* স্বামীকে বাঁচাতে সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যুদ্ধ নারীর, তবুও শেষ রক্ষা হলো না           *  কেন্দুয়া আটপাড়ার আর্শিবাদ অসীম কুমারকে অভিশপ্ত করে তুলতে শুরু হয়েছে গভীর ষড়যন্ত্র।           * পরীক্ষা বাদ রেখে শিক্ষার্থীদের তুলে আনা হল প্রশাসনের অনুষ্ঠানে           * ময়মনসিংহে অর্থ আত্মসাতে গ্রামীণ ব্যাংক ম্যানেজারের কারাদণ্ড           * পিরোজপুরে ছুরিকাঘাতে আ.লীগ নেতা নিহত           * রোহিঙ্গায় নিরাপত্তা ব্যাহত হওয়ার শঙ্কা প্রধানমন্ত্রীর           * আমি দুর্নীতি করলেও তুলে ধরুন, সাংবাদিকদের পূর্তমন্ত্রী           * আয়লানের মতো মানবতাকে নাড়া দেয়া আরেক ছবি আন্তর্জাতিক ডেস্ক           *  দুদক কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের বিক্ষোভ           *  ময়মনসিংহে মাদক নির্মূলে কাজ করছে রেঞ্জ পুলিশ ------- এডিশনাল ডিআইজি ড. মোঃ আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া           * ত্রিশালে আবারও মুক্তিযোদ্ধার জমি দখলের চেষ্টা            *  ফুলবাড়ীয়ায় আলাদীন’স পার্ক সকলের নিকট জনপ্রিয়           * সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে ইবি           * সাকিবকে এই বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড় বললেন হাসি           * ড্রোনের কারণে ফ্লাইট বিভ্রাট সিঙ্গাপুর বিমানবন্দরে           * ছাত্রদলের তোপের মুখে রিজভী, কেন?           * প্রতীকী ‘কাবা’ বন্ধ করতে আইনি নোটিশ           * বেড়ায় ক্ষেত খাইলো গৌরীপুরের মৎস্য চাষী হারুনের!           * সৌদি সেনা ঘাঁটিতে গোলাগুলি, তিন সেনা নিহত!           * টাঙ্গাইলে মাদরাসা ছাত্রীকে গণধর্ষণ! দুই ধর্ষক গ্রেফতার          
*  ময়মনসিংহে মাদক নির্মূলে কাজ করছে রেঞ্জ পুলিশ ------- এডিশনাল ডিআইজি ড. মোঃ আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া           * অপহৃত সেই তিন জমজ বোন উদ্ধার, আটক - ৬           * সাভারে তিন মাস আটকে রেখে গৃহবধূকে ধর্ষণ- থানায় অভিযোগ          

রংপুর মেডিকেল কলেজের সচিব ফজলুল হক এখন শত কোটি টাকার মালিক

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক : | মঙ্গলবার, জুন ৪, ২০১৯

রংপুর মেডিকেল কলেজের  সচিব ফজলুল হক এখন শত কোটি টাকার মালিক
রংপুর মেডিকেল কলেজের ক্লিনার থেকে সচিব (মেডিকেল কলেজের) হওয়া ফজলুল হক এখন অর্ধশত কোটি টাকার মালিক। রংপুরের কলেজ পাড়ায় মেয়ের নামে ৬ তলা ছাত্রীনিবাস, তিন একর জায়গাজুড়ে বিশাল একটি দেড়শ শয্যার হোস্টেলসহ স্কুল অ্যান্ড কলেজ, গরুর খামার, আইটি সেন্টার, শতাধিক বিঘা জমি, ঢাকায় বহুতল অ্যাপার্টমেন্টসহ সম্পদের পাহাড় গড়ে তুলেছেন তিনি। তার ক্ষমতার দাপটের কাছে জিম্মি কলেজ প্রশাসন। তিনি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে টেন্ডার, নিয়োগসহ সব কিছুই নিয়ন্ত্রণ করেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালসহ বিভিন্ন এলাকায় মাসব্যাপী অনুসন্ধান চালিয়ে উদঘাটন করা হয়েছে ফজলুল হকের অবৈধ সম্পদের উৎস। তবে তিনি এ বিরাট সম্পদের কথা স্বীকার করে এ নিয়ে প্রতিবেদন না লেখার অনুরোধ জানান।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, ১৯৯৬ সালে ফজলুল হক রংপুর মেডিকেল কলেজে ক্লিনার পদে চাকরিতে যোগদান করেন। নিয়োগ বিধি অনুযায়ী এ পদ হতে পদোন্নতির কোন সুযোগ নেই। তারপরও তিনি অফিস সহকারী, স্টোরকিপার, হেডক্লার্ক পদে ছিলেন।আবার স্টোর কিপার হলে হেডক্লার্ক হবার কোন বিধি নেই।তারপরও পর পর এতগুলো পদে পদোন্নতি পাওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ বিধি বহির্ভূত ও রহস্যজনক বলে জানান কলেজের কর্মচারীরা।পদোন্নতি ও পদায়নের বিষয়টি খতিয়ে দেখলে দায়ী ব্যক্তিদের কঠিন সাজা পেতে হবে।

এরপর কলেজের সচিব পদে কর্মরত কর্মকর্তা অবসরে গেলে ফজলুল এক প্রভাবশালী ব্যক্তির সহায়তায় তৎকালিন মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষকে ম্যানেজ করে ভারপ্রাপ্ত সচিবের পদ লাভ করেন। ওই সময়ে সচিব পদে আরও অন্তত দুই কর্মকর্তা যোগ্যতাসম্পন্ন হলেও তাদের টপকিয়ে তিনি সচিব পদ লাভ করেন। এরপর তাকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে টেন্ডারের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার মালামাল সরবরাহ, বিভিন্ন পদে নিয়োগসহ সব বিষয় তিনি নিয়ন্ত্রণ করে এখন অর্ধশত কোটি টাকার মালিক।

অনুসন্ধান ও সরেজমিন ঘুরে জানা যায়; রংপুর নগরীর কলেজ পাড়ায় বিশাল এলাকাজুড়ে তার মেয়ের নামে গড়ে তুলেছেন ৬ তলা বিশিষ্ট ‘ফারজানা ছাত্রী হোস্টেল’। এখানে ৪শ’ বেড রয়েছে। রংপুর রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় ও কারমাইকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা এই হোস্টেলে থাকে। এছাড়াও নগরীর ডেওডোবা বানিয়া এলাকায় কয়েক একর জায়গাজুড়ে ফজলুল হকের ছোট ছেলের নামে গড়ে তোলা হয়েছে ‘ফাইয়াজ স্কুল অ্যান্ড কলেজ’। বিশাল অট্টালিকা, শিক্ষার্থীদের আনা নেয়ার জন্য রয়েছে বাসসহ যানবাহন।

স্কুলের ভেতরে প্রবেশ করে দেখা যায় ফজলুল হকের স্ত্রী খাদিজা বেগম কাজকর্ম তদারক করছেন। শিক্ষার্থীদের জন্য ফজলুল হকের ছবিসহ একটি বাণী দেয়ালে সাঁটানো হয়েছে। তার স্ত্রী খাদিজা বেগম জানালেন স্কুলটিতে রংপুর ছাড়াও অন্যান্য জেলার শিক্ষার্থীরা আছেন। তাদের জন্য থাকার ব্যবস্থা আছে। আপাতত কলেজ চালু হয়নি তবে প্রয়োজনীয় অনুমোদন করিয়ে নেয়া হয়েছে। তিনি স্বীকার করেন ফজলুল হক তার স্বামী, স্কুলটি মূলত তিনিই দেখভাল করেন। তিনি জানান একটি সর্বাধুনিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বলতে যা বোঝায় সবই আছে এখানে।

অন্যদিকে ফজলুল হকের দুই ছেলেমেয়ে বেসরকারি প্রাইম মেডিকেল কলেজে লেখাপড়া করে। সেখানে ভর্তি হতে একেকজন শিক্ষার্থীর ২৫ লাখ টাকা খরচ হয়। ফজলুল হক ও তার পরিবারের যাতায়াত করার জন্য রয়েছে দুটি কার। তার ছেলের নামে ওই এলাকায় আছে একটি আইটি সেন্টার। সেখানে ১০টির বেশি কম্পিউটারসহ অন্যান্য আধুনিক যন্ত্রপাতি আছে।

এছাড়াও চাঁদের বাজার এলাকায় ফজলুল হকের একটি বিদেশি গরুর খামারের সন্ধান পাওয়া যায়। সেখানে গিয়ে জানা যায়, দুশ’র বেশি বিদেশি গরু রয়েছে সেখানে। আরও গরু আনার কাজ চলছে বলে জানালেন খামারের লোকজন। অন্যদিকে ভুরারঘাট এলাকায় ২৫ একর জমি রয়েছে ফজলুল হকের। এ ছাড়াও বিভিন্ন ব্যাংকে নামে বেনামে রয়েছে কয়েক কোটি টাকা। এত বিপুল পরিমাণ সম্পদ হলো কিভাবে এ যেন আলউদ্দিনের আশ্চর্য প্রদীপের মতো বলে জানালেন মেডিকেল কলেজের কর্মকর্তা কর্মচারীসহ অনেকে।

এসব বিষয়ে জানতে ফজলুল হকের সাথে তার অফিসে গিয়ে কথা বললে (পুরো বক্তব্য বাণীবদ্ধ করা আছে) তিনি জানান; ছাত্রী নিবাসটি তার মেয়ে ফারজানার নামে ঠিক তবে জায়গাটি এক ব্যবসায়ী তাকে দিয়েছেন এবং ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ছাত্রী নিবাসটি নির্মাণ করেছেন। তবে কোন ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছেন তা জানাতে পারেননি।

ছেলের নামে ফাইয়াজ স্কুল অ্যান্ড কলেজের কথা স্বীকার করে বলেন, তার অনেক দিনের স্বপ্ন ছিল আন্তর্জাতিক মানের বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার। তিনি বলেন, আপাতত একশ জন শিক্ষার্থী থাকার সর্বাধুনিক ব্যবস্থা করা হয়েছে, প্রয়োজনে বেড সংখ্যা বাড়ানো হবে। তবে বিদ্যালয়টি পরিচালনা করেন তার স্ত্রী এবং ছেলে। স্ত্রী স্কুলটির সভাপতি এবং ছেলে সদস্য সচিব বলে জানালেন তিনি। এছাড়াও বড় ছেলের নাহিদের নামে আইটি সেন্টার এবং একটির গরুর খামার থাকার কথাও স্বীকার করেন তিনি। তার দুই ছেলে মেয়ে প্রাইম মেডিকেল কলেজে পড়াশোনা করার কথাও স্বীকার করেন তিনি। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন আসলে কারো ভালো কেউ দেখতে পারেন না। শেষে এসব তথ্য নিয়ে প্রতিবেদন না লেখার অনুরোধ করেন তিনি।





আরও পড়ুন



১. প্রধান উপদেষ্টা ঃ এড. সাদির হোসেন (হাইকোর্ট আইনজীবি)
২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close