* শীতকালে শুষ্ক ও ফাটা ত্বকের ঘরোয়া সমাধান           *  ইতিহাস গড়ে জিতল বাংলাদেশ           *  দণ্ডিতদের ভোটে আসার পথ আটকাই থাকল           *  গোলাম মাওলা রনির মনোনয়নপত্র বাতিল           * হিরো আলমের প্রার্থিতা বাতিল           *  ইবি অধ্যাপক নূরী আর নেই           * কেন্দুয়ায় চিথোলিয়া গ্রামে বসেছিল রাতব্যাপী লালন সংগীতের আসর           * গাজীপুরে মরুভূমি ফুল এর মানবন্ধন           *  শান্তিচুক্তির ২১ বছর পাহাড়ে থামেনি ভাতৃঘাতী সংঘাত           *  প্রতিপক্ষকে প্রথমবার ফলোঅন করালো বাংলাদেশ           *  ১৫০ সিসির নতুন পালসার আনল বাজাজ           *  গাঁজা সেবনের দায়ে যুবকের জেল           *  সেরা ডিজিটাল ব্যাংকের পুরস্কার পেল সিটি ব্যাংক           * দেশে পৌঁছেছে ‘হংসবলাকা’            * মোদি কেমন হিন্দু, প্রশ্ন রাহুলের            * মিরাজের ঘূর্ণিতে ফলোঅনে উইন্ডিজ           * কাঠবোঝাই ট্রাক চাপায় প্রাণ গেল তিন শ্রমিকের           * নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক বিক্রেতা নিহত           * আলাস্কায় ভয়াবহ ভূমিকম্প, ৬ ঘণ্টায় ৪০ বার কম্পন           * জাতিসংঘের মিশনে বিমান বাহিনীর ২০২ সদস্যের কঙ্গো গমন          
* দেশে পৌঁছেছে ‘হংসবলাকা’            * মোদি কেমন হিন্দু, প্রশ্ন রাহুলের            * মিরাজের ঘূর্ণিতে ফলোঅনে উইন্ডিজ          

পীরের ফতোয়ায় ভোটে অনীহা

স্টাফ রিপোর্টার | শনিবার, ডিসেম্বর ১, ২০১৮

পীরের ফতোয়ায় ভোটে অনীহা
চাঁদপুরের রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের নারীরা ভোট দেন না। স্থানীয় এক পীরের নির্দেশই এর কারণ বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। ওই পীরের ধারণা, মেয়েদের ভোট দেওয়া ইসলামবিরোধী কাজ।

স্থানীয়রা জানান, ৪৭ বছর ধরেই এই চিত্র চলে আসছে ওই ইউনিয়নে। স্থানীয় প্রশাসন বহু চেষ্টা করেও নারীদের ভোটকেন্দ্রে আনতে উদ্বুদ্ধ করতে পারেনি। এমনকি যারা শিক্ষিত, তারাও আসেন না জনপ্রতিনিধি নির্বাচনে।

রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নে মোট ভোটার ২৪ হাজার ৪৫৪ জন। তাদের মধ্যে নারী ভোটার রয়েছেন ১২ হাজার ১১৪ জন। তারা সবাই তালিকায় নাম তুলতে ছবি তুলেছেন, জাতীয় পরিচয়পত্রও নিয়েছেন।

ভোট না দিলে নিত্যদিন ঘরের বাইরে যান নারীরা। নিজ এবং সন্তানের লেখাপড়া, বাজার ছাড়াও নানা কাজে ব্যস্ত থাকতে হয় তাদের। কিন্তু ভোটের দিন সবাই থাকেন ঘরের ভেতরে।

১৯৭০ সালের নির্বাচনের পর জৈনপুরের পীরের অনুসারী হাছান মওদুদ নামে স্থানীয় একজন পীর এই ফতোয়া জারি করেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। তিনি দাবি করেন, মেয়েদের ভোট দেওয়া নাজায়েজ কাজ। এরপর ১০টি সংসদ নির্বাচন আর কোনো স্থানীয় নির্বাচনে ভোট দেননি নারীরা।

এবারও জাতীয় নির্বাচনে এই ইউনিয়নের নারীরা ভোট দিতে পারবেন কি না তা নিয়ে সংশয় আছে। যদিও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইসকান্দার আলী আশা করছেন, এবার পরিস্থিতি পাল্টাবে। তিনি বলেন, ‘একটি গুজব উঠেছিল, তবে সমস্ত ব্যাপার সমাপ্ত হয়ে গেছে। এখন মহিলারা আসবে এবং ভোট দেবে।’

ফতোয়া জারি করা পীর হাছান অবশ্য বেঁচে নেই। তিনি পাঁচ বছর আগেই মারা গেছেন। আর এ কারণে এবার নারীদের ভোটকেন্দ্রে নিয়ে আসার ব্যাপারে আশাবাদী স্থানীয় প্রশাসন।

নারী ভোটারদের ভোট দিতে উদ্বুদ্ধ করার বিষয়ে জেলা নির্বাচন কর্মাকর্তা হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘এই নির্বাচনে নারী ভোটারসহ সবাই যাতে ভোটকেন্দ্রে যান, সে জন্য নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এবং তার প্রতিনিধি হিসেবে রিটার্নিং কর্মকর্তা, সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাসহ আমাদের উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেবেন।’




আরও পড়ুন



সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
মোঃ খায়রুল আলম রফিক

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৬৫/১ চরপাড়া মোড়, সদর, ময়মনসিংহ।
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close