* ত্রিশালে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় যুবক নিহত           * ত্রিশাল উপজেলা প্রেসক্লাবের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত           *  জিম্বাবুয়ের কাছে হারলে কেউ মানতে পারবে না: মাশরাফি           *  এরশাদের ১৮ দফা ইশতেহার           *  চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণ           * দারাজে ১১ টাকায় কেনাকাটা           *  কেঁচোসার উৎপাদনে ভাগ্যবদল           * চেয়ারম্যান হতে পারলে সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানকে অত্যাধনিক করে দিব- ইকবাল হোসেন           * ভারতে ট্রেনচাপায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬০           * রোহিঙ্গা সঙ্কট : বাংলাদেশকে জোরালো সমর্থন সুইস প্রেসিডেন্টের            * নিজের শহরে পৌঁছে গেছেন আইয়ুব বাচ্চু            * দাঁতের ব্যথায় যে দোয়া পড়বেন            * মিলান ডার্বির আড়ালে চীন-যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধ!           * যে শিশুর ছবি কাঁদাচ্ছে সবাইকে            * সোহরাওয়ার্দীতে আসছেন জাপার নেতাকর্মীরা           * ওমরাহ পালন করলেন প্রধানমন্ত্রী           * ওবায়দুল কাদেরের উদারতা!           *  জেএসসি পরীক্ষা বাংলায় ভালো করার সহজ উপায়           * নেইমারকে দশ নম্বর জার্সি পরতে বাধ্য করা হয়           *  ১২৫ সিসির নতুন স্ট্রিট ফাইটার          
* ত্রিশাল উপজেলা প্রেসক্লাবের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত           * ভারতে ট্রেনচাপায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬০           * রোহিঙ্গা সঙ্কট : বাংলাদেশকে জোরালো সমর্থন সুইস প্রেসিডেন্টের           

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে সন্তানকে হত্যা করলো মা

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৮
প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে সন্তানকে হত্যা করলো মা

নিজের সন্তানকে হত্যা করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেলেন মা মেহেরা আক্তার। শনিবার একদিনের রিমান্ড শেষে রোববার আদালত পাষণ্ড মা মেহেরা আক্তারকে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

কেন্দুয়া উপজেলার মোজাফরপুর ইউনিয়নের গগডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র জনি মিয়াকে (১১) হত্যার পরিকল্পনা করে তার মা মেহেরা আক্তার। মেহেরার সঙ্গে পরকিয়ার অভিযোগে আটক একই গ্রামের তমিজ উদ্দিন ফকিরের (তমু ফকির) ছেলে সবুজ মিয়াকে গ্রেফতার করা হলে সবুজ মিয়া পুলিশ ও আদালতের কাছে স্কুল ছাত্র জনিকে হত্যার পরিকল্পনা ও হত্যার পর বস্তাবন্দি করে পুকুরে ফেলে রাখার ঘটনা স্বীকার করে।

সবুজ মিয়া পুলিশ ও আদালতকে জানান, শত্রুতার জন্য প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে মেহেরা তার নিজের সন্তানকে হত্যার পরিকল্পনা করে এবং হত্যার পর তার মরদেহ গুম করার জন্য পুকুরের পানিতে বস্তাবন্দি করে ফেলে রাখার পরিকল্পনা করে।

এ তথ্য নিশ্চিত করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কেন্দুয়া থানা পুলিশের এস আই ছামেদুল হক। ছামেদুল হক জানান, জনিকে হত্যা করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ৪ সেপ্টেম্বর জনির মা মেহেরা কৃমির ওষুধ খাওয়ানোর কথা বলে জনিকে কীটনাশক পান করায়। এরপর স্কুল ছাত্র জনি ২/৩ দিন বমি করে এবং শারীরিকভাবে অনেক দুর্বল হয়ে পড়ে।

পরবর্তীতে তার মৃত্যু না হওয়ায় শুক্রবার জুমার নামাজের সময় নীরবে তার মা মেহেরা অপর সহযোগীদের নিয়ে পুকুরে গিয়ে জনিকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে রাতে সবুজ, সনতু ও মেহেরা তিনজনে মিলে বস্তাবন্দি করে পুকুরে ফেলে রাখে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জানান, সবুজ মিয়া পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার পরিকল্পনা, হত্যার ঘটনা এবং হত্যার পর বস্তাবন্দি করার সময় নিজের জড়িত থাকার কথা পুলিশ ও আদালতের কাছে স্বীকার করেন। তার দেয়া জবানবন্দিতে একই গ্রামের সনতু মিয়া ও জনির মা মেহেরাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জনি হত্যার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে জনির মা মেহেরাসহ তার অপর দুই সহযোগী সবুজ ও সনতুকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হলে আদালত তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

এস আই ছামেদুল হক জানান, মামলাটির তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হবে।





আরও পড়ুন



প্রধান সম্পাদকঃ
ড. মো: ইদ্রিস খান

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

সিয়াম এন্ড সিফাত লিমিটেড
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close