* শীতকালে শুষ্ক ও ফাটা ত্বকের ঘরোয়া সমাধান           *  ইতিহাস গড়ে জিতল বাংলাদেশ           *  দণ্ডিতদের ভোটে আসার পথ আটকাই থাকল           *  গোলাম মাওলা রনির মনোনয়নপত্র বাতিল           * হিরো আলমের প্রার্থিতা বাতিল           *  ইবি অধ্যাপক নূরী আর নেই           * কেন্দুয়ায় চিথোলিয়া গ্রামে বসেছিল রাতব্যাপী লালন সংগীতের আসর           * গাজীপুরে মরুভূমি ফুল এর মানবন্ধন           *  শান্তিচুক্তির ২১ বছর পাহাড়ে থামেনি ভাতৃঘাতী সংঘাত           *  প্রতিপক্ষকে প্রথমবার ফলোঅন করালো বাংলাদেশ           *  ১৫০ সিসির নতুন পালসার আনল বাজাজ           *  গাঁজা সেবনের দায়ে যুবকের জেল           *  সেরা ডিজিটাল ব্যাংকের পুরস্কার পেল সিটি ব্যাংক           * দেশে পৌঁছেছে ‘হংসবলাকা’            * মোদি কেমন হিন্দু, প্রশ্ন রাহুলের            * মিরাজের ঘূর্ণিতে ফলোঅনে উইন্ডিজ           * কাঠবোঝাই ট্রাক চাপায় প্রাণ গেল তিন শ্রমিকের           * নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত           * আলাস্কায় ভয়াবহ ভূমিকম্প, ৬ ঘণ্টায় ৪০ বার কম্পন           * জাতিসংঘের মিশনে বিমান বাহিনীর ২০২ সদস্যের কঙ্গো গমন          
* দেশে পৌঁছেছে ‘হংসবলাকা’            * মোদি কেমন হিন্দু, প্রশ্ন রাহুলের            * মিরাজের ঘূর্ণিতে ফলোঅনে উইন্ডিজ          

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে সন্তানকে হত্যা করলো মা

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৮
প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে সন্তানকে হত্যা করলো মা

নিজের সন্তানকে হত্যা করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন মা মেহেরা আক্তার। শনিবার একদিনের রিমান্ড শেষে রোববার আদালত পাষণ্ড মা মেহেরা আক্তারকে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

কেন্দুয়া উপজেলার মোজাফরপুর ইউনিয়নের গগডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র জনি মিয়াকে (১১) হত্যার পরিকল্পনা করে তার মা মেহেরা আক্তার। মেহেরার সঙ্গে পরকিয়ার অভিযোগে আটক একই গ্রামের তমিজ উদ্দিন ফকিরের (তমু ফকির) ছেলে সবুজ মিয়াকে গ্রেফতার করা হলে সবুজ মিয়া পুলিশ ও আদালতের কাছে স্কুল ছাত্র জনিকে হত্যার পরিকল্পনা ও হত্যার পর বস্তাবন্দি করে পুকুরে ফেলে রাখার ঘটনা স্বীকার করে।

সবুজ মিয়া পুলিশ ও আদালতকে জানান, শত্রুতার জন্য প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে মেহেরা তার নিজের সন্তানকে হত্যার পরিকল্পনা করে এবং হত্যার পর তার মরদেহ গুম করার জন্য পুকুরের পানিতে বস্তাবন্দি করে ফেলে রাখার পরিকল্পনা করে।

এ তথ্য নিশ্চিত করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কেন্দুয়া থানা পুলিশের এস আই ছামেদুল হক। ছামেদুল হক জানান, জনিকে হত্যা করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ৪ সেপ্টেম্বর জনির মা মেহেরা কৃমির ওষুধ খাওয়ানোর কথা বলে জনিকে কীটনাশক পান করায়। এরপর স্কুল ছাত্র জনি ২/৩ দিন বমি করে এবং শারীরিকভাবে অনেক দুর্বল হয়ে পড়ে।

পরবর্তীতে তার মৃত্যু না হওয়ায় শুক্রবার জুমার নামাজের সময় নীরবে তার মা মেহেরা অপর সহযোগীদের নিয়ে পুকুরে গিয়ে জনিকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে রাতে সবুজ, সনতু ও মেহেরা তিনজনে মিলে বস্তাবন্দি করে পুকুরে ফেলে রাখে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জানান, সবুজ মিয়া পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার পরিকল্পনা, হত্যার ঘটনা এবং হত্যার পর বস্তাবন্দি করার সময় নিজের জড়িত থাকার কথা পুলিশ ও আদালতের কাছে স্বীকার করেন। তার দেয়া জবানবন্দিতে একই গ্রামের সনতু মিয়া ও জনির মা মেহেরাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জনি হত্যার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে জনির মা মেহেরাসহ তার অপর দুই সহযোগী সবুজ ও সনতুকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হলে আদালত তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

এস আই ছামেদুল হক জানান, মামলাটির তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হবে।





আরও পড়ুন



সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close