হবিগঞ্জে পাঁচ যুবক-যুবতীকে ১ মাস করে কারাদন্ড

স্টাফ রিপোর্টার | বুধবার, আগস্ট ২৬, ২০১৫

হবিগঞ্জে পাঁচ যুবক-যুবতীকে ১ মাস করে কারাদন্ড

হবিগঞ্জে মাদকসহ অসামাজিক কর্মকান্ড রোধে পুলিশ বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও রেলওয়ে জংশনে অভিযান পরিচালনা করেছে।

এ সময় অনৈতিক কাজে লিপ্ত থাকাবস্থায় পুলিশের হাতে ধরা পড়া ৫ যুবক-যুবতীকে ১ মাস মাস কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। শুক্রবার দুপুরে হবিগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশফাকুল হক চৌধুরী এ কারাদন্ড প্রদান করেন।

পুলিশ জানায়, জুয়া, মাদকসহ অপরাধ দমনে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি মোঃ ইয়াছিনুল হকের নেতৃত্বে এসআই আতিকুল আলম ও এসআই জুলহাস উদ্দিনসহ একদল পুলিশ আবাসিক হোটেল ও রেলওয়ে জংশনে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানকালে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে গাউছিয়া ও চেয়ারম্যান বডিং থেকে ৫ যুবক-যুবতীকে আটক করে পুলিশ।

আটককৃতরা হলো- চুনারুঘাট উপজেলার গোগাউড়ার সুন্দর আলীর কন্যা মনিরা খাতুন (২০), লাখাই উপজেলার সাতাউকের আব্দুল আহাদের ছেলে স্বপন মিয়া (২৩), মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল কলেজ রোডের নুর উদ্দিনের কন্যা আফসানা আক্তার জুঁই (২০), মাদারীপুর সদরের মইশারচরের আব্দুর রবের ছেলে আবুল কালাম (২৬), রংপুরের মিঠাপুকুরের নিধিরামপুরের আব্দুল কাদেরের ছেলে আব্দুল মালেক (৩৮)। এছাড়া একটি মামলার পলাতক

আসামী  হবিগঞ্জের পূর্ব বড়চরের শুশাংক সেনের ছেলে শুশান্ত সেনকেও (২৫) আটক করে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার দুপুরে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে ভ্রাম্যমান আদালতে প্রেরণ করলে বিজ্ঞ বিচারক তাদের ৫ জনের প্রত্যেককে এক মাস করে কারাদন্ড প্রদান করেন।

শ্রীমঙ্গল কলেজ রোডের বাসিন্দা আফসানা আক্তার জুঁই জানায়, তাকে কামাল নামে এক দালাল টাকার বিনিময়ে  হবিগঞ্জে এনে দিয়েছে দেহব্যবসা করার জন্য। এভাবে অন্য পতিতাদেরকেও দেশের নানা স্থানে সরবরাহ করা হচ্ছে। দালালদের কাছে তারা (পতিতারা) জিম্মি রয়েছে। তবে কোনো সমস্যা হলে দালালরা তাদের সহায়তা করে।

এভাবে টাকা রোজগারের আশায় এক শ্রেণির অসহায় নারীরা এসে দালালের ফাঁদে পড়ে। এরপর দালালরা তাদের বিভিন্ন আবাসিক হোটেলসহ নানা স্থানে বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিলেও তারা থেকে যায় ধরাছোয়ার বাইরে।