* ‘মানুষের জন্য যদি হিরো থেকে জিরো হতে হয় আমি তাই হবো’            * ‘আমিও মুসলিম হয়ে যাব’            * হেরা পাহাড়, যেখানে ধ্যানমগ্ন থাকতেন প্রিয় নবী (সাঃ)            * বঙ্গবন্ধু নেই তাই শেখ হাসিনার কাছে বিচার দিলেন সুমন            * ‘মাইকিং’ করেও বঙ্গবন্ধু বিপিএলে দর্শক টানতে পারেনি বিসিবি            * যে ৩ আমলে মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গে জান্নাত           * ঘুষ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সজাগ থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর           * জেলের জালে ধরা পড়ল সাড়ে ২৫ কেজির বাঘাইড়            * "আমরা মুক্ত" মোঃ আনসার উদ্দিন ভূঞা পারভেজ           * মঠবাড়িয়ায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে মারধর: আদালতে মামলা           * সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিক মুন্নার বাড়িতে আলাউদ্দিন মেম্বারের হামলা,উদ্ধার করলো পুলিশ…            * ময়মনসিংহ বিভাগে এই প্রথম ব্যতিক্রমী বইমেলা - ইকরামুল হক টিটু           * কপোতাক্ষ ট্রেনের বগিতে দু’দফা পাথর নিক্ষেপ           * কেরানীগঞ্জে দগ্ধদের চিকিৎসার ব্যয় বহন করবে সরকার           * এশিয়ার সেরা আবেদনময়ী আলিয়া ভাট           *  চট্টগ্রামকে উড়িয়ে দিলো খুলনা চট্টগ্রামকে উড়িয়ে দিলো খুলনা            * আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে আলোচনায় জয়-পুতুল           * কারফিউ ভেঙে আসামে বিক্ষোভ, গুলিতে নিহত ৩           *  ২০ হাজার মার্কিন ডলারসহ নারী পাসপোর্ট যাত্রী আটক           * প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন এমপি কর্তৃক কুড়িগ্রাম আনসার ও ভিডিপি অফিস পরিদর্শন          
* থার্টিফার্স্ট নাইটে উন্মুক্ত স্থানে গান-বাজনা নয়           * খালেদার মামলায় সরকারের কিছু করার নেই: কাদের           * নাইজারে সেনা ক্যাম্পে জঙ্গি হামলায় নিহত ৭১          

নিজের মুক্তির জন্য আন্দোলনে রাজি নয় খালেদা

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | শনিবার, নভেম্বর ১৬, ২০১৯
নিজের মুক্তির জন্য আন্দোলনে রাজি নয় খালেদা

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে পাঠানো হয় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা থাকায় সবগুলোতে জামিন না হওয়ায় গত ২০ মাসেও তিনি কারামুক্ত হতে পারেননি। এদিকে বিএনপি নেতারা মনে করেন, আইনি লড়াই করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা সম্ভব নয়। এর জন্য দরকার রাজপথে জোরদার আন্দোলন। তবে এ ধরনের আন্দোলনে সম্মতি নেই বিএনপি চেয়ারপারসনের।

জানা গেছে, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া করাগারে যাওয়ার সেই প্রথম থেকেই নিজের মুক্তির আন্দোলনের বিপক্ষে কথা বলছেন।দলের শীর্ষ নেতাদের পাশাপাশি তৃণমূলের পক্ষ থেকে ক্রমাগত কর্মসূচির চাপ থাকলেও রাজপথের আন্দোলন-সংগ্রামের বিরুদ্ধে এখনও তিনি তার অবস্থানে অনড়। এছাড়া শিগগিরই তার এই মনোভাব পরিবর্তনের কোনো সম্ভাবনাও নেই। পরিবারের সদস্যদের মাধ্যমে নিজের এই অবস্থানের কথা তিনি নিয়মিত পৌঁছেও দিচ্ছেন দলের নীতিনির্ধারকদের কাছে। দলের হাইকমান্ডের ঘনিষ্ঠ ও স্থায়ী কমিটির একাধিক সদস্যের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিএনপি হাইকমান্ডের ঘনিষ্ঠ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বশীল জানান, শুধু আন্দোলন করে খালেদা জিয়াকে বের করা যাবে, এমন কৌশলে বিশ্বাসী নয় দলের হাইকমান্ড। এক্ষেত্রে প্রধান নির্দেশনা হিসেবে কাজ করছে বিএনপি-প্রধানের বক্তব্যই। ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাগারে যাওয়ার আগে যেকোনও পরিস্থিতিতে নেতাকর্মীদের শান্ত থেকে ষড়যন্ত্র মোকাবিলার কথা বলেছেন খালেদা জিয়া। এর আগেও তিনি বেশ কয়েকবার জোর দিয়েই প্রতিহিংসামূলক আচরণ থেকে নেতাকর্মীদের বিরত থাকার নির্দেশ দেন।

বিএনপির হাইকমান্ডের ঘনিষ্ঠ এক নেতা বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) রাতে বলেন, খালেদা জিয়া নিজের মুক্তির আন্দোলনের বিপক্ষে বলেছেন। এছাড়া পরবর্তী সময়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও পরিবারের সদস্যরা যখনই তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন, সব সময়ই খালেদা জিয়া বিষয়টি মনে করিয়ে দিয়েছেন।

এদিকে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, বেগম জিয়া যেভাবে বলেছেন, আমরা সেভাবেই অনুসরণ করছি। আমরা যদি রাস্তায় নামি, তখন সরকারই সহিংসতা সৃষ্টি করবে।

দলটির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য বলেন, রাস্তায় নামলে পুলিশ ধরবে, মামলা হবে, এখন এই ঝুঁকি কেন আমরা নিতে যাবো? এক্ষেত্রে আমরা নতুন কোনো কৌশলে যাবো কিনা, তা নির্ভর করছে খালেদা জিয়ার ওপর। তিনি কী চান, আমরা সেটা জেনেই বাস্তবায়ন করবো।

বিএনপি হাইকমান্ডের ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে, ইতোমধ্যে দলের প্রায় ২০ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা চলছে। নতুন করে নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেফতার করার পরিস্থিতি তৈরি করার বিরুদ্ধে হাইকমান্ড। তাই পরিস্থিতির গুণগত পরিবর্তন ছাড়া নতুন করে ঘরোয়া কর্মসূচিতেই সীমাবদ্ধ থাকবে মুক্তি দাবির প্রক্রিয়াও।

এদিকে দলীয় প্রধানের মুক্তির জন্য সক্রিয় কর্মসূচি দিতে বিএনপির মধ্যম সারির ও সিনিয়র নেতারা প্রায়ই বক্তব্য দেন।

গত ৮ নভেম্বর জাতীয় প্রেস ক্লাবের তারেক পরিষদ ঢাকা মহানগর উত্তর আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, আপনারা যদি খালেদা জিয়ার মুক্তি চান তাহলে প্রস্তুত হন। কারও আশা-ভরসায় বসে না থেকে রাস্তায় নামতে হবে। আর প্রেসক্লাবে আলোচনা করার সুযোগ নেই। এখন সময় হয়েছে রাজপথে নামার। আদালতের মাধ্যমে নেত্রীর মুক্তি হবে না। এটা বুঝে গেছি।

একইদিনে রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে নামতে হবে। এছাড়া কোনো বিকল্প নেই।

এদিকে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনের বিষয়ে দলের স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য বলেন, কারাগারে যাওয়ার আগে খালেদা জিয়া জামায়াতের কয়েকজন নেতাকেও জোর দিয়ে বলেছেন, ‘আপনারা সহিংস হবেন না।’ সহিংস আন্দোলনের কথা খালেদা জিয়া বলেননি, তারেক রহমানও বলেননি।

এ বিষয়ে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার বলেন, বেগম খালেদা জিয়া সহিংস আন্দোলনের পক্ষে কোনো দিনই ছিলেন না।






আরও পড়ুন



২. সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ মোঃ খায়রুল আলম রফিক
৩. নির্বাহী সম্পাদক ঃ প্রদীপ কুমার বিশ্বাস
৪. প্রধান প্রতিবেদক ঃ হাসান আল মামুন
প্রধান কার্যালয় ঃ ২৩৬/ এ, রুমা ভবন ,(৭ম তলা ), মতিঝিল ঢাকা , বাংলাদেশ । ফোন ঃ ০১৭৭৯০৯১২৫০
ফোন- +৮৮০৯৬৬৬৮৪, +৮৮০১৭৭৯০৯১২৫০, +৮৮০১৯৫৩২৫২০৩৭
ইমেইল- aporadhshongbad@gmail.com
(নিউজ) এডিটর-ইন-চিফ,
ইমেইল- khirulalam250@gmail.com
close