* খালেদার মুক্তি ও চিকিৎসার দাবিতে বিক্ষোভ বৃহস্পতিবার           * হালুয়াঘাটে আচমকা কাঁদা বৃষ্টি! কৌতুহলী জনতা            * ঈদে পর্যটকের আগমনে পদভারিত গজনী অবকাশ           * গাজীপুর সিটি নির্বাচনের প্রচারণা শুরু            * ভাঙ্গায় যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার           * জনপ্রিয়তা নিয়ে কাদের-মওদুদের পাল্টাপাল্টি বক্তব্য            * খুলনায় ২ আর্জেন্টিনা সমর্থককে কুপিয়েছেন ব্রাজিল সমর্থকরা           * এবার ভাঙনের মুখে অঙ্কুশ-ঐন্দ্রিলার সম্পর্ক!           * মেয়েরা যে বিষয়গুলো ছেলেদের কাছে গোপন করে           * মানসিক স্বাধীনতাই অর্থনৈতিক মুক্তির মন্ত্র           * ১০০ টাকা না পেয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা           * টাংগুয়ার হাওরে ঈদ আনন্দ           * বরিশালে ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ দুজনের লাশ উদ্ধার           * জার্মান শিবিরে অশান্তির আগুন!           * নিহত নয় তরুণের দাফন            * জামালপুরে দুই সিএনজির সংঘর্ষে এএসআই নিহত           * ভাঙ্গায় মাদকাসক্তি ছেলের হাতে পিতা খুন           * ১৮ মেয়াদে বাংলাদেশের সেনাপ্রধান ১৭ জন           * বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরবাড়ি বানিয়ে দিবে সরকার: ত্রাণ মন্ত্রী           * রাজশাহীতে সন্ত্রাসী হামলায় সাংবাদিকের মোটরসাইকেল ভাঙচুর          
* হালুয়াঘাটে আচমকা কাঁদা বৃষ্টি! কৌতুহলী জনতা            * জার্মান শিবিরে অশান্তির আগুন!           * নিহত নয় তরুণের দাফন           

ডিআইজি মিজানের গুলি কেনার আবেদন খারিজ

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | শনিবার, জুন ২, ২০১৮
ডিআইজি মিজানের গুলি কেনার আবেদন খারিজ

পুলিশের ডিআইজি মিজানুর রহমানের গুলি কেনার আবেদন খারিজ করেছেন মাগুরা জেলা প্রশাসক আতিকুর রহমান। সার্বিক দিক বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি।

গত ২৮ মে একজন দেহরক্ষী পাঠিয়ে পিস্তলের গুলি কেনার জন্য মাগুরা জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেন সম্প্রতি বিভিন্ন ঘটনায় বিতর্ক সৃষ্টিকারী পুলিশ কর্মকর্তা।

আবেদনপত্রে নিজেকে মাগুরার সাবেক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে পরিচয় দেন মিজান। তিনি উল্লেখ করেন, তিনি ২০১১ সালের ২৩ মে যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি বেরেটা মডেলের পিস্তল কেনেন। তখন ১০টি গুলিও কেনেন। কিন্তু বর্তমানে তিনি ৩২ বোরের আরও ৪০ টি গুলি কিনতে চান।

নারী কেলেঙ্কারির কারণে ব্যাপক সমালোচিত পুলিশের এই জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা ১৯৯৭ সালের ৩০ জানুয়ারি থেকে ১৯৯৮ সালের ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত মাগুরায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ছিলেন।

মিজানুর রহমান ঢাকা জেলার পুলিশ সুপার ছিলেন। তিনি সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার হিসেবেও দায়িত্বপালন করেছেন। কিন্তু মাগুরায় দুই বছর কর্মরত থাকার সুযোগে গুলি কেনার অনুমতির জন্য জেলা প্রশাসনকে বেছে নেয়ার বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

গত জানুয়ারিতে এক নারী অভিযোগ করেন, তাকে অস্ত্রের মাধ্যমে তুলে এনে বিয়ে করেছেন বিবাহিত ডিআইজি মিজান। এই ঘটনা একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশ হলে ওই সাংবাদিককে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়া হয়।

অভিযোগের মুখে মিজানকে প্রত্যাহার করে পুলিশ সদরদপ্তরে সংযুক্ত করে ঘটনাটির তদন্ত করা হয়। ফেব্রুয়ারির শেষে এই তদন্ত প্রতিবেদন জমা পরে পুলিশ সদরদপ্তরে। পরে সিদ্ধান্ত নিতে সেটি পাঠানো হয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। কিন্তু এখনও কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

এর মধ্যে ১০ এপ্রিল রাজধানীর বিমানবন্দর থানায় একটি বেসরকারি টেলিভিশনের উপস্থাপিকা অভিযোগ করেন, মোবাইল ফোনে তাকে এবং তার স্বামীকে টুকরো-টুকরো করার হুমকি দিয়েছেন ডিআইজি মিজান। কিন্তু এই অভিযোগেরও কোনো সুরাহা হয়নি।

এর মধ্যে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত ৩ মে মিজানকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক। কিন্তু সংস্থাটির নির্দেশনা অনুযায়ী তদন্তে অসহযোগিতার কারণে তার বিরুদ্ধে মামলা করার কথা ভাবছে দুদক।





আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close