* ময়মনসিংহে গৃহবধূকে গলাকেটে হত্যার চেষ্টা           *  ডেল্টা গ্রুপের লুটপাট: ২২৫০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ, তদন্তে নামছে দুদক            *  ময়মনসিংহে মাদক নির্মূলে দিন- রাত কাজ করছেন ডিবি ওসি           * কল্লাকাটা’র গুজব পাগলও রক্ষা পেল না জনতার রোষানল থেকে           * যশোরে দুই জঙ্গি আটক           * ব্রিটেনের হুমকি উপেক্ষা: ট্যাংক মুক্তি দেবে না ইরান           * এবার কুমিল্লায় ছেলেধরা সন্দেহে ভিক্ষুককে গণপিটুনি           * গুজব ছড়িয়ে আইন হাতে তুলে নেবেন না: পুলিশ           * মুক্তাগাছার কুমারগাতায় দালালদের দৌরাত্ম্য বাড়ছে অপরাধ           * রাষ্ট্রপতির ক্ষমার ১০ বছর পর মুক্তি মিলল স্কুলশিক্ষকের!           * আজ লন্ডন যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী           * প্রেমের টানে লক্ষ্মীপুরে আমেরিকান নারী           * মৃত্যুর ১৪ দিন পর কবর থেকে তাসলিমার লাশ উত্তোলন           *  বরগুনার এসপি এবার বললেন, ‘স্বীকারোক্তি তো পুলিশের কাছে হয় না, হয় জজের কাছে’            * দুর্নীতির অভিযোগে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী আব্বাসি গ্রেফতার           * পূর্বধলায় ছেলে ধরা সন্দেহে ১ জন আটক            * শিশুর কাটা মাথা নিয়ে মদ খেতে গিয়েছিলেন ওই যুবক           * ‘দুর্নীতিগ্রস্ত’ ওয়াসার ‘লুকোচুরি’           * ১০৩ টাকায় পুলিশে চাকরি, গফরগাঁও থানায় সংবর্ধনা           *  কেউ পাস করেনি ১ বেসরকারি কলেজে ময়মনসিংহের ৩ সরকারি কলেজে এইচএসসি’র ফল বিপর্যয়          
* কল্লাকাটা’র গুজব পাগলও রক্ষা পেল না জনতার রোষানল থেকে           * দিয়াবাড়ির অস্ত্র রহস্য তিন বছর পরও অজানা           * ত্রিশালে বাধাগ্রস্থ উন্নয়ন রাজনৈতিক বিরোধের সুযোগে সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতি          

ময়মনসিংহে সা’দ পন্থীদের বিরুদ্ধে বিশৃংখলা সৃষ্টির অভিযোগ, শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বজায় রাখতে যুবায়ের পন্থীদের স্মারকলিপি

কামরুজ্জামান মিনহাজ | বুধবার, জুন ১৯, ২০১৯
ময়মনসিংহে সা’দ পন্থীদের বিরুদ্ধে বিশৃংখলা সৃষ্টির অভিযোগ,
শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বজায় রাখতে যুবায়ের পন্থীদের স্মারকলিপি

বিভিন্ন বিভ্রান্ত  বয়ান ও মতবাদ দিয়ে বিশ্বে বিতর্কিত দিল্লীর নিজাম উদ্দিন মসজিদের মাওলানা সা’দ কান্দলভী পন্থী গুটি কয়েক লোক শান্তির মহানগর ময়মনসিংহে নানা বিশৃংখলা, বিরোধ সৃষ্টিসহ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ার জন্য নানা তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।

বিচ্ছিন্ন গ্রুপটি ময়মনসিংহ তাবলীগ মারকাজে অনুপ্রবেশ করে শান্তিপূর্ণ মারকাজের পরিবেশকে স্থায়ীভাবে অস্থিতিশীল ও উগ্রতার পরিবেশ তৈরির অপতৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। যা কোনোক্রমেই বাস্তবায়িত করার সুযোগ দেওয়া সমীচিন হবে না।

ওরা পুলিশ ও প্রশাসনের দোহাই দিয়েও নানা বিভ্রান্ত ছড়িয়ে ফায়দা হাসিলের নানা অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এহেন পরিস্থি’তে এঅঞ্চলের প্রায় ৯৮ ভাগ মাদ্রাসা ও শিক্ষক শিক্ষার্থীদের একমাত্র সংগঠন ‘ইত্তেফাকুল ওলামা বৃহত্তর মোমেনশাহী’ ওলামা-মাশায়েখ, ইমাম-খতিবগণসহ ময়মনসিংহের তাবলীগ জামায়াতেরও প্রায় ৯৮ভাগ ধর্মপ্রাণ মুসল্লীরা শান্তিপূর্ণ  অটুট রাখাসহ নিজ নিজ সহাবস্থান বজায় রেখে আমল করার জন্য মঙ্গলবার দুপুরে প্রশাসন ও সিটির মেয়রের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।

ওলামা-মাশায়েখ, ইমাম-খতিব, তাবলীগের মুরুব্বী ও মুসল্লী নেতৃবৃন্দ ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ইকরামূল হক টিটুর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেন। এসময় মতবিনিময়ে মেয়র টিটু শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বজায় রাখার জন্য প্রশাসনের সহযোগিতায় সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাবেন বলে আশ্বাস দেন। এছাড়াও ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসানের কাছে স্মারকলিপি পেশকালে ওলামা

নেতৃবৃন্দ শান্তির জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন। এছাড়াও ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি, ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের অফিসে গিয়ে পৃথক  স্মারকলিপি প্রদান করেন।

ইত্তেফাকুল ওলামা বৃহত্তর মোমেনশাহী’র কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা পরিষদের সভাপতি ও জামিয়া আরাবিয়া মাখজানুল উলুম ঢোলাদিয়া, তালতলা মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল হযরত মাওলানা আব্দুর রহমান হাফিজ্জি স্বাক্ষরিক স্মারকলিপিতে  উল্লেখ করা হয়, ওলামা  দাওয়াত ও তাবলীগের বর্তমান সকল বিরোধ ও বিশৃংখলার একমাত্র উৎস হলো দিল্লীর নিজাম উদ্দিন মসজিদের মাওলানা

সা’দ কান্দলভীর বিভিন্ন বিতর্কিত ভ্রান্ত বয়ান ও আচার আচরণ। পৃথিবী খ্যাত ইসলামী চিন্তাকেন্দ্র ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দের কেন্দ্রীয় ফাতয়া বিভাগ  দিল্লীর মাওলানা সা’দ সাহেবের বিভিন্ন বিভ্রান্ত  বয়ান ও চিন্তাধারাগুলোর বিরুদ্ধে আলোচনা-সমালোচনা করে তার বিরুদ্ধে একটি ফাতওয়া জারি করেন। বাংলাদেশের মূলধারার সকল আলেম উলামা, মসজিদের ইমাম-খতীব এবং ইসলামী স্কলারদের অবস্থান দারুল উলূম দেওবন্দের

ফাতওয়ার পক্ষে। মাওলানা সা’দ এখনো তার বক্তব্য প্রত্যাহার করেননি। মাওলানা সা’দের বক্তব্যকে পূঁজি করে দেশে সা’দ পন্থীরা বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশে নানা তৎপরতার মাধ্যমে বিশৃংখলা সৃষ্টি করে যাচ্ছে। ময়মনসিংহেও তার ব্যতিক্রম নয়।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, বৃহত্তর ময়মনসিংহের প্রায় সকল দ্বীনি ও কওমী মাদ্রাসাগুলোর একমাত্র সংগঠন ‘ইত্তেফাকুল ওলামা বৃহত্তর মোমেনশাহী’  এর সহিত অর্ন্তভূক্ত প্রায় ৯৮ ভাগ মাদ্রাসা ও শিক্ষক শিক্ষার্থী। এঅঞ্চলের ওলামা-মাশায়েখ, ইমামগণসহ দ্বীনি শিক্ষার্থীরাও মূলধারার ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দের কেন্দ্রীয় ফাতয়া বিভাগের মতামতকে সমর্থন করেন। একই সমর্থন প্রদান করেছেন ঢাকার কাকরাইলের তাবলীগ জাময়াতের মাওলানা জুবায়েরসহ অন্যান্য আলেমগণও। এছাড়াও ময়মনসিংহে অরাজনৈতিক তাবলীগ জামায়াতেরও প্রায় ৯৮ভাগ ধর্মপ্রাণ মুসল্লীও  মাওলানা জুবায়ের পন্থী, যা বিভিন্ন কর্মসূচীতে হাজার হাজার ধর্মপ্রাণ মুসল্লীর উপস্থিতিই তা প্রমাণ করে ।

ময়মনসিংহ জেলায় শতকরা প্রায় ৯৮ ভাগ ওলামা-মাশায়েখ, ইমামগণসহ দ্বীনি শিক্ষার্থীরা ও ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের বিরুদ্ধে গুটিকয়েক ইংরেজী শিক্ষিত লোকগণ মাওলানা সা’দ কান্দলভীর বিভিন্ন বিতর্কিত ভ্রান্ত বয়ান করে প্রচার করার জন্য নিজেরাই মার্কাজ মসজিদ থেকে বেরিয়ে প্রশাসনকে বলছে আমাদেরকে ওরা বের করে দিয়েছে। অথচ মাওলানা সা’দ পন্থীরা ময়মনসিংহ পুলিশ লাইন কাশর তিনরাস্তা মোড় মসজিদে মার্কাজ বানিয়ে বিভিন্ন আমল করে যাচ্ছে। ওদের মসজিদে মাও. যুবায়ের পন্থীরা গিয়ে কোনো রকম সমস্যা সৃষ্টি করছে না।

অথচ মাওলানা সা’দ পন্থীরা গুটি কয়েক মুসল্লী  শহরের আকুয়ায় মাও. যুবায়ের পন্থীদের মার্কাজ বাইপাস মসজিদে গিয়ে ইদানিং পুলিশকে দেয়া একটি চিঠির কপি দেখিয়ে বলছে আমরা মাও. যুবায়ের পন্থীদের মার্কাজ মসজিদে ইজতেমা করতে আমাদের অনুমতি দিয়েছে। যা জেলার বিভিন্ন উপজেলাতে প্রচার করে চলেছে। এই খবর শুনে মাও. যুবায়ের পন্থীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়ে, পরে তাবলীগের মুরুব্বীগণ নানা কষ্টে সাধারণ মুসল্লীদের ক্ষোভকে প্রশমিত করতে সমর্থন হন।

উম্মাহর ঐক্যের কথা বিবেচনা করে এবং অরাজনৈতিক দ্বীনি দাওয়াতের ঐতিহ্যবাহী এই ধারাকে শান্তিপূর্ণভাবে পরিচালনার স্বার্থে দ্বীনের ধারক বাহক ওলামায়ে কেরাম সমর্থিত তাবলীগী দ্বীনি কার্যক্রমকে সহায়তা প্রদান এবং বিচ্ছিন্নতাবাদী মাওলানা সা’দ বা এতাআতপন্থী গ্রুপের নানা অপতৎপরতা ও কার্যক্রম বন্ধের নিমিত্তে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য ময়মনসিংহের উলামায়ে কেরাম ও ইমাম-খতীবগণ প্রশাসন জনপ্রতিনিধি ও সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।

দাওয়াত ও তাবলীগের এই মহান কাজে বর্তমানে সকল বিরোধ ও বিশৃঙ্খলার একমাত্র উৎস দিল্লি নিজামুদ্দিন মারকাজ মসজিদের মাওলানা সা’দ কান্দলভির বিভিন্ন বিতর্কিত ও ভ্রান্ত বয়ান, আচার আচরণ গুলো হলো: মাওলানা সা’দ তাঁর বড়দের এবং এ কাজে অতি পুরাতন বুজুর্গ ও তাঁর উস্তাদগণকে উপেক্ষা করে এবং বিনা পরামর্শে একক আমীর হওয়ার দাবী করেছেন । অথচ তাঁর এভাবে আমীর দাবী করাটা কোনক্রমেই শরীয়ত সম্মত নয়। বিভিন্ন বয়ানাতে ও কার্যকলাপে তাবলীগের মূলনীতি লঙ্ঘন, মূলকাজের ধারা পরিবর্তন করণ। বিভিন্ন বিষয়ে কুরআন ও হাদীসের গলদ, মনগড়া ভুল ব্যাখ্যা প্রদান। কোন কোন বয়ানে পবিত্র নবীদের শানে বেয়াদবীমূলক আচরণ প্রকাশ। বেশ কিছু মাসলা-মাসায়েলের ব্যাপারে গ্রহণযোগ্য ফতোয়ার বিপরীতে মূলনীতিহীন মত কায়েম করে জনসাধারণের সামনে জোড়ালোভাবে প্রকাশ। তাবলীগ জামাতের গুরুত্ব বোঝাতে এমনভাবে বয়ান করেন যাতে দ্বীনের বিভিন্ন সহীহ শাখাসমূহ কঠোরভাবে আঘাতপ্রাপ্ত  এবং হেয় প্রতিপন্ন হচ্ছে, ইত্যাদি।

মাওলানা সা’দ কান্দলভি মনগড়া কুরআন-হাদিসের ব্যাখ্যা, লাখ লাখ মানুষের সমাবেশে শরিয়ত পরিপন্থি ভ্রান্ত কথাবার্তা, একাজের পূর্ব বুজুর্গগণের কাজের ধারাকে পরিবর্তন করা, নিজেকে আমীর হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য উগ্রবাদী দল গঠন করা ইত্যাদি কারণে দারুল উলুম দেওবন্দ এবং সারা বিশ্বের সকল ওলামায়ে কেরাম প্রতিবাদ করে আসছেন। দারুল উলুম দেওবন্দসহ সারা পৃথিবীর ওলামায়ে কেরাম মনে করেন, লাখ লাখ মানুষের সমাবেশে তার এই ভ্রান্ত কথাবার্তা মুহুর্তের মধ্যে সারা দুনিয়াতে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে।

ওলামায়ে কেরামরা তাঁকে বুঝানোর এবং এর থেকে বিরত থাকার জন্য দীর্ঘ ১৫ (পনের) বৎসর যাবৎ  বিভিন্ন সময়ে এবং বিভিন্ন উপায়ে তাঁকে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন কিন্তু সকল প্রচেষ্টাই নিস্ফল হয়েছে। দারুল উলুম দেওবন্দের ওলামায়ে কেরাম তাঁদের ফাতওয়াতে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন যে, মাওলানা সা’দ সাহেব মনে হয় তাবলীগের নামে নতুন কোন জামাত গঠন করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন যেমন জামাতে ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা মওদুদী সাহেব প্রথম দিকে সুন্দর সুন্দর কথা বলার কারণে ওলামায়ে কেরাম সমর্থন করেছিলেন কিন্তু পরবর্তীতে তার কুরআন হাদিসের মনগড়া অপব্যাখ্যার কারণে ওলামায়ে কেরাম সরে এসেছেন ও আজ পর্যন্ত প্রতিবাদ করে আসছেন এবং তার দলকে একটি পথভ্রষ্ট দল হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

তাবলীগী জামাত মূলত আত্মশুদ্ধি মূলক ও সংস্কারমূলক, সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক একটি সহীহ দ্বীনি কার্যক্রম যা হক পন্থি আলেম ওলামায়ে কেরামের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয়ে আসছে। কিন্তু, মাওলানা সা’দ পন্থী বা এতাআতপন্থী নামে পরিচিত এই বিচ্ছিন্ন গ্রুপটির সাথে মূলধারার আলেম উলামাদের সমর্থন নেই। নেই কোনো অংশগ্রহণ। এই বিচ্ছিন্নতাবাদী গ্রুপটি, পৃথক মাওলানা সা’দ পন্থী বা এতাআতপন্থী নামে মারকায স্থাপন, আলেমদের নামে মিথ্যা অপপ্রচার করে সমাজে বিশৃংখলা সৃষ্টির অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। সম্মিলিত উলামায়ে কেরামের শান্তিপূর্ণ এই অবস্থানের বিরুদ্ধে বিচ্ছিন্নতাবাদী গ্রুপটির নানামুখী অপতৎপরতা সমাজে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি এবং ময়মনসিংহের তাবলীগের শান্তিপূর্ণ এই কার্যক্রমকে হুমকীর সম্মুখীন করেছে।

বলাবাহুল্য, ফেৎনার সৃষ্টি তখনই হয়, যখন দ্বীন শরীয়তের উপর ব্যক্তি বিশেষকে প্রাধান্য দেওয়া হয়, হক সুষ্পষ্ট হওয়ার পরও না-হকের উপর পরিচালিত ব্যক্তিকে অনুসরণ করা হয়। তাই, না-হকের সাথে ইসলামের কোনো আপোষ হতে পারে না, না-হকের সাথে মুসলিম উম্মাহর ঐক্য কখনোই সম্ভব নয়। মাওলানা সা’দ পন্থী বা এতাআত পন্থী নামে পরিচিত এই বিচ্ছিন্ন গ্রুপটি না-হক পথে পরিচালিত, যার ব্যাপারে ময়মনসিংহের সকল উলামায়ে কেরাম তথা বাংলাদেশের মূলধারার সকল আলেম-ওলামা একমত। শোনা যাচ্ছে, এই বিচ্ছিন্ন গ্রুপটি ময়মনসিংহ তাবলীগ মারকাজে অনুপ্রবেশ করে শান্তিপূর্ণ মারকাজের পরিবেশকে স্থায়ীভাবে অস্থিতিশীল ও উগ্রতার পরিবেশ তৈরির অপতৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। যা কোনোক্রমেই বাস্তবায়িত করার সুযোগ দেওয়া সমীচিন হবে না।





আরও পড়ুন



১. প্রধান উপদেষ্টা ঃ এড. সাদির হোসেন (হাইকোর্ট আইনজীবি)
২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close