* ঘূর্ণিঝড় ‘দেয়ি’ : ৩ নম্বর সঙ্কেত বহাল            * নূপুর আছে মরিয়ম নেই, রাজহাঁসের বুকের ২ টুকরা মাংস নেই           * বাকৃবিতে কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিক্ষোভ           * বিসিএস উত্তীর্ণ মেয়েকে উদ্ধারে থানার সামনে অবস্থান বাবা-মায়ের           * ক্লান্ত মাশরাফিদের সামনে সতেজ ভারত           * নিউইয়র্কের উদ্দেশে সকালে ঢাকা ছাড়ছেন প্রধানমন্ত্রী           *  প্রতারক কামাল-মাসুদ এর বিরুদ্ধে চার মামলা            * হালুয়াঘাটে পুলিশের হাতে ফের আটক-৬           *  ঝিনাইগাতীতে বাবা শ্রেষ্ঠ শিক্ষক মেয়ে সেরা শিক্ষার্থী           * ভারত থেকে প্রশিক্ষন প্রাপ্ত ২০ টি ঘোড়া আমদানী           *  ফুলপুরে ৭৭ জন ভিক্ষুকের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ            * কেন্দুয়ায় নারী বিসিএস ক্যাডারকে অপহরণের অভিযোগ           * মাদ্রাসায় জোড়া খুন: পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা           * তরুণীরা আবেদনময়ী সেলফি তোলেন কেন?            * মাথাপিছু আয় বেড়েছে ১৬,৩৮৮ টাকা           * সৌন্দর্যের গোপন রহস্য জানালেন শ্রীদেবীর মেয়ে            * নবনিযুক্ত দুই রাষ্ট্রদূতের রাষ্ট্রপতির কাছে পরিচয়পত্র পেশ           * শ্রীলঙ্কার দুর্দিন দেখে অবসর ভেঙে ফেরার ইঙ্গিত দিলশানের            * স্মার্টফোনের আসক্তি কাটানোর নয়া অস্ত্র           * আলোচনায় বসতে মোদিকে ইমরানের চিঠি          
* ঘূর্ণিঝড় ‘দেয়ি’ : ৩ নম্বর সঙ্কেত বহাল            * বাকৃবিতে কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিক্ষোভ           * বিসিএস উত্তীর্ণ মেয়েকে উদ্ধারে থানার সামনে অবস্থান বাবা-মায়ের          

কালের গর্ভে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে বাঁশের তৈরী বিভিন ডিজাইনের বেড়া,চাল,ঝাপি!

উজ্জ্বল রায় নড়াইল জেলা প্রতিনিধি■ | শনিবার, জুন ৩০, ২০১৮
কালের গর্ভে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে বাঁশের তৈরী বিভিন ডিজাইনের বেড়া,চাল,ঝাপি!

নড়াইলে কালের গর্ভে হারিয়ে যাচ্ছে বাশেঁ তৈরী ছাদ মোক যদি কাহো বাইরোত কাজত ডাকাইল হয় তাহলে মোর অভাব থাকিলনা হয়কালের গর্ভে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে বাঁশের তৈরী ঘরের ছাদ। বেকায়দায় পড়ছেন ঘরালীরা(বাঁশ শ্রমিকরা)। অন্য কাজে মন বসাতে না পেরে অভাব অনটনে পরিবার পরিজন নিয়ে দিশেহারা ।

বর্তমান সময়ে তাঁরা কাজ চায় শুধ বেঁচে থাকার তাগিদে। একজন ঘরালী’র (বাঁশ শ্রমিকের) দীঘ নি:শ্বাস“মোক যদি কাহো বাইরোত কাজত ডাকাইল হয় তাহলে মোর অভাব থাকিলনা হয়”। প্রচন্ড গরম আর তীব্ররোধে বাঁশ ঝাড়ের নিচে কাঁজের ফাকে একান্ত আলাপ চারিতায় এমন কথা বললেন জেলা সদরের এলাকার মৃত জগেস চন্দ্র ছেলে সাকালু চন্দ্র (৩৮)।পেশায় সাকালু একজন ঘরালী। বাঁশ দিয়ে বিভিন্ন ডিজাইনের ঘরের ছাদ, ঘরের বেড়া, বাঁশের চাল, দইয়ের ঝাপি তৈরী করতে পারেন। প্রচন্ড ধৈয্যের কাজ। বাঁশ দিয়ে বিভিন্ন ডিজাইন তৈরী করা।

সেই কাজটি প্রায় ২০বছর যাবৎ করে আসছেন তিনি। তার নিজ এলাকাসহ আশে পাসের এলাকায় সবাই তাকে বাঁশের কাজ বা ঘরের ছাদ বানা সাকালু নামেই চেনেন। সাকালু চন্দ্রের দুই ছেলে ও স্ত্রীসহ চার সদস্যের একটি পরিবার। স্ত্রী গৃহীনি। বড় ছেলে রতন চন্দ্র বর্তমানে একজনের আয়ে সংসার চালানো খুবই কষ্টকর। ছেলেদের পড়ালেখার খরচও ঠিকভাবে চালাতে পারিনা। বড় ছেলে পঁচাগড়ত একটা আরদে কাজ করে যে অর্থ পায় তা দিয়ে কোন রকম তার পড়ালেখার খরচ চালায়। ভিটে বাড়ি ছাড়া আর কোন জমিজমা আমার নেই। বাঁশের কাজ ছাড়া অন্য কাজ ভাল লাগেনা। এলাকায় ও আসেপাশে যে পরিমান কাজ হয় তা দিয়ে কোন রকমে দিন যাপন করা যায়।

সাকালু জানান আমার কোন ওস্তাদ নেই। প্রথমে উপনে নামে এক লোকের কাজ থেকে দৈইয়ের ঝাপি বানা শিখি। তারপর নিজের প্রচেষ্টায় তৈরী করি বাঁশ দিয়ে ঘরের বিভিন্ন ডিজাইনের ছাদ। হার্ডবোর্ডের চেয়ে বাঁশের তৈরী ছাদ ঠান্ডা বেশি হয়। একটি একটি ঘরের ছাদ তৈরী করতে হার্ডবোর্ডের চেয়ে খরচ একটু বেশি পড়ে।

তবে টেকসই হার্ডবোর্ডের চেয়ে অনেক বেশি। নিম্মে এক’শ বছর। তার দলে সুন্দর, উত্তম, বাতিসর, সাকাতুসহ ৫/৬জন আছে । তারাও এই বাাঁশের কাজ করতে পারে। আমি কাজ পেলে তারাও আমার সঙ্গে যান। যা আয় হয় তা ভাগ াটোয়ারা করে নেই। এলাকায় তেমন কাজ নেই। টাকা পয়সাও নেই যে বাশেঁর বিভিন্ন ডিজাইনের রেডিমেট ছাদ,দইয়ের ঝাপি, বাঁশের বেড়ার দোকান দিবো। যদি বাইরের এলাকা থেকে মোক যদি কাহো বাইরোত কাজত ডাকাইল হয় তাহলে শুধু মুই নাহও মোর সাথিগুলারো অভাব থাকিলনা হয়।# ছবি সংয





আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close