*  চিকেন মোমো তৈরির রেসিপি           *  যমজ সন্তান মর্গে এলো বাবাকে খুঁজতে           * বোনের খোঁজে দিশেহারা ভাই           *  ত্রিশালবাসীর ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেছেন উপজেলা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা           * নকলা চন্দ্রকোনায় ৭ গোডাউনে আগুন           *  ঝিনাইগাতী সরকারী হাসপাতালটি কর্তৃপক্ষের অবহেলায় ভেস্তে গেছে চিকিৎসা সেবা            *  সমস্যার আবর্তে ব্রাহ্মণবাড়িয়া বক্ষব্যাধি হাসপাতাল           *  ময়মনসিংহে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত           *  হাতিয়া পিআইওর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ           *  ময়মনসিংহে ভাষা দিবসে ছাত্রলীগ নেতার ব্যতিক্রমী উদ্যোগ           * রাসায়নিক নয়, গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে মৃত্যুপুরী চকবাজার           *  বাংলাদেশে আর্ন্তজাতিক কেরাত সম্মেলন অনুষ্ঠিত           * ওসির আহাদের সহায়তায় রক্ষা পেলেন খাদে পড়া প্রাইভেটকার যাত্রীরা           * গফরগাঁওয়ে চালকের গলাকেটে রিকশা ছিনতাই           *  বাংলার সঠিক চর্চা নিয়ে ভাষা সৈনিক শহিদুল্লাহর আক্ষেপ           * কিডনী সমস্যায় রাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু           * কলা গাছের শহীদ মিনারে শিক্ষার্থীদের শ্রদ্ধা           * ভাষা শহীদদের প্রতি গ্রীস প্রবাসীদের শ্রদ্ধা           *  ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা           * গুলিতে নিহত ৩ ঠাকুরগাঁও আদালতে বিজিবির বিরুদ্ধে মামলার আবেদন          
*  যমজ সন্তান মর্গে এলো বাবাকে খুঁজতে           *  ত্রিশালবাসীর ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেছেন উপজেলা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকরা           *  সমস্যার আবর্তে ব্রাহ্মণবাড়িয়া বক্ষব্যাধি হাসপাতাল          

যৌন তৃপ্তির জন্য ‘গাঁজা’ ব্যবহার করেন যারা

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | শনিবার, জুন ৩০, ২০১৮
যৌন তৃপ্তির জন্য ‘গাঁজা’ ব্যবহার করেন যারা

কিছুদিন আগেই ‘বিনোদনমূলক নেশার সামগ্রী’ হিসেবে কানাডায় বৈধ করা হয়েছে গাঁজা। আর তখন থেকেই বিভিন্ন দেশে এ ব্যাপারটি নিয়ে চলছে আলোচনা সমালোচনা। এর মধ্যেই এক ধরণের গাঁজা সেবনকারী মানুষ তৈরি হয়েছে যারা কিনা যৌন আনন্দ বাড়ানোর জন্য গাঁজা ব্যবহার করছেন।

বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এইসব মানুষরা ‘ক্যানাসেক্সুয়াল’। গাঁজার ইংরেজি নাম ‘ক্যানাবিসের’ প্রথম অংশটা নিয়ে এই শব্দটা তৈরি করা হয়েছে।

যৌন তৃপ্তির আশায় এসব মানুষরা বিচিত্র সব পদ্ধতি অবলম্বন করছেন- যার মধ্যে আছে শয়নকক্ষে গাঁজা মেশানো মোমবাতি জ্বালানো, বা মেয়েদের গোপন অঙ্গে গাঁজার তেল ছিটিয়ে দেয়া। কথাটা অদ্ভুত শোনালেও অনলাইনেই মিলছে এসব পণ্য। যার মধ্যে রয়েছে- গাঁজা থেকে তৈরি তেল, স্প্রে, মোমবাতি, এমনকি গাঁজা গাছের ফুলও।

জানা গেছে, যৌন সুখের জন্য গাঁজার ব্যবহার নাকি অনেক প্রাচীন। ভারতবর্ষে হিন্দুদের অনেকেই বিশ্বাস করেন গাঁজা থেকে তৈরি পানীয় ‘ভাঙ-লাচ্ছি) পান করলে যৌন ইচ্ছা বৃদ্ধি পায়। প্রাচীন মিশরেও নাকি মহিলারা তাদের যৌনাঙ্গে প্রয়োগ করতেন গাঁজা মেশানো মধু। তাদের ভাষায় এর ফলে নাকি ‘জরায়ু’ ঠান্ডা হতো।

‘ক্যানাসেক্সুয়াল’ কথাটা প্রথম ব্যবহার করেন ক্যালিফোর্নিয়ার এ্যাশলি ম্যান্টা। তিনি ২০১৩ সালে গাঁজা নামের ‘যাদুকরী ক্ষমতাসম্পন্ন’ গাছের ওপর ভিত্তি করে নানা ধরণের সেক্স থেরাপি সেবা চালু করেছিলেন। তখনও গাঁজা যুক্তরাষ্ট্রে নিষিদ্ধ ছিল। কিন্তু এখন যুক্তরাষ্ট্রেরও বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে গাঁজার ব্যবহার বৈধ করা হয়েছে।

ব্রিটেনের লুটন শহরের বাসিন্দা এ্যাডাম এবং ডোনিয়া (ছদ্ম নাম)। তারা গত তিন বছর ধরেই নাকি যৌন আনন্দ বাড়ানোর জন্য ‘ক্যানাসেক্সুয়াল’ ব্যবহার করছেন।

ডোনিয়া বলেন, ‘আমার শরীরের গঠন নিখুঁত নয়। কিন্তু গাঁজা ব্যবহার করলে আমার এসব চিন্তা মাথা থেকে চলে যায়, দেহ-মন রিল্যাক্সড হয়। আমি একটা উত্তাপ অনুভব করি, যৌনমিলনে অধিকতর আনন্দ অনুভব করি।’

আমেরিকার একটি প্রতিষ্ঠান বলছে, দিনকে দিন এসবের চাহিদা এত বাড়ছে যে, তারা সরবরাহ করে কুলাতে পারছেন না।

কিন্তু গাঁজার এ ধরণের ব্যবহার সম্পর্কে কোন জরিপ হয়নি। এমনকি এর বৈজ্ঞানিক ভিত্তিও প্রমাণিত নয়। বরং কিছু জরিপে দেখা গেছে, পুরুষরা গাঁজা ব্যবহার করলে তাদের যৌনমিলনের সক্ষমতার ওপর বিরূপ প্রভাব পড়ে। যারা প্রতিদিন গাঁজা খান তাদের যৌন সমস্যায় ভোগার সম্ভাবনা দ্বিগুণ বেড়ে যায়।

এ ব্যাপারে ব্রিটিশ যৌনস্বাস্থ্য এবং এইচআইভি সমিতির কনসালট্যান্ট ড. মার্ক লটন বলেন, ‘যৌনমিলনের সময় ‘এ্যালকোহল’ বা অন্য কোন ধরণের ‘মাদকদ্রব্য’ ব্যবহার করার ক্ষেত্রে সবার সতর্ক হওয়া উচিত। যদিও এ ব্যাপারে আরও গবেষণা দরকার। তবে আমার মনে হয় এসব পদ্ধতির ব্যবহার সবার জন্য নয়।’





আরও পড়ুন



১. প্রধান উপদেষ্টা ঃ এড. সাদির হোসেন (হাইকোর্ট আইনজীবি)
২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close