দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কা, নিহত ৬

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি, | শনিবার, অক্টোবর ৩, ২০১৫
দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কা, নিহত ৬
ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নবীগঞ্জের জালালপুরে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের সাথে হানিফ পরিবহনের একটি বাসের সংঘর্ষে সেনা কর্মকর্তা ও মা-ছেলেসহ ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ২০ জন। আহতদের তাৎক্ষণিকভাবে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


নিহতরা হলেন সেনাবাহিনীর ল্যান্স করপোরাল আবু সাঈদ (৩০), সিলেট কানাইঘাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ পলাশের অন্তঃস্বত্তা স্ত্রী মুর্শেদা বেগম (৪০), তার ছেলে মেহেদী (৪), ঔষধ কোম্পানির প্রতিনিধি আরিফ মিয়া (৩০)। অন্য দুইজনের পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি।


পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাত ৯টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের জালালপুর বাজারে ইট বোঝাই একটি ট্রাক (ঢাকা মেট্রো ট ১৬-২৮৫৫) যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে মহাসড়কের এক পাশে দাঁড় করিয়ে মেরামত করছিল। এসময় দাঁড় করানো ইট বোঝাই ট্রাকটিকে পেছন দিকে ধাক্কা দেয় বেপরোয়া গতিতে আসা হানিফ পরিবহনের একটি বাস (ঢাকা মেট্রো ট- ১৪-৮৩১৯)। এতে বাসটি দুমড়ে-মুচড়ে প্রায় দ্বিখণ্ডিত হয়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থলেই শিশুসহ বাসের তিন যাত্রী নিহত হন। আহত হন আরও ২০ জন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদেরকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর সেনা কর্মকর্তা সাঈদ, আওয়ামী লীগ নেতার স্ত্রী মোর্শেদ বেগম এবং মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ছেলে মেহেদীসহ তিনজন মারা যান।


এদিকে দুর্ঘটনায় খবর পেয়ে শেরপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুন্নবী সরকারে নেতৃত্বে একদল পুলিশ ও নবীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজ শুরু করেন। রাত প্রায় একটার দিকে উদ্ধার কাজ সমাপ্ত হয়।


এদিকে দুর্ঘটনায় পরপরই মহাসড়কে প্রায় দুই ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে পুলিশের সহযোগিতায় রাত ১টার দিকে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।


শেরপুর হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ নুরুন্নবী সরকার মুঠোফোনে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, ঘটনার পর পরই চালক পালিয়ে গেছে।


এদিকে, সিলেট কানাইঘাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ পলাশের অন্তঃস্বত্তা স্ত্রী মুর্শেদা বেগম ও তার ছেলে মেহেদীর মৃত্যু সংবাদ সিলেটে ছড়িয়ে পড়লে আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা রাত তিনটার দিকে সিলেটে হানিফ পরিবহনের কাউন্টার ভাঙচুর করে এবং সেখানে দাঁড়ানো একটি বাসে আগুন দেয় বলে জানা গেছে।