* ফেনসিডিলসহ আটক ২           * টেলরের বিছানায় ঘুমিয়ে হাজতে ভক্ত           * বাসচাপায় সাবেক চেয়ারম্যানসহ নিহত ২           * সিরিজ জেতা সম্ভব: মিরাজ           * পুলিশের ধারণা টাকা-স্বর্ণালংকারের জন্য খুন হন ইডেন অধ্যক্ষা           * নিষিদ্ধ হতে পারে টিকটক অ্যাপ !           * ভারত-পাকিস্তান উত্তপ্ত রাজনীতি, পাকিস্তানি হাইকমিশনারকে তলব            * সাংবাদিক পলাশের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া মাহফিল           * ময়মনসিংহে সি.কে ঘোষ রোডে এপেক্স শো-রুমের শুভ উদ্বোধন           * ঐতিহৃবাহী নদীর অস্তিত্ব হারাতে বসেছে রৌমারীর মানচিত্র থেকে           * প্রতি কেজি টমেটো ৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে শেরপুরে পানির দামে সবজি বিক্রি হচ্ছে ; কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্থ্য           * শান্তিপূর্ণ ভাবে বিশ্ব ইজতেমা শুরু তাবলিগের দু-পক্ষের দন্ধের অবসান ॥ জুম্মার নামাজে লাখো মুসল্লির ঢল            * কুড়িপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রবীণ শিক্ষকের উপর সন্ত্রাসী হামলা শিক্ষক হাসপাতালে- এলাকাবাসীর মধ্যে উত্তেজনা           *  ভুয়া দুদকে ঘুষের ফাঁদে হাজারো দুর্নীতিবাজ           *  জামায়াত বিলুপ্ত করার পরামর্শ দিয়ে ব্যারিস্টার রাজ্জাকের পদত্যাগ           *  বর-কনের সাজে প্রীতম-মিথিলা           *  কাশ্মীরে সিআরপিএফের গাড়িবহরে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ৩০           * জার্মানি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী           * দল ছেড়ে উপজেলায় গেলে আপত্তি নেই বিএনপির           * নির্বাচন চ্যালেঞ্জ করে মামলায় বিএনপির ৬৮ প্রার্থী          
*  ভুয়া দুদকে ঘুষের ফাঁদে হাজারো দুর্নীতিবাজ           * নির্বাচন চ্যালেঞ্জ করে মামলায় বিএনপির ৬৮ প্রার্থী           *  বোয়ালমারীতে বন্ধ হয়নি প্রাইভেট-কোচিং বাণিজ্য          

আধুনিকতার ছোঁয়ায় হারিয়ে যেতে বসেছে নড়াইলের গাঁও গ্রামের মানুষের মাটির এসি ঘর

উজ্জ্বল রায় নড়াইল জেলা প্রতিনিধি■ | মঙ্গলবার, জুন ২৬, ২০১৮
আধুনিকতার ছোঁয়ায় হারিয়ে যেতে বসেছে নড়াইলের গাঁও গ্রামের মানুষের মাটির এসি ঘর

আধুনিকতার ছোঁয়ায় হারিয়ে যেতে বসেছে নড়াইলের গাঁও গ্রামের মানুষের এসি ঘর হিসাবে খ্যাত মাটির তৈরি ঘর। ঝড়-বৃষ্টি থেকে বাঁচার পাশাপাশি প্রচুর গরম ও তীব্র শীতে আদর্শ বাস-উপযোগী মাটির তৈরি এসব ঘর নড়াইলের এলাকায় আগের মতো এখন আর তেমন একটা নজরে পড়ে না। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়ের রিপোটে, আধুনিকতার ছোঁয়া আর কালের আবর্তে নড়াইলের পাশ্ববর্তী প্রত্যন্ত অঞ্চলের বিভিন্ন গ্রামের ঐতিহ্যবাহী মাটির ঘর এখন হারিয়ে যেতে বসেছে।

অতীতে মাটির ঘর গরীবের শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত ঘর বলে পরিচিতি থাকলেও এখন আর তা থাকছে না। শুধু গরীব মানুষ কেন ৬০’র দশকের গ্রামের মোড়ল বা মাতব্বরের বাড়িতে মাটির তৈরি দ্বিতল ঘরও ছিল। সেখানে বহিরাগতদের বসবার জন্যও আলাদা ঘর থাকতো সেটাও ছিল মাটির তৈরি। মধ্যবিত্তদের বাড়ি মাটির তৈরি হলেও বিভিন্ন কারুকার্যে ভরপুর থাকতো। এসব মাটির ঘর গরমের মওসুমে আরামদায়ক ছিল তাই আরামের জন্য গ্রামের দারিদ্র মানুষের পাশাপাশি অনেক বিত্তবানরাও মাটির ঘর তৈরি করেছেন।

আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়ের রিপোটে, জানা যায়, এসব ঘর তৈরির জন্য এঁটেল বা আঠালো মাটি কাঁদায় পরিণত করে দুই-তিন ফুট চওড়া করে দেয়াল তৈরি করা হত। ১০-১৫ফুুট উঁচু দেয়াল কাঠ বা বাঁশের সিলিং তৈরি করে তার উপর গোলপাতা, ধানের খড়-কুটো, তালপাতা, মাটির তৈরি টালি অথবা ঢেউটিনের ছাওনি দেয়া হত। আর এই মাটির ঘর অনেক সময় দোতলা-তিনতলা পর্যন্ত করা হতো। আর বাড়ির গৃহিনীরা মাটির দেয়ালে বিভিন্ন রকমের আল্পনা বা নকসা একে ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতেন। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়ের রিপোটে,তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও বর্ষা মওসুমে মাটির ঘরের ক্ষতি হয় বলে বর্তমানে ইট-বালু ও সিমেন্টের ঘর নির্মানে উৎসাহী হচ্ছে মানুষ।

এক সময় এলাকার প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিভিন্ন গ্রামের মানুষরা মাটির ঘরে বাস করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করলেও প্রবল বর্ষণে মাটির ঘরের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয় বলে আজ গ্রাম বাংলার মানুষের চিন্তা চেতনায় পরিবর্তন এসেছে। যদিও ভূমিকম্প বা বন্যা না হলে একটি মাটির ঘর শত বছরেরও বেশি স্থায়ী হয়। আধুনিকতার ছোঁয়া এবং কালের বিবর্তনে দলান-কোঠা বা অট্রালিকার কাছে হার মানছে মাটির ঘর। ৭০’র দশকের পর থেকে একে একে গ্রামবাংলায় তৈরি হয়েছে ইট-বালু-সিমেন্টের তৈরি বিশাল বিশাল প্রাসাদ সম অট্রালিকা।

মাটির ঘর বসবাসের জন্য আরামদায়ক হলেও যুগের পরিবর্তনে আধুনিকতার ছোঁয়ায় অধিকাংশ মানুষই মাটির ঘর ভেঙ্গে অধিক নিরাপত্তা ও স্বল্প জায়গায় অনেক লোকের বসবাসের লক্ষ্যে পাকা ইমারত নির্মান করছেন। তাই আজ আর সারা গ্রাম ঘুরেও কোথাও মাটির তৈরি ঘর খুজে পাওয়া যাবে না। যা দু’একটি আছে তাও বিদায় নিতে তৈরি হয়ে আছের্।





আরও পড়ুন



১. প্রধান উপদেষ্টা ঃ এড. সাদির হোসেন (হাইকোর্ট আইনজীবি)
২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close