হেলপার ও ড্রাইভার মিলে রাতভর গৃহবধূকে গণধর্ষণ !

উবাইদুল্লাহ রুমি | রবিবার, জুন ২১, ২০১৫
হেলপার ও ড্রাইভার মিলে রাতভর গৃহবধূকে গণধর্ষণ !

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে বাড়িতে রাখার আশ্বাস দিয়ে পাশের আম বাগানে নিয়ে রাতভর এক গৃহবধূকে গণধর্ষণ করলো বাসের চালক শাহ আলম ও হেলপার আব্দুর রশিদ। শনিবার সকালে উপজেলার জয়াগ ইউনিয়নের আমকি গ্রামের একটি বাগান থেকে স্থানীয়রা ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে। ধর্ষিতা বর্তমানে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

এদিকে ঘটনার ২৪ ঘন্টা পরও পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে না পারায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

খোজ নিয়ে জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় পার্শ্ববর্তী লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার কলছমা মাইজের পাড়া গ্রামের বেলাল হোসেনের মেয়ে ওই গৃহবধু চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে স্বামীর বাড়ীতে বাসযোগে যাচ্ছিল। এ  সময় রাত বেশি হওয়ায় বাসের হেলপার জয়াগ ইউনিয়নের তালেমাত গ্রামের হাজী বাড়ির  আবদুর রশিদ  ও বাস চালক আমকি গ্রামের জমাদার বাড়ির শাহ আলম তাকে বাড়িতে থাকার আশ্বাস দিয়ে আমকি গ্রামের একটি বাগানে নিয়ে যায়। পরে গৃহবধূর হাত পা বেধে, মুখে ওড়না পেচিয়ে বাস চালক ও হেলপারসহ ৪ যুবক রাতভর পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে গৃহবধূ অচেতন হয়ে পড়লে তাকে বাগানে রেখেই তারা পালিয়ে যায়। শনিবার সকালে স্থানীয়রা ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে থানায় খবর দিলে সোনাইমুড়ী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জয়দেব কুমার চৌধুরী ধর্ষিতাকে থানায় নিয়ে আসেন। সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী হানিফুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। পুলিশ ধর্ষকদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছে ।