপটিক ট্যাংকে ফেলে দেয়া হয়।

এ ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলেন- টাঙ্গাইল সদর উপজেলার রসুলপুর গ্রামের অব্দুস সালামের ছেলে জাহিদুল ইসলাম (৩২), মৃত হাফিজ উদ্দিনের ছেলে মো. ফরহাদ (৪৮), রসুলপুরের মৃত আমির হোসেন ভূঁইয়ার ছেলে মনিরুজ্জামান ভূঁইয়া (৩৩) এবং রসুলপুর শালিনাপাড়ার বাহাজ উদ্দিনের ছেলে মনজুরুল ইসলাম মিনজু (৩৩)।

পুলিশ সুপার জানান, এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত অভিযোগে গত ১২ মে গ্রেপ্তার হওয়া রসুলপুর গ্রামের জাহিদুল ইসলাম ও ফরহাদ টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। তাদের জবানবন্দিতে হত্যারহস্য বেরিয়ে আসে। পরে পুলিশ ১৪ মে রসুলপুর গ্রামের মনিরুজ্জামান ভুইয়া ওরফে খোকন ভুইয়া ও শালিনাপাড়া গ্রামের মনজুরুল ইসলাম ওরফে মিনজুকে গ্রেপ্তার করে। তাদের দশ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করা হলে আদালতের বিচারক রুপম কান্তি দাস তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় বলেন, এই হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন হয়েছে। হত্যা মিশনে ছয়জন সরাসরি অংশ নিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। তদন্ত চলমান রয়েছে। আরো কেউ জড়িত আছে কিনা তা পরবর্তীতে জানা যাবে। দুজন আসামির রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। নিহত অনিল কুমার দাসের ˆবমাত্রেয় ভাই স্বপন সৌমিত্র জামিন নিয়ে পলাতক রয়েছেন।

২০১৭ সালের ২৬ জুলাই রাতের ওই হত্যাকাণ্ডের শিকার হন অনিল কুমার ও তার স্ত্রী। পরদিন দুপুরে পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে। পরে ২৭ জুলাই নিহতের ছেলে বাদী হয়ে টাঙ্গাইল মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।




আরও পড়ুন



১. প্রধান উপদেষ্টা ঃ এড. সাদির হোসেন (হাইকোর্ট আইনজীবি)
২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close