*  ময়মনসিংহে এমপিদের নাম ভাঙিয়ে দুর্নীতি অনিয়ম,সন্ত্রাস           * প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফিফা সভাপতির সাক্ষাৎ           * বিচ্ছেদের সুর প্রিয়াঙ্কা-নিকের           * হানিফ ফ্লাইওভারে প্রাণ গেল বাইক চালকের           * ইলিশ পরিবহন করায় ৩ পুলিশ বরখাস্ত           * হঠাৎ তামিমকে নিয়ে দুঃসংবাদ            * ভারত-পাকিস্তানের মাঝে গোলাগুলি, নিহত ৪           * হলে হলে রেইড দেয়া হবে: জাবি উপাচার্য           * রোববার গণভবনে যুবলীগের বৈঠক, ফারুক-শাওনকে না রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর           * কুড়িয়ে পাওয়া ককটেল বিস্ফোরণে ২ শিশু আহত            * ১০০ বলের খেলায় সাকিব-তামিমের পারিশ্রমিক কত?           * সম্রাটকে র‍্যাবে হস্তান্তর রিমান্ডের প্রথম দিনেই           * ৫ হাজার ৫০০ আদিবাসীর ইসলাম গ্রহণ            * প্রেমিকার সাহায্যে স্ত্রীকে খুন, রান্নাঘরেই 'কবর' দিলেন স্বামী!            * বিএনপি সরকারের রেল বন্ধের সিদ্ধান্ত ছিল           *  দিন দুপুরে তরুণকে অর্ধনগ্ন করে পেটাল ২ তরুণী           * মৌসুমী লাঞ্ছিতের ঘটনায় লজ্জিত মিশা ও তার পরিষদ           *  বিয়ের রাতে লাল শাড়ি পরতে বলা হয় যে কারণে           * বিয়ের অনুমতি পেতে হাইকোর্টে ৮৮ বছরের বৃদ্ধ           * বানার সেতুর শুভ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা           
* হানিফ ফ্লাইওভারে প্রাণ গেল বাইক চালকের           * ইলিশ পরিবহন করায় ৩ পুলিশ বরখাস্ত           * হঠাৎ তামিমকে নিয়ে দুঃসংবাদ           

ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে রাব্বানীর ফোনালাপে তোলপাড়

নিজস্ব প্রতিবেদক | রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৯

ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে রাব্বানীর ফোনালাপে তোলপাড়
চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী শনিবার রাতে পদচ্যুত হয়েছেন। তবে বিতর্ক যেন তাদের পিছু ছাড়ছে না। এবার জাহাঙ্গীরনগরের অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্প থেকে পাওয়া টাকার ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে একটি ফোনালাপ তোলপাড় সৃষ্টি করেছে।

ফোনালাপে শোনা যায়, গোলাম রাব্বানী প্রথমে ছাত্রলীগ নেতা হামজা রহমান অন্তরের সঙ্গে কথা বলেন। পরে অন্তরের পাশে থাকা জাবি ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসাইনের সঙ্গে কথা বলেন। সেখানে টাকার ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে বিভিন্ন কথোপকথন হয়। সেই ফোনালাপটি হুবহু তুলে ধরা হলো:

গোলাম রাব্বানী: হ্যাঁ, অন্তর, কোথায় আছো, টাকা নেওয়ার সময় ছিল কে কে?

হামজা রহমান অন্তর: জুয়েল ভাই (সভাপতি), চঞ্চল ভাই (সাধারণ সম্পাদক) ও সাদ্দাম ভাই (যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক) ছিল আরকি।

গোলাম রাব্বানী: টাকাটা দিছে কোথায়?

হামজা রহমান অন্তর: ভাই, ম্যামের বাসায়, সাদ্দাম ভাইয়ের সাথে একটু কথা বলেন। আমার পাশেই আছে।

গোলাম রাব্বানী: আচ্ছা দাও দাও!

সাদ্দাম হোসাইন: ভাই স্লামুআলাইকুম।

গোলাম রাব্বানী: ওয়াইস সালাম, সাদ্দাম কী খবর ভাই।

সাদ্দাম হোসাইন: ভাই খবর তো আপনাকে জানাইছি ভাই, খবর তো ভাল না, বেশি একটা। আমি আপনাকে বলছিলাম না ভাই- আমি, তাজ, জুয়েল চঞ্চল আমরা চারজন ছিলাম ওই মিটিংয়ের সময়। আজকে কিছুক্ষণ আগে জাহাঙ্গীরনগর ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে প্রেস রিলিজ দিছে আপনাদের বিপক্ষে।

গোলাম রাব্বানী: সেটা তো দেখলাম।

সাদ্দাম হোসাইন: বিষয়টা হচ্ছে ভাই, বামের সাথে সেটিংয়ে গেছে। বৈঠক হইছে বামের সাথে। তারপর বৈঠকে বিচার বিভাগীয় তদন্তবাদে বাকিগুলা বামের সাথে মেনে নিছে। আর বিচার বিভাগীয় তদন্তের ব্যাপারে মানবে কি না আগামী বুধবার পর্যন্ত ভাই। তিনদিন সময় দিছে।

গোলাম রাব্বানী: আন্দোলন নিয়া?

সাদ্দাম হোসাইন: হ্যাঁ হ্যাঁ হ্যাঁ।

গোলাম রাব্বানী: ম্যাম তো বলছে যে আন্দোলনেও নাকি আমরা করাচ্ছি। সামথিং লাইক ওরকম কিছু। আন্দোলন কারা করতেছে ওটাও তো আমরা জানি না। আমাদের এটা তো আমরা জানি না।

সাদ্দাম হোসাইন : ভাই বিষয়টা হচ্ছে উনি ছাত্রলীগের উপর দিয়ে সবকিছু করে নিজের ফ্যামিলিকে সেইভ করতে চাচ্ছে আরকি। উনি বাঁচতে চাচ্ছেন। আর প্রধানমন্ত্রীর রেফারেন্স দিয়ে অনেকগুলা কথা বলছে আপনার বিপক্ষে, মানে সেন্ট্রাল ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে। এবং যুগান্তরে ভাই, নিউজটা কি দেখছেন...

গোলাম রাব্বানী: ওটা দেখছি, আচ্ছা টাকা যখন দিছিলো তখন তুই ছিলি না!

সাদ্দাম হোসাইন: ছিলাম ভাই আমি আর তাজ ছিলাম। এখন আপনি ভাই বলেন। কী করতে হবে আমরা করতেছি। সমস্যা নাই।

গোলাম রব্বানী: তুই আর কে?

সাদ্দাম হোসাইন: আমি আর তাজ, আমার বন্ধু ভাই।

গোলাম রাব্বানী: অহ তাজ তাজ, সহ-সভাপতি! তুই হলি জয়েন্ট সেক্রেটারি। টাকাটা কীভাবে! ম্যাডাম দিছিলো নাকি অন্য কেউ ছিলো?

সাদ্দাম হোসাইন: ওইখানে আর কেউ ছিলো না। ব্যাপারটা হচ্ছে ম্যাডাম আমাদের সাথে ডিলিংটা করছে। টাকাটা আমাদের হলে পৌঁছায় দিছে।

গোলাম রাব্বানী: ওহ হলে পৌঁছাই দিছে টাকা!

সাদ্দাম হোসাইন: হ্যাঁ হ্যাঁ। কথা তো হইছেই। আমি আর জুয়েলসহ তিনজনের সাথেই কথা হইছে।

গোলাম রাব্বানী: কয় টাকা দিছে?

সাদ্দাম হোসাইন: আমাদেরকে বলছে হচ্ছে এক কোটি। আমরা বাকিটা জানি না। জুয়েল-চঞ্চলের সাথে আলাদা ডিল হইতে পারে। বাট আমাদের সাথে বসে মীমাংসা...

গোলাম রাব্বানী: আমি শুনলাম যে এক কোটি ৬০ লাখ...

সাদ্দাম হোসাইন: ব্যাপারটা হচ্ছে ভাই ৬০ এর টা আমরা জানি না। ওখানে বসে ভাগ করে দিছে ৫০ হচ্ছে জুয়েলের, ২৫ আমাদের আর ২৫ চঞ্চলের।

গোলাম রাব্বানী: ওহ ম্যাডাম ওভাবে ভাগ করে দিছে! জুয়েল ভাল ছেলে ঐ জন্য ৫০ আর চঞ্চল ক্যাম্পাসের বাইরে থাকে ঐ জন্য ২৫...

সাদ্দাম হোসাইন: চঞ্চল তো ভাই ওই ঝামেলায় আমাদের বাদ দিতে পারে নাই।

গোলাম রাব্বানী: ও সেক্রেটারির টাকাই তোদেরকে দিছে।

সাদ্দাম হোসাইন: আমরা বলছি আমাদের ২৫% দিতে হবে। চঞ্চলকে ২৫% দিতে হবে। আমাদেরকে না জানাইয়া ওদের আলাদ ৬০ লাখ টাকা দিছে। এটা হতে পারে। আমরা ওটা জানি না। আমরা এক কোটির হিসাব জানি।

গোলাম রাব্বানী: কিন্তু তোমার ম্যাডাম যে এখানে আমাদের নাম জড়াইলো, আমার তো কোন আইডিয়াই নাই।

সাদ্দাম হোসাইন: ভাই উনি খুব নোংরামি করতেছে ভাই। আপনারা ভাই সিদ্ধান্ত নেন। আমাদের কি করা লাগবে আমরা করতেছি।

গোলাম রাব্বানী: তোমাদের কিছু করা লাগবে না। তোমরা সাইলেন্ট থাকো। যেহেতু আপার কানে দিয়েছে, আমিও বুঝতেছি সে নিজে সেফ হওয়ার জন্য নিজের ফ্যামিলিকে সেফ করার জন্য। আরেকটি জিনিস, এই ৬টা কাজ ডিল করছে কে বেসিক্যালি?

সাদ্দাম হোসাইন: তার ছেলে, মূলত হচ্ছে তার ছেলে, তার পিএস সানোয়ার ভাই আর হচ্ছে পিডি, আর হচ্ছে তার হাজবেন্ড। এই হচ্ছে চারজন।

গোলাম রাব্বানী: স্বামী, ছেলে, পিএস সানোয়ার ও পিডি নাসির? আগে থেকে ৬টা কোম্পানি রেডি করে রাখছে না!

সাদ্দাম হোসাইন: শুরু থেকেই তারা সবকিছু করছে ভাই। ট্যাকনিকাল কমিটিতে ওরা ছিল।

গোলাম রাব্বানী: ট্যাকনিকাল কমিটিতে ওরা ছিল! না না ওরা তো থাকতে পারে না। এটার নিয়ম নেই।

সাদ্দাম হোসাইন: কথা হলো উনিতো সবাইকে ফেরত টেরত পাঠালো না! ছিনাই নিচ্ছিলো। তখন আমরা বললাম সবাইকে ড্রপ করাতে দিতে হবে। তখন সবাইকে ড্রপ করাতে দিলো। কিন্তু কাজ হচ্ছে... হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল ওটা নাটক ছিল। শিডিউল বিক্রির টাইমে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ইচ্ছে করে। যেন কেউ যোগাযোগ করতে না পারে।

গোলাম রাব্বানী: ওহ আচ্ছা আচ্ছা। সিডিউল বিক্রির টাইমে সে হাসপাতালে ভর্তি হইছে ইচ্ছা করে?

সাদ্দাম হোসাইন: হ্যাঁ ভাই।

গোলাম রাব্বানী: তুই জানলি কেমনে এইটা?

সাদ্দাম হোসাইন: শিডিউল বিক্রির সময় উনি হাসপাতালে ছিলেন। শিডিউল বিক্রি শেষ উনি...

গোলাম রাব্বানী: আমি তোর সাথে কথা বলবো নি প্রয়োজন হলে। ম্যাম আমাদের সম্পর্কে যা মিথ্যাচার করলো!

সাদ্দাম হোসাইন: আমি ফোন দিলে ভাই...

গোলাম রাব্বানী: আচ্ছা। থ্যাংকিউ থ্যাংকিউ...

জাবি ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসাইন ফোনকলটি যে তাদের সে কথা স্বীকার করেন। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘সেন্ট্রাল ছাত্রলীগের সেক্রেটারিকে নেত্রী বানিয়েছেন। তার কথা শোনা আমাদের দায়িত্ব ছিল। অনেক কথাই তার সঙ্গে হয়েছে। আগে পরে অনেক কথাই হয়েছে।’




আরও পড়ুন



২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close