*  আ.লীগে যোগ দেয়ার অপেক্ষায় বিএনপির অনেকে: কাদের           *  ইন্টারপুলের নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত           *  উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী           * ইসলামপুরে ট্রাকচাপায় চা দোকানির মৃত্যু           *  কোম্পানীগঞ্জে পাথর ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা           * বেচে দেয়া শিশুকে ফিরে পেলেন মা           *  নরসিংদীর সংঘর্ষের ঘটনায় তিন হত্যা মামলা           *  নোয়াখালীতে যুবদলের তিন নেতা গ্রেপ্তার           *  কক্সবাজারে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই মাদক বিক্রেতা নিহত           *  মনোহরদীতে গৃহবধূর গলাকাটা লাশ উদ্ধার           * ইসলামপুরে ট্রাক চাপায় চা ব্যবসায়ীর মৃত্যু           * বেনাপোল সীমান্ত থেকে নাইজেরিয়ান নাগরিক ও হুন্ডি ব্যাবসায়ী আটক           *  কেন্দুয়ায় গ্রাম পুলিশ সদস্যদের ওসি যেখানেই বিশৃঙ্খলা সেখানেই পুলিশ থাকবে            * ঝিনাইগাতীতে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ            * গফরগাঁও ২২০ বিএনপি নেতাকর্মীর আগাম জামিন           * প্রধানমন্ত্রীকন্যা পুতুলকে মন্ত্রিসভার অভিনন্দন           * মানুষ বলবে, শামীম ওসমান পাগল ছিল            * নতুন খবর দিলেন অপু বিশ্বাস            * যুক্তরাষ্ট্রে হাসপাতালে বন্দুকধারীর হামলা: নিহত ৪           * বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার পরিসংখ্যান          
* ইসলামপুরে ট্রাকচাপায় চা দোকানির মৃত্যু           *  কোম্পানীগঞ্জে পাথর ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা           *  নরসিংদীর সংঘর্ষের ঘটনায় তিন হত্যা মামলা          

গাজীপুরের দুম্বা এখন কোরবানির পশুর হাটে

গাজীপুর প্রতিনিধি | রবিবার, আগস্ট ১৯, ২০১৮
গাজীপুরের দুম্বা এখন কোরবানির পশুর হাটে
ঈদুল আযহায় কোরবানির গরু-ছাগলের হাটে দেশীয় প্রাণির পাশাপাশি মরু অঞ্চলের উট, দুম্বা ও গাড়লের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। রাজধানী ঢাকার পশুর হাটে এসব প্রাণির চাহিদা ব্যাপক। আর এসব চাহিদা মেটাতে দেশেই এখন বাণিজ্যিকভাবে দুম্বা ও গাড়লের খামার গড়ে উঠেছে।

রাজধানী ঢাকার পাশের গাজীপুরের শ্রীপুরে কয়েকটি খামারে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন করা হচ্ছে দুম্বা, গাড়ল।

দুম্বা ও গাড়লের খামারের মালিক জামাল উদ্দিন বলেন, শুধু ঈদের বাজারকে কেন্দ্র করে তিনি এই খামার গড়ে তোলেননি। সারা বছর যাতে চাহিদা পূরণ করা যায় সেই লক্ষ্য রয়েছে তার।

এছাড়া টঙ্গীর বোর্ডবাজার ও কাপাসিয়ার ত্রিমোহনীতে আলাদা দুটি গাড়লের খামার রয়েছে। ঈদে যাতে সাধারণ ক্রেতারা তাদের চাহিদা মতো আরব দেশের দুম্বা ও গাড়ল কিনতে পারেন এমন লক্ষ্যেই তাদের খামার গড়া।

শ্রীপুরের বরমী এলাকার ব্যবসায়ী জামাল উদ্দিন আহমেদ ধর্মীয় চিন্তা করে গড়ে তোলেন এই দুম্বা-গাড়লের খামার। তিনি ছোটো বেলা থেকেই ব্যতিক্রম কিছু করার শখ ছিলো। তার খামারে ছোট-বড় অর্ধশতাধিক দুম্বা রয়েছে। ইতোমধ্যে দুম্বার পাশাপাশি খামারে তোতাপুরী, যমুনাপুরী, চিত্রাপুরী ছাগল ও গাড়ল পালন করছেন। খামারে রয়েছে সাদা সৌদিয়ান হারিয়ান প্রজাতির ছাগলও। আর তার এই খামারে প্রতিনিয়তই কোনো না কোনো জাতের দুম্বা, ছাগল, গাড়ল বাচ্চা দিচ্ছে।

খামারে দুই শতাধিক দুম্বা, গাড়ল, ভেড়াসহ উন্নত জাতের বিভিন্ন প্রজাতির ছাগল রয়েছে। ভারতের বিভিন্ন অঞ্চল থেকেও উন্নত জাতের দুম্বা, ছাগল সংগ্রহ করা হয়েছে।

২০১৪ সালে মাত্র ২৬টি মরুর দেশের প্রাণি নিয়ে গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার বরমী ইউনিয়নের বরকুল গ্রামের তিন বিঘা জমির ওপর বহুতল ভবন নির্মাণ করে সেভ মিট নামের একটি খামার চালু করেন তিনি। ২৬টি প্রাণির মধ্যে শুরুতেই ২০টি  মারা যায়।

তবে তিনি দমে যাননি, যেখানেই শেষ, সেখান থেকেই শুরু মন্ত্রকে নিজের মনের সাথে বেঁধে চালিয়েছেন সাধনা, অনেকটা অসাধ্যকে সাধন করে এখন তার মুখে ফুঁটেছে হাসির ঝলক। সাথে সাথে আমাদের দেশীয় আবহাওয়ায় মরুর বিভিন্ন জাতের প্রাণি পালনের অপার সম্ভাবনার জানান দিচ্ছেন তিনি।

জামাল উদ্দিন আহমেদ জানান, একটি পূর্ণ বয়স্ক দুম্বার বাজারমূল্য এক লাখ বিশ হাজার টাকা থেকে শুরু করে তিন লাখ টাকা পর্যন্ত। খামারে সবচেয়ে বেশি দামি ছাগল হচ্ছে সাদা সৌদিয়ান হারিয়ানা। যার মূল্য প্রায় দুই লাখ টাকা। গাড়ল, তোতাপুরী ছাগল, যমুনাপুরী ছাগলগুলো ৫০ হাজার থেকে ৭০ হাজার টাকা। এ বছর পুরোপুরি বাজারজাত না করতে পারলেও আগামী বছর থেকে পুরোদমে বাজারজাত করা যাবে দুম্বা ও গাড়ল। বাংলাদেশের আবহাওয়ার সাথে খাপ খাওয়ায় এখন আর তেমন সমস্যা নাই এসব প্রাণির।

জামাল উদ্দিন আহমেদের খামারে প্রতিনিয়ত কাজ করেন ৭জন শ্রমিক, নিজে কাজের প্রয়োজনে বেশীরভাগ সময় ঢাকায় অবস্থান করলেও সারাক্ষণ মন পড়ে থাকে তার খামারে। কিছুক্ষণ পর পর প্রাণিগুলোর পরিচর্যার খবর নেন মোবাইল ফোনেই। তবে হাতে সময় আসলেই ছুটে আসেন খামারে। এসব প্রাণির  প্রাকৃতিক খাবার ঘাসের জন্য তিনি লীজ নিয়েছেন আশেপাশের কৃষকের কয়েক একর জমি। জমি থেকে উৎপাদিত ঘাসের সাথে সাথে খড়, ভূসিও রয়েছে মরুর প্রাণিদের খাদ্যের তালিকায়। নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখেন উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তার সঙ্গে।

জামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, তার এ উদ্যোগকে প্রথমে কেউ ভালোভাবে নেয়নি, সবার কাছে ছিল এটা এক প্রকার এক পাগলামী, কিন্তু তাঁর নিজের প্রতি অবিচল আস্থা থাকায় তিনি লক্ষ্যচ্যুত হননি এটাই ছিল তার প্রথম সফলতা। তিনি এই মরুর প্রাণি পালনে প্রথম দিকে বেশ বিপদে পড়েছিলেন। কোনমতেই সফলতা পাচ্ছিলেন না। অবশেষে এই প্রাণিগুলোর তৃতীয় প্রজন্মে এসে বেশ ভালোই সফলতা পান। এবার তার খুশি যেন আর ধরে না।

খামারের কর্মীরা জানালেন, ঠাণ্ডাজনিত বিভিন্ন রোগ বালাই ছাড়া এসব পশুর আর কোন সমস্যা নেই। এজন্য এদের বিভিন্ন ভেক্সিন দেয়া হয়। মরুর প্রাণি প্রতিপালনে খুশি তারাও।

জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের পক্ষ থেকে টিকাসহ নিয়মিত প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান করা হচ্ছে জানিয়ে উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা  ডা, মো. আব্দুল জলিল বলছেন , দুম্বা খামার দেখে অনেকেই দুম্বার খামার করতে আগ্রহ প্রকাশ করে পরামর্শ নিতে আসেন। আমরা তাদের বিভিন্ন পরামর্শ ও করণীয় জানিয়ে দিচ্ছি। অল্পকয়েক বছরেই এই মরু অঞ্চলের প্রাণিগুলো পালনে ব্যাপক সফলতা এসেছে। ফলে দেশীয় আবহাওয়ায় এসব প্রাণি পালনের অপার সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়েছে। এতে দেশের মাংসের চাহিদা পূরণসহ কোরবানির পশু সরবরাহে এসব খামার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে ।




আরও পড়ুন



সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close