*  নতুন আইপ্যাড আনল অ্যাপল           *  সুনামগঞ্জ পৌর মেয়রের সঙ্গে ভারতের সহকারী হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ           *  রাজশাহীতে বাস উল্টে নিহত ১, আহত ১০           * বিশ্ব ইজতেমা স্থগিত           *  নবদম্পতির বিয়ের ছবি নিলামে উঠছে           *  খাসোগি হত্যা ১৭ সৌদি নাগরিকের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা           *  স্পেনকে হারিয়ে প্রতিশোধ ক্রোয়েশিয়ার           * গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠান থেকে এসে মুক্তিযোদ্ধা মানিক শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বেই সারাদেশে হবে নৌকার বিজয়            * নির্বাচন থেকে সরে গেলেন নিজামীপুত্র           *  বাইসাইকেলের ফ্রেমে ফেনসিডিল পাচার           *  কম খরচে সিসিটিভি ক্যামেরা কিনতে চান?           *  স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে তাহসান-মেহজাবিন           * আইয়ুব বাচ্চু একজনই ছিল, একজনই থাকবে           * নির্বাচন এক ঘণ্টাও পেছাবেন না           * টেলরের ব্যাটে প্রতিরোধ জিম্বাবুয়ের            * দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউল ৮ ঘণ্টার জন্য থেমে যাবে           * নয়াপল্টনের ঘটনায় তিন মামলা, গ্রেপ্তার ৫০           * ময়মনসিংহে নৈরাজ্য দাখিল মাদ্রাসায়            * ঢাবির ১০ শিক্ষার্থীকে এনবিআরের পুরস্কার           *  চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে ২০ লাখ টাকা জব্দ          
* গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠান থেকে এসে মুক্তিযোদ্ধা মানিক শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বেই সারাদেশে হবে নৌকার বিজয়            * আইয়ুব বাচ্চু একজনই ছিল, একজনই থাকবে           * নির্বাচন এক ঘণ্টাও পেছাবেন না          

বিএনপিকে ভোটে আনতে ‘দাওয়াত নয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক, | রবিবার, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮

বিএনপিকে ভোটে আনতে ‘দাওয়াত নয়’
বিএনপিকে ভোটে আসতে এবার কোনো রকম আলোচনা বা আমন্ত্রণ জানানোর বিরোধী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেছেন, তারা ইচ্ছা করলে ভোটে আসবে, ইচ্ছা না করলে আসবে না।

রবিবার নেপালে বিমসটেক সম্মেলন নিয়ে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

খালেদা জিয়াকে বাদ দিয়ে বিএনপির নির্বাচনে না যাওয়ার ঘোষণার বিষয়ে প্রশ্ন করেন একজন গণমাধ্যমকর্মী।

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচন কে করবে, না করবে সেটা সেই দলের ওপর নির্ভর করে, তাদের সিদ্ধান্ত। এখানে আমাদের কী করার আছে?’

২০১৪ সালের জাতীয় নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়ে আন্দোলনে থাকা বিএনপিতে তখন ভোটে আনতে নানা চেষ্টা করেছি সরকার। নির্বাচনকালীন সরকারে যোগ দিয়ে ইচ্ছামতো মন্ত্রণালয় বেছে নেয়ার প্রস্তাবের পাশাপাশি খালেদা জিয়াকে দুইবার ফোন করে সংলাপে বসার প্রস্তাব দেন প্রধানমন্ত্রী।  

তবে এবার আর সে পথে হাঁটছে না সরকার। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তাদের দল (বিএনপি) যদি মনে করে (নির্বাচন) করবে না, করবে না। তারা যদি মনে করে করবে, করবে। এখানে আমাদের তো কোনো আমাদের বাধাও দেয়ার কিছু নেই বা দাওয়াত দেয়ার কিছু নেই। পরিষ্কার কথা আমার।’

সেদিনই সিদ্ধান্ত নিয়েছি কোনো আলোচনা নয়

বিএনপির সঙ্গে কোনো সংলাপ বা আলোচনায় বসবেন না বলেও সাফ জানিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী। জানান, এই সিদ্ধান্ত তিনি ২০১৫ সালেই নিয়েছেন। আর কেন এমন সিদ্ধান্ত, সেটাও জানান তিনি।

২০১৫ সালের জানুয়ারিতে খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুর পর বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয় থেকে ফিরে আসতে হয়েছিল প্রধানমন্ত্রীকে। কারণ, কার্যালয়ের ফটক ভেতর থেকে বন্ধ করে রাখে কর্মীরা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি সেদিন সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ওদের সাথে আমি তো আর বসব না। ওদের সঙ্গে কোনো আলোচনা হবে না, প্রশ্নই উঠে না। আপনারা যে যাই বলেন। ক্ষমতায় থাকি আর না থাকি, আমার কিছু যায় আসে না।’

‘আমার একটা আত্মসম্মান বোধ আছে, অপমানের একটা সীমা আছে। যারা দিনের পর দিন আমাদের বাড়িতে এসে পড়ে থাকত, তারা মুখের ওপর দরজা বন্ধ করে দেয়ার সাহস রাখে!’

‘জনগণের ওপর আস্থা আছে’

তৃতীয়বার সরকার গঠনে কতটা আত্মবিশ্বাসী- এমন প্রশ্নে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণের কাছে আমার বিশ্বাস আছে, আস্থা আছে। আমার কোনো আকাঙ্ক্ষা নেই।’

‘হ্যাঁ, আমি চেয়েছিলাম আমি যে দেশের উন্নতিটা করতে পারি, তার জন্য টানা দুই বার আমরা ক্ষমতায়। আজকে উন্নয়নগুলো দৃশ্যমান এবং মানুষ তার সুফল ভোগ করছে।’

‘কাজেই মানুষ যদি এই সুফল অব্যাহত থাকুক চাই এবং একটা শান্তিপূর্ণ পরিবেশ থাকুক চাই তাহলে আমার বিশ্বাস আছে তারা নৌকা মার্কায় ভোট দেবে এবং আমাদের জয়ী করবে।’

‘ষড়যন্ত্রকারী তারাও সক্রিয়, তাদের ষড়যন্ত্র জনগণই মোকাবেলা করতে পারবে এটা আমি বিশ্বাস করি। জনগণের কাছে প্রত্যা্শা আমরা যদি আবার ক্ষমতায় আসতে পারি অন্তত আমাদের উন্নয়নের যে কর্মসূচি নিয়েছি সেগুলো শেষ করতে পারি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শিশুরা স্কুলে যাচ্ছে, বাবা মাও স্কুলে পাঠায়; চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছি। সেটাও মানুষের মাঝে পৌঁছে দিচ্ছে সক্ষম হয়েছি। যোগাযোগ ব্যবস্থা, বিদ্যুৎ থেকে শুরু করে আমরা সর্বক্ষেত্রে যে কাজ গুলো এখনও হাতে নিয়েছি সেইগুলো যাতে আমরা সম্পন্ন করতে পারি। আবার ক্ষমতায় আসলে আমরা সেই গুলো সম্পন্ন করতে পারব জীবন যাত্রার মান উন্নত হবে।’

‘ক্ষমতায় না আসতে পারলে অতীতে যা করেছে লুটপাট, এতিমের টাকাও মেরে খাবে তখন সকলের জন্যই বিপদ আসবে। সুদিনের দেখা তখন আসবে না দুর্দিন আসবে। সেটা সম্পর্কে আমি আশা করি জনগণ সতর্ক থাকবে।’




আরও পড়ুন



সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close