* পেয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য নিয়ন্ত্রণে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন উদ্যোগে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা            *  একাধিক শারীরিক সম্পর্কে ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ে            * গাঁজার বস্তার ওপর ঘুমিয়ে গেলো পাচারকারী           * বস্তিতে বড় হয়েও এখন হাতে ২২ লাখ টাকার ঘড়ি!           * সর্দি-কাশির সঙ্গে লড়াই করে রসুন চা           * পার্টটাইম ইয়াবা ব্যবসায়ী!           * পেঁয়াজের ঝাঁঝ না কাটতেই ‘লবণের কেজি ১০০ টাকা’ গুজব!            * সন্তান জন্মদানের এক মিনিট আগেও জানতেন না তিনি গর্ভবতী!            * 'উন্নয়নের পুণ্যে প্রধানমন্ত্রীর বেহেস্ত যাওয়ার হক আছে'           * সৃজিত-মিথিলার বিয়ে           * শাহাদাত আজীবনও নিষিদ্ধ হতে পারেন           *  বাস ধর্মঘটে যশোরে যাত্রীদের ভরসা ট্রেন            * কারখানায় বিমান হামলায় ৫ বাংলাদেশি নিহত           *  পেঁয়াজ নিয়ে মঙ্গলবার ঢাকায় আসছে বিমান            *  যে কারণে তড়িঘড়ি বিয়ে করছেন মিয়া খলিফা           * ঠাকুরগাঁও‌য়ে ইট প্রস্তুতকারী মালিক সমিতির মতবিনিময় ও বার্ষিক সভা।           * পূর্বধলায় বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত           * মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন সরকারের বর্নাঢ্য রাজনৈতিক জীবন           * বুঝিয়ে দাও বাংলাদেশ ছোট দল না: হোয়াটমোর           * পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ময়মনসিংহে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ           
*  গুরবাজ ঝড়ে লণ্ডভণ্ড উইন্ডিজ            *  উইঘুর মুসলিম নিপীড়নের আলামত চীনের ফাঁস হওয়া নথিতে            * স্ত্রীসহ ৩ সন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা           

মধ্যপ্রাচ্যে বসে পরিকল্পনা, টার্গেট ঢাকার রাজনৈতিক নেতা!

রিপোর্ট | শনিবার, জুলাই ২৭, ২০১৯
মধ্যপ্রাচ্যে বসে পরিকল্পনা, টার্গেট ঢাকার রাজনৈতিক নেতা!

দীর্ঘদিন ধরে মধ্যপ্রাচ্যে অবস্থান করছে বাংলাদেশি এক শীর্ষ সন্ত্রাসী। সেখান থেকেই সে ঢাকায় চাঁদাবাজি আর টেন্ডারবাজির কলকাঠি নাড়ে। রাজধানীর পল্টন-মতিঝিল এলাকায় রয়েছে তার কয়েক ডজন ক্যাডার। তবে এই সন্ত্রাসীর আধিপত্যে বাধা হয়ে দাঁড়ান যুবলীগ দক্ষিণের এক শীর্ষ নেতা। গণপূর্তের ঠিকাদারি নিয়ন্ত্রণ করা এই

যুবলীগ নেতাকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল সন্ত্রাসীরা। এজন্য অত্যাধুনিক একে-২২ অটোমেটিক রাইফেলও সংগ্রহ করা হয়েছিল। তবে গত ২ মাস ধরে সন্ত্রাসী গ্রুপের সদস্যদের অনুসরণ করে তাদের কাছ থেকে শুক্রবার (২৬ শুক্রবার) সেই একে-২২ রাইফেলসহ ৬টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে ৩ জনকে।
গোয়েন্দা সূত্র জানায়, দুবাইয়ে অবস্থান করা শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের সঙ্গে চাঁদাবাজি ও টেন্ডারবাজির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে যুবলীগ দক্ষিণের শীর্ষ নেতা ও এক ঠিকাদারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জেরে জিসান তার বাহিনীর সদস্যদের দিয়ে ওই ঠিকাদারকে হত্যার পরিকল্পনা করে। এজন্য জিসানের নির্দেশনা অনুযায়ী একে-২২ রাইফেলসহ বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র সংগ্রহ করা হয়। ঈদের আগেই ওই ঠিকাদারকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল সন্ত্রাসীরা।
ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার শাহিদুর রহমান রিপন বলেন, গ্রেফতার ব্যক্তিরা পেশাদার সন্ত্রাসী। তারা বিদেশে অবস্থান করা একজন শীর্ষ সন্ত্রাসীর হয়ে কাজ করে। এই গ্রুপের লিডার অভিযানের আগে পালিয়ে গেছে। তাকেসহ আরও কয়েকজন সন্ত্রাসীকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে।
গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, আসছে ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে আন্ডারওয়ার্ল্ড আবারও সরগরম হয়ে উঠেছে। ঈদকে কেন্দ্র করে আধিপত্য বিস্তার করে চাঁদাবাজি ও গরুর হাটের ইজারা নিয়ন্ত্রণের জন্য পেশিশক্তির মহড়া দেওয়ার জন্য অস্ত্র সংগ্রহ করছে সন্ত্রাসীরা। একইসঙ্গে হাত বদল হয়ে অবৈধ অস্ত্র এক এলাকা থেকে আরেক এলাকায় ভাড়াতেও দেওয়া হচ্ছে।
গত শুক্রবার (২৬ জুলাই) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজাধানীর খিলগাঁও থানাধীন ২৬৯এক, সিপাহীবাগ (চারতলা গলি, বায়তুল হুদা মসজিদ সংলগ্ন) ফাইভ স্টার নিবাসের সামনে থেকে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল প্রথমে মোহাম্মদ ফয়সাল নামে একজনকে গ্রেফতার করে। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ফাইভ স্টার নিবাসের আটতলার বাম পাশের ফ্ল্যাট থেকে দুই ভাইকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলো জিয়াউল আবেদীন ওরফে জুয়েল ও জাহেদ আল আবেদীন ওরফে রুবেল। ৮-৯ বছর আগে সন্ত্রাসী কার্যক্রমের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে জুয়েল ও রুবেলের আপন ভাই লিয়ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়।
পুলিশ জানায়, শনিবার (২৭ জুলাই) এই ৩ জনকে আদালতে তোলা হয়েছিল। আদালত তাদের ৪ দিন করে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন।
ডিবির কর্মকর্তারা জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার ব্যক্তিরা জানায়, এস এম ওমর ফারুক ওরফে ললাট নামে এক সন্ত্রাসী অস্ত্রগুলো তাদের কাছে রেখেছিল। ললাট শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের অন্যতম প্রধান ক্যাডার হিসেবে পরিচিত। জুয়েল ও রুবেল আগে দুবাই ছিল। তারা দুবাইয়ে জিসানের একটি হোটেলে কাজ করার পাশাপাশি তার সন্ত্রাসী কার্যক্রমের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল।
গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, অভিযানের আগেই ললাটসহ আরও কয়েকজন পালিয়ে গেছে। পলাতক ললাট নিজেও সম্প্রতি দুবাই গিয়ে শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এসেছে। এই গ্রুপের আরেক সদস্য পলাতক আনিচ একসময় পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে যুক্ত ছিল। এখন সে জিসানের ক্যাডার হিসেবে কাজ করে। এছাড়া গাবতলী মাজার রোড এলাকার মিঠু, মামুন, মঈন ও অনিক নামে কয়েকজনের নাম-ঠিকানা পাওয়া গেছে। এরা সবাই শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের হয়ে ললাটের নেতৃত্বে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতো।
ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশানার (ডিসি-পূর্ব) ইলিয়াস শরীফ বলেন, ‘অভিযানে ৩ জনকে গ্রেফতার করা হলেও এই সন্ত্রাসী গ্রুপের স্থানীয় নেতা ফারুক, ললাটসহ আরও অন্তত ৬-৭ জন পলাতক রয়েছে। আমরা তাদের নাম পরিচয় সংগ্রহ করেছি। তাদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে।’
এদিকে স্থানীয় পেশাদার অপরাধীদের কাছ থেকে একে-২২ রাইফেল আসায় রীতিমতো বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা। তাদের ধারণা ছিল, স্থানীয় সন্ত্রাসীদের হাতে স্মল আর্মস বা ছোট অস্ত্র রয়েছে। কিন্তু অভিযানে গিয়ে একে-২২-এর মতো অটোমেটিক রাইফেল পাওয়া যাবে তারা তা কল্পনাও করেননি। পার্বত্য অঞ্চল দিয়ে দেশের ভেতরে একে-২২ রাইফেল ঢুকছে বলে জানান ওই কর্মকর্তা। জব্দ করা আগ্নেয়াস্ত্রগুলো শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের নির্দেশে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা এসে দিয়ে যায় বলে জানিয়েছে গ্রেফতার ব্যক্তিরা।
সম্প্রতি আরও একাধিক একে-২২ অটোমেটিক রাইফেল উদ্ধারকারী এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, দেশে বর্তমানে একটি একে-২২ রাইফেল ৬ থেকে ৭ লাখ টাকায় বেচাকেনা হয়। এসব রাইফেল থেকে একসঙ্গে ৩০ রাউন্ড গুলি বের হয়। চীন ও রাশিয়ায় তৈরি এসব অস্ত্র মিয়ানমার সীমান্ত ও পার্বত্য এলাকার ভারতীয় সীমান্ত হয়ে বাংলাদেশে ঢুকছে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।





আরও পড়ুন



২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close