সৈয়দপুরে নারী নির্যাতন ও যৌতুক মামলায় এ্যাডভোকেট গ্রেফতার ৷

ইমানুর রহমান,নীলফামারী | বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১, ২০১৫
সৈয়দপুরে নারী নির্যাতন ও যৌতুক মামলায় এ্যাডভোকেট গ্রেফতার ৷

নির্যাতন ও যৌতুক মামলায় এ্যাড. এস.এম রাসেল রানাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল ১ অক্টোবর স্থানীয় থানায় দাযের করা মামলার ২

ঘন্টাপর ওই এ্যাডভোকেটকে আটক করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়। অভিযোগে জানা যায় সৈয়দপুর উপজেলার জসিম বাজার এলাকার বাসিন্দা ও নীলফামারী জজ কোর্টের এ্যাডভোকেট এস.এম রাসেল রানা

তার বড় স্ত্রী সানজিদা বেগমকে প্রায় সময় নির্যাতন করে আসছিল। স্বামীর দাবীকৃত যৌতুকের অংক বেশী হওয়ায় সানজিদা বেগম তা প্রদানে অপরাগতা প্রকাশ করায় ওই এ্যাডভোকেট তার স্ত্রীর অনুমতি ছাড়াই আয়েশা সিদ্দীকা নামের এক যুবতীকে বিয়ে করেন।

এরপরেও বড় স্ত্রী কোন প্রকার প্রতিবাদ করেনি। বড় স্ত্রীর নমনীয়তার সুযোগ কাজে লাগিয়ে গত বুধবার পুনরায় যৌতুকের জন্য সানজিদাকে শারীরিক নির্যাতন চালানো হয়। এক সময় বড় স্ত্রী সানজিদা বেগম নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে জ্ঞানহীন হয়ে পড়েন।

পরে জ্ঞান ফিরে স্বামী রাসেল রানার বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় নারী নির্যাতন ও যৌতুক মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২, তারিখ ১/১০/২০১৫ইং। এ মামলার সূত্র ধরে পুলিশ গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে এ্যাডভোকেট রাসেল রানাকে তার জসিম বাজার  এলাকার বাসা থেকে আটক করে পুলিশ।

এব্যাপারে কথা হয় আটক কৃত এ্যাডভোকেট এস.এম রাসেল রানার সাথে তিনি বলেন তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সত্য নয়। স্ত্রীর দায়ের করা মিথ্যা অভিযোগের পুলিশ তাকে লাঞ্চিত, হয়রানী করার জন্য গ্রেফতার

করেছে। তবে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন জানান পুলিশ কেউকে হয়রানীর জন্য গ্রেফতার করে না। এ্যাডভোকেট রাসেলের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী সানজিদা বেগম মামলা দিয়েছে বলেই তাকে আটক করা হয়েছে।