* বাজেয়াপ্ত গাঁজা পোড়াল পুলিশ, নেশায় বুঁদ এলাকাবাসী            * কুমারিত্ব প্রমানে বাজারে এলো ‘আই ভার্জিন পিল’            * পেঁয়াজ বর্জনের ঘোষণা দিয়ে শপথ!           * ৩ ডাক্তার ও মেডিকেল ছাত্রীর কথোপকথন           *  ২৩ মাস ধরে গর্ভবতী!            * জান্নাত ও জাহান্নামের পরিচয় এবং সুখ-শাস্তির বিবরণ           *  জিমে গিয়ে মালিকের হাতে ধর্ষণের শিকার তরুণী            * শ্যালকের স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার           * ইতিহাসের পাতায় অধিনায়ক কোহলি            * গফরগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট মাকে বাঁচাতে গিয়ে মেয়ের মৃত্যু           * এবার বিয়েতে পেঁয়াজ উপহার           * পেঁয়াজ খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী           *  নকল সরবরাহ করার দায়ে ৫ শিক্ষকের কারাদণ্ড।           *  স্মৃতিতে সিডর নতুন করে বাঁচার নিরন্তন চেষ্টা           * শেখ রাসেলের ৫৫তম জন্মদিন নেত্রকোণায় অনুষ্ঠিত           *  ছাত্রলীগের মারধরে আহত রাবি শিক্ষার্থী ; ৩দফা দাবিতে উত্তাল ক্যাম্পাস !           * দিনাজপুরে ফার্নিচার ব্যবসায়ী থেকে কোটিপতি           * ময়মনসিংহ জেলা মটরযান কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল সালাম সাঃ সম্পাদক চানু নির্বাচিত            * কলমাকান্দায় অপ-প্রচারের বিরুদ্ধে মানববন্ধন           *  স্কুল ছাত্রী অপহরণের পর ধর্ষণ, ইউপি সদস্য আটক          
* চারদিনের সফরে আজ আমিরাত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী           * কুড়িগ্রামে কোটিপতি ডাক্তার অমিত কুমার বসুর চিকিৎসা বাণিজ্য            *  বাড়ছে লিড, বাড়ছে বাংলাদেশের ভয়           

টাঙ্গাইলে বনের জমি বেদখল করে এলজিইডির রাস্তা

খায়রুল আলম রফিক, টাঙ্গাইল থেকে ফিরে | বৃহস্পতিবার, জুন ৬, ২০১৯
টাঙ্গাইলে বনের জমি বেদখল করে এলজিইডির রাস্তা

দেশের তৃতীয় বৃহত্তম বনাঞ্চলের সিংহভাগ টাঙ্গাইল বন বিভাগের আওতাধীন । টাঙ্গাইল বন বিভাগের আওতাধীন সরকারি হিসাবে বনভূমির পরিমাণ ১লাখ ২২ হাজার ৮শ’ একর । বন বিভাগের এই জমির ৪১ হাজার ৫২ একর বনভূমি বেদখল হওয়ার অভিযোগ উঠেছে । সম্প্রতি টাঙ্গাইল বন বিভাগের আওতাধীন মির্জাপুর উপজেলার বনাঞ্চলের বাশকুড়া বনবিট এলাকায় সরকারের এলইজিইডি অর্থায়নে অবৈধভাবে নির্মাণ করা হচ্ছে পাকা সড়ক ।

বনের জমি বেদখল হওয়ার উৎকৃষ্ট নমুনা এটি । টাঙ্গাইল বন বিভাগের আওতাধীন বনের জমি সখিপুর পৌরসভা এলাকার বিস্তীর্ন এলাকা বেদখল করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে । এছাড়াও টাঙ্গাইল বন বিভাগের মধুপুর, ঘটাইল এলাকাতেও বনের জমির ওপর মানুষের আগ্রাসন থেমে নেই। চলছে বনভূমি লোপাট। বৃক্ষ নিধনসহ বনজ সম্পদ ধ্বংসের মহাযজ্ঞ থামছে না কিছুতেই। সুযোগ সন্ধানী ভূমি খেকোরাও বসে নেই, বনভূমির জমিতে গড়ে তুলছে ইমারত, হাট- বাজার, রাস্তা-ঘাট, প্রতিষ্ঠান । স্থানীয়দের অভিযোগ, বন কর্মকর্তাদের যোগসাজশ, লোকবল সঙ্কট, অদক্ষ ব্যবস্থাপনা, মান্ধাতা আমলের জরিপ ব্যবস্থাসহ অনৈতিক কর্মকান্ড চলতে থাকায় সমালোচনার মুখে রয়েছে টাঙ্গাইল বন বিভাগ

। টাঙ্গাইল বন বিভাগের জমি নানা স্থানে বেদখল অব্যাহত আছে । আবাসস্থল, পশু শিকার, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সহ একাধিক কারণে ব্যবহৃত হচ্ছে বন। গহীন অরণ্যে গাছ নিধন এখনও অহরহ ঘটনা। ফলে গাছ সমৃদ্ধ টাঙ্গাইলে বাড়ছে উষ্ণতা, পরিবর্তিত হচ্ছে ঋতু বৈচিত্র।

এমনকি ক্রমান্বয়ে জলাবদ্ধতা বৃদ্ধিসহ বাড়ছে মরুময়তা। পরিবেশবাদীদের মতে, যে কোন মূল্যে রক্ষা করতে হবে দেশের প্রাকৃতিক বনভূমি। গাছ নিধনসহ বনজ সম্পদ রক্ষা সরকারের অন্যতম একটি চ্যালেঞ্জ বলেও মনে করেন কেউ কেউ। বিশেষজ্ঞদের মতে, বনভূমি জবর দখল ও নির্বিচারে বৃক্ষ নিধনের প্রভাবে হুমকির মধ্যে পড়েছে বন । মৌসুমী বায়ুর ধরন পরিবর্তন ও গ্রীষ্মকালের দূরত্ব বৃদ্ধির কারণে শস্যতে কীট-পতঙ্গের আক্রমণও বৃদ্ধি পেয়েছে বলে দাবি রয়েছে। এসব কারণে বনের ওপর মানুষের নির্ভরতাা বৃদ্ধি পাওয়ায় ভবিষ্যতে বনভূমির

ওপর মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে বলেও ধারণা করা হচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে, বনভূমির জায়গা দখল করে কলকারখানা ও বসতি নির্মাণের ফলে ক্রমইে কমে আসছে এ বনের আয়তন। জানা গেছে, জমি লিজ নিয়ে বা ব্যক্তিমালিকানায় জমি ক্রয়ের পর বনবিভাগরে জমি দখল করে নেয়া এ এলাকায় নিত্যনৈমিত্তিক! টাঙ্গাইল বন বিভাগের বন সংরক্ষক (ডিএফও) হারুনুর রশিদ খান আমাদের কন্ঠকে বলেন, বনভূমি ও বনজসম্পদ রক্ষায় আমাদের সব রকমের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। যদিও জনবল সঙ্কট দীর্ঘদিনের

অন্যতম একটি সমস্যা। মির্জাপুর বনে এলজিইডির রাস্তা নির্মাল প্রসঙ্গে ডিএফও বলেন, বনের জমি বেদখল করে রাস্তা নির্মাল বন্ধের বিষয়ে টাঙ্গাইলের এলজিইডি’রর নির্বাহী প্রকৌশলীকে বার বার চিঠি দিয়েছি । তারপরও তারা রাস্তা করেছে । নিরুপায় হয়ে বাশকুড়ি বন বিট অফিসার বাদী হয়ে বন আদালতে মামলা দায়ের করেন । আসামি ঠিকাদার দেলোয়ার হোসেন সাথীর বিরুদ্ধে পরোয়ানা করে আদালতের হাকিম । টাঙ্গাইলের এলজিইডি’রর নির্বাহী প্রকৌশলী গোলাম আজম আমাদের কন্ঠকে বলেন, বন বিভাগের চিঠি আমার হস্তগত হওয়ার পর কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে । এক্সএন বলেন, যতটুকু করেছি সংসদ সদস্যের নির্দেশেই রাস্তার কাজ করেছি ।





আরও পড়ুন



২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close