* খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে ১৪০১ পৃষ্ঠার আপিল আবেদন           *  মিথ্যা খবর প্রকাশ, রেহাম খানের কাছে ক্ষমা চাইল দুনিয়া টিভি            *  মিঠুনকে হারিয়ে চাপে বাংলাদেশ           * পিকেএসএফ উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী           * রেলের গেটম্যানকে মারধর করায় ইউএনও’র বিরুদ্ধে মামলা           *  বিক্ষোভে উত্তাল হংকং, ছাত্র-পুলিশ ব্যাপক সংঘর্ষ অনলাইন ডেস্ক           * ৬৯ বারেও দাখিল হয়নি সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন           * ফের বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ, ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি ১৬৭ জন           *  অবশেষে জানা গেল ট্রেন দুর্ঘটনার আসল রহস্য!            *  ডাকসুর ভিপিদের কেউ-ই চাকরি করেননি: মান্না            * পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আগুন, কম্পিউটার-এসিসহ আসবাবপত্র পুড়ে ছাই           * যে গ্রামের বাসিন্দাদের কাছে সোনা-গয়না-অর্থ-সম্পদ সবই আছে, শুধু নেই জামা-কাপড়!            * পেঁয়াজের দাম কমাতে উজবেকিস্তান থেকে আসছে ‘উজবেক’            * ১০৭ বছরের ঘূর্ণিঝড়ের রেকর্ড ভাঙতে পারে এবার            *  ইতালিতে মসজিদে বোমা হামলার চক্রান্ত : পিতা-পুত্র গ্রেফতার            *  মির্জা ফখরুলের বিরুদ্ধে মামলা করলেন বিএনপির ২ নেতা            * দানবাক্সে ২৭ লাখ টাকা           * এই ছেলের দাঁত ৫২৬টি!           * ধর্ষণের ক্ষতিপূরণে গর্ভজাত সন্তান বিক্রির পরামর্শ           * হলিউডে আলিয়া ভাট          
*  মিঠুনকে হারিয়ে চাপে বাংলাদেশ           * পিকেএসএফ উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী           *  বিক্ষোভে উত্তাল হংকং, ছাত্র-পুলিশ ব্যাপক সংঘর্ষ অনলাইন ডেস্ক          

বোয়ালমারীতে বন্ধ হয়নি প্রাইভেট-কোচিং বাণিজ্য

বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিবেদক | শুক্রবার, ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০১৯

বোয়ালমারীতে বন্ধ হয়নি প্রাইভেট-কোচিং বাণিজ্য
উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা ও সরকারের নীতিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে চলছে অভিনব কৌশলে প্রাইভেট ও কোচিং বাণিজ্য।

গোপনে বাসায় প্রাইভেট ও কোচিং সেন্টারে পড়াচ্ছেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অনেক শিক্ষক। স্কুলের ক্ষেত্রে নানা প্রলোভন ও পরীক্ষায় কম নম্বর দেওয়ার ভয় দেখিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়তে বাধ্য করা হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে তেমন কঠোর অবস্থান না থাকায় কলেজের শ্রেণিকক্ষে প্রকাশ্যেই প্রাইভেট পড়াচ্ছেন কয়েকজন শিক্ষক।

প্রশ্নপ্রত্র ফাঁস রোধে চলমান এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর আগে থেকে সব ধরনের কোচিং বন্ধের নির্দেশ দেয় উচ্চ আদালত ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কোচিং ও প্রাইভেট পড়ানোর বিষয়ে সরকারের রয়েছে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা। আদালত ও মন্ত্রণালয়ের এই নির্দেশ অমান্য করে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা অভিভাবকদের বাধ্য করছেন শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়তে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন শিক্ষার্থী জানান, স্কুলে না গেলেও সমস্যা নেই। কিন্তু প্রাইভেট না পড়লে বোর্ড পরীক্ষায় যেমন তেমন, স্কুলের পরীক্ষায় পাস করা সম্ভব নয়। প্রাইভেট না পড়লে ক্রীড়া প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন সহশিক্ষা কার্যক্রমের বাইরেও রাখা হয়।

চতুল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনির হোসেন বলেন, ‘প্রাইভেট নীতিমালা ও কোচিং বন্ধে আদালত রায় দিয়েছেন। তবুও বন্ধ হচ্ছে না কোচিং বা প্রাইভেট। শিক্ষকরা সকাল-বিকাল কৌশলে প্রাইভেটে সময় দেয়। ক্লাসে মনোযোগসহকারে ভালোভাবে পড়ালে শিক্ষার্থীদের আর প্রাইভেট কিংবা কোচিং করতে হয় না। শিক্ষকরাই বাণিজ্য করতে ক্লাসে পড়া ফাঁকি দেন।’

গত কয়েকদিন সরেজমিনে ঘুরে পৌর সদরের একাধিক শিক্ষককে প্রাইভেট পড়াতে দেখা গেছে। প্রাচীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বোয়ালমারী জর্জ একাডেমীর হিসাববিজ্ঞানের শিক্ষক আনিচুজ্জামান কলেজ রোড সংলগ্ন ভাড়া বাড়িতে দিনে কয়েকটি ব্যাচে প্রায় ২৫০ ছাত্র ছাত্রীকে প্রাইভেট পড়ান। দরজা-জানালা বন্ধ করে নিজে ও তার স্ত্রী নিলুফা খাতুন (একটি নি¤œমাধ্যমিক কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষিকা) কৌশলে প্রাইভেট পড়াচ্ছেন। যার অধিকাংশই জর্জ একাডেমির শিক্ষার্থী। এই শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্কুলে যেতে শিক্ষার্থীদের নিরুৎসাহী করারও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরজমিনে গেলে সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে গোপন দরজা দিয়ে শিক্ষার্থীদের বের করে দেন শিক্ষক আনিচুজ্জামান। প্রাইভেট পড়ানোর দৃশ্য ক্যামেরায় ধারণ করা হলে সাংবাদিকদের ম্যানেজ করতে বিভিন্ন মাধ্যমে চেষ্টা চালান তিনি।

বোয়ালমারী জর্জ একাডেমীর প্রধান শিক্ষক আব্দুল আজিজ বলেন, ‘নীতিমালা অনুসারে আনিচুজ্জামানসহ কোনো শিক্ষক আমার কাছ থেকে কোনো অনুমতি নেননি। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বোয়ালমারী সরকারি কলেজে গতকাল সকাল ৯টা ৩৫ মিনিটে গিয়ে দেখা গেছে, শ্রেণিকক্ষ ব্যবহার করে দুইজন শিক্ষক প্রাইভেট পড়াচ্ছেন। রাষ্ট্রবিজ্ঞানের শিক্ষক প্রফেসর অসীম কুমার ঘোষ প্রায় ৩০ জন শিক্ষার্থীকে ইংরেজি পড়াচ্ছিলেন। হঠাৎ সাংবাদিকরা উপস্থিত হয়ে ছবি ধারণ করতে চাইলে তিনি বাঁধা দেন এবং দাবি করেন, নীতিমালা অনুসরণ করে পড়ানো হচ্ছে।

ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষায় ফলাফল বিপর্যয়ের ভয় দেখিয়ে উস্কে দেওয়ারও চেষ্টা করেন তিনি এবং সাংবাদিকদের ওপর অনেকটাই মারমুখী হয়ে ওঠেন। একজন রাষ্ট্রবিজ্ঞানের শিক্ষক হয়ে কীভাবে নীতিমালা অনুসারে ইংরেজি পড়াচ্ছেন? জানতে চাইলে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি অসীম কুমার ঘোষ।

হিসাববিজ্ঞানের খ-কালীন শিক্ষক জোয়াদ্দারকেও কলেজ সময় পড়াতে দেখা যায়। তবে তার দাবি, নীতিমালা অনুসারে শিক্ষার্থীদের অতিরিক্ত ক্লাস নেওয়া হচ্ছে।

বোয়ালমারী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. মো. আব্দুস সাত্তার মজুমদারকে তার কার্যালয়ে না পেয়ে মোবাইলে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘বোয়ালমারীতে আসলে কেউ এসে থাকতে চান না। যারা আসেন তাদের সুযোগ-সুবিধা না করে দিলে কলেজ চালানো সম্ভব নয়।’

‘লিখিতভাবে কেউ পড়ানোর অনুমতি নেননি। তবে মৌখিকভাবে কেউ কেউ অনুমতি চেয়েছেন। শিক্ষার্থীদের দিকে তাকিয়ে নীতিমালা অনুসারে পড়াতে বলেছি।’

কাজী সিরাজুল ইসলাম মহিলা কলেজের একাধিক শিক্ষকসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৫০ জন শিক্ষক প্রাইভেট-কোচিং বাণিজ্যে জড়িত বলেও অভিযোগ রয়েছে। ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য বন্ধ নীতিমালা’২০১২’ এর ১৩ অনুচ্ছেদের ‘ঙ’ ধারায় সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোনো শিক্ষক কোচিং বাণিজ্যে জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধে ‘সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপীল) বিধি’১৯৮৫’ এর অধীনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হবে বলে উল্লেখ থাকলেও নীতিমালার তোয়াক্কা করছেন না এই শিক্ষকরা।

বোয়ালমারী উপজেলা শিক্ষা নীতিমালা মনিটরিং কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাকির হোসেন বলেন, ‘বোয়ালমারীতে প্রাইভেট পড়ান কেউ কেউ, তবে বর্তমানে তেমন একটা দৃষ্টিগোচর হচ্ছে না। কেউ যদি নীতিমালা বহির্ভূতভাবে লুকিয়ে পড়ানোর চেষ্টা করেন, তবে আমাকে অবহিত করুন। সেই শিক্ষকের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’




আরও পড়ুন



২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close