* বাজেয়াপ্ত গাঁজা পোড়াল পুলিশ, নেশায় বুঁদ এলাকাবাসী            * কুমারিত্ব প্রমানে বাজারে এলো ‘আই ভার্জিন পিল’            * পেঁয়াজ বর্জনের ঘোষণা দিয়ে শপথ!           * ৩ ডাক্তার ও মেডিকেল ছাত্রীর কথোপকথন           *  ২৩ মাস ধরে গর্ভবতী!            * জান্নাত ও জাহান্নামের পরিচয় এবং সুখ-শাস্তির বিবরণ           *  জিমে গিয়ে মালিকের হাতে ধর্ষণের শিকার তরুণী            * শ্যালকের স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার           * ইতিহাসের পাতায় অধিনায়ক কোহলি            * গফরগাঁওয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট মাকে বাঁচাতে গিয়ে মেয়ের মৃত্যু           * এবার বিয়েতে পেঁয়াজ উপহার           * পেঁয়াজ খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী           *  নকল সরবরাহ করার দায়ে ৫ শিক্ষকের কারাদণ্ড।           *  স্মৃতিতে সিডর নতুন করে বাঁচার নিরন্তন চেষ্টা           * শেখ রাসেলের ৫৫তম জন্মদিন নেত্রকোণায় অনুষ্ঠিত           *  ছাত্রলীগের মারধরে আহত রাবি শিক্ষার্থী ; ৩দফা দাবিতে উত্তাল ক্যাম্পাস !           * দিনাজপুরে ফার্নিচার ব্যবসায়ী থেকে কোটিপতি           * ময়মনসিংহ জেলা মটরযান কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল সালাম সাঃ সম্পাদক চানু নির্বাচিত            * কলমাকান্দায় অপ-প্রচারের বিরুদ্ধে মানববন্ধন           *  স্কুল ছাত্রী অপহরণের পর ধর্ষণ, ইউপি সদস্য আটক          
* চারদিনের সফরে আজ আমিরাত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী           * কুড়িগ্রামে কোটিপতি ডাক্তার অমিত কুমার বসুর চিকিৎসা বাণিজ্য            *  বাড়ছে লিড, বাড়ছে বাংলাদেশের ভয়           

আয়লানের মতো মানবতাকে নাড়া দেয়া আরেক ছবি আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বুধবার, জুন ২৬, ২০১৯
আয়লানের মতো মানবতাকে নাড়া দেয়া আরেক ছবি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আয়লান কুর্দির কথা নিশ্চয় সবার মনে আছে। তুরস্কের উপকূলে পাঁচ বছর বয়সী ওই শিশুর মরদেহ পড়ে থাকার ছবি বিশ্বজুড়ে তীব্র আলোড়ন তুলেছিল। সেই আয়নালের মতোই আরেকটি ছবি এবার নাড়া দিয়ে গেল বিশ্ব মানবতাকে।

এবারের ঘটনা এলসালভেদরের নাগরিক এক বাবা ও তার মেয়ের, যারা মেক্সিকোর সীমান্ত হয়ে অভিবাসনের প্রত্যাশায় অভিবাসনবিরোধী ট্রাম্পের দেশ আমেরিকায় ঢুকতে যাচ্ছিলেন। কিন্তু খরস্রোতা নদীতে ডুবে করুণ মৃত্যু হয় তাদের। আয়লান কুর্দির মতো আবারও বাবা-মেয়ের ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্ব মিডিয়ায়।

ছবিতে দেখা যায়, সীমান্তে নদী তীরের একেবারে কাছাকাছি উপুড় হয়ে পড়ে থাকা দুটি দেহ। নিথর, নিস্পন্দ। আর একটুক্ষণ দম থাকলে হয়তো তীরে উঠে মেয়ের গা, হাত-পা মুছে দিতেন বাবা। হয়তো দুই বছরের মেয়ে ভ্যালেরিয়াকে বুকে জড়িয়ে দম নিতেন প্রাণভরে। কিন্তু সেই সৌভাগ্য হয়নি বাবা অস্কার মার্টিনেজ রামিরেজের। মেয়ের সঙ্গেই নদীতে ডুবে মরতে হয়েছে তাকে। অন্তিম মুহূর্তেও প্রিয় বাবার সঙ্গ ছাড়েনি মেয়ে, বাবার কাঁধে হাত রেখেই মৃত্যুকে আলিঙ্গন করেছে ছোট্ট মেয়ে ভ্যালেরিয়া।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, এল সালভাদরের নাগরিক অস্কার (২৫)। দুই বছর বয়সী মেয়ে ভ্যালেরিয়া ও ২১ বছরের স্ত্রীকে নিয়ে গত রবিবার স্থানীয় সময় বিকালে মেক্সিকো থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি দিতে চেয়েছিলেন তিনি। প্রত্যাশা ছিল যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী হওয়ার। অবৈধ ও বিপজ্জনক পথ পেরিয়ে মার্কিন মুলুকে পা দেওয়া আর হলো না তার। রিও গ্রান্দে নদী পার হতে গিয়ে নদীতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে অস্কার ও তার মেয়ের। গত সোমবার তীরের কাছাকাছি বাবা-মেয়ের মরদেহ ভেসে ওঠে। তবে প্রাণে বেঁচে গেছেন অস্কারের স্ত্রী।

যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছাতে অভিবাসন প্রত্যাশীদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কেমন বিপদজনক পথ পাড়ি দিতে হয় হৃদয়বিদারক এই ছবিটিই তা জানান দিচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্ত সংকট এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিষ্ঠুর অভিবাসন নীতির জ্বলন্ত প্রমাণই যেন এই ছবিটি!

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, অস্কার মার্টিনেজ রামিরেজ মেয়েকে পিঠে নিয়ে নদী পার হতে চেয়েছিলেন। গায়ের টি-শার্টের ভেতরে ঢুকিয়ে নিয়েছিলেন ছোট্ট মেয়েটিকে। মেয়েকে নিরাপদে রাখতে নিজের সাধ্য অনুযায়ী কিছুই করা বাকি রাখেননি অস্কার। খরস্রোতা রিও গ্রান্দে পাড়ি দিতে হতদরিদ্র অস্কার আর কীই বা করতে পারতেন! তাও রক্ষে হয়নি। স্রোতের টানে পানিতে ডুবে যান অস্কার। স্ত্রীর চোখের সামনেই ভেসে যায় স্বামী-সন্তান। স্ত্রী শেষতক তীরে পৌঁছেছিলেন, তবে তখন তার সম্বল শুধুই আহাজারি।

                                             সাগরতীরে পড়ে আছে সিরিয়ান বংশোদ্ভূত আয়লান কুর্দি

মেক্সিকোর মাতামোরোসের তামালিপাস রাজ্যের নদীর ধারে গত সোমবার মিলেছে অস্কার ও তাঁর ছোট্ট মেয়ের মৃতদেহ। সিএনএন বলছে, মেক্সিকোর এক আলোকচিত্রী সর্বপ্রথম মর্মস্পর্শী এ ছবিটি ক্যামেরাবন্দি করেন। বাবা-মেয়ের মৃতদেহের চারপাশে ছড়িয়ে ছিল কিছু পানীয়ের ক্যান।

বাবা-মেয়ের মৃতদেহের এই ছবি ইন্টারনেটের দুনিয়ায় ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে, বৈশ্বিক গণমাধ্যমগুলো গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশ করেছে প্রতিবেদন। এই ঘটনায় এল সালভাদর ও মেক্সিকোতে সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। অভিবাসীদের প্রতি এই দুই দেশের সরকারের বর্তমান দৃষ্টিভঙ্গিই ক্ষোভ সৃষ্টির মূল কারণ।

যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমানোর জন্য গত দুই মাস ধরে পরিবারটি মাতামোরোসের একটি শরণার্থী শিবিরে অপেক্ষা করছিল।

তীব্র গরমের মধ্যে দীর্ঘ অপেক্ষার পরও বর্ডার পার হতে না পারায় তারা সিদ্ধান্ত নেন, নদী পার হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করবেন।

আলবার্টোর স্ত্রী জানিয়েছেন, তারা মেক্সিকান সরকারের কাছ থেকে মানবিক ভিসা পেয়েছিলেন।  

এ ঘটনায় এল সালভাদরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলেকজান্দ্রা হিল বলেছেন, দেশটির অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলার চেষ্টা করছে তাদের সরকার। এজন্য সরকারের পাশে থাকার জন্য দেশবাসীদের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। হিল বলেন, ‘আমাদের দেশ আবার শোকে আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে। আমি আপনাদের কাছে প্রার্থনা করছি-নিজেদের জীবনকে ঝুঁকিতে ফেলবেন না। জীবন আর সবকিছুর চেয়ে অধিক মূল্যবান।’

ওদিকে মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট আন্দ্রে ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাডোর বলেছেন, তাঁর সরকার অভিবাসনপ্রত্যাশীদের অধিকার রক্ষায় সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে।

আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, অবৈধ অভিবাসনপ্রত্যাশীদের অধিকার রক্ষা করতেই হবে। তবে অভিযোগ আছে, উত্তরাঞ্চলের সীমান্ত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে অনুপ্রবেশের ক্ষেত্রে মেক্সিকো তেমন বাধা দেয় না। এ নিয়ে মেক্সিকো ও যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কে টানাপোড়েনও আছে।




আরও পড়ুন



২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close