স্ত্রীকে হত্যা করে পালালো স্বামী

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি | রবিবার, অক্টোবর ৪, ২০১৫
স্ত্রীকে হত্যা করে পালালো স্বামী
মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার চরভার্তা গ্রাম থেকে ফাহিমা আক্তার (২৩) নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রবিবার সকাল ১০টার দিকে শ্বশুর বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।  ফাহিমা নিহতের ঘটনায় স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে।

নিহত ফাহিমা ওই গ্রামের সৌদি প্রবাসী খোকন হোসেনের স্ত্রী এবং পাশর্^বর্তী চক পালপাড়া গ্রামের নিজাম উদ্দিনের মেয়ে।

জমি কেনার টাকা না পেয়ে শনিবার রাতে স্বামী ও শ^শুর বাড়ির লোকজন ফাহিমাকে শ^াসরোধে হত্যা করে লাশ রেখে পালিয়ে গেছে বলে স্বজনরা অভিযোগ করেছেন।

গৃহবধূর স্বজনরা জানান, পাঁচ বছর আগে পারিবারিকভাবে আবদুর রাজ্জাকের ছেলে খোকনের সঙ্গে ফাহিমার বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের কিছুদিন পর শ্রমিক ভিসায় সৌদি চলে যান খোকন।

কয়েক মাস আগে তিনি ছুটিতে দেশে ফিরে আসেন। এরপর জমি কেনার জন্য স্ত্রী ও শ^শুরের কাছে পাঁচ লাখ টাকা চান খোকন।

এই টাকা না পেয়ে ফাহিমার সঙ্গে খোকনের কলহের সৃষ্টি হয়।

ফাহিমার বড় ভগ্নিপতি রায়হান উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, শনিবার রাত দুইটার দিকে ফাহিমা আতœহত্যা করেছে বলে খোকনের বাবা মোবাইল ফোনে খবর দেন। এর পরপরই তিনিসহ স্বজনরা এসে ফাহিমার লাশ ঘরে পড়ে থাকতে দেখেন।

এ সময় ওই গৃহবধূর স্বামী ও শ^শুর বাড়ির কাউকে পাওয়া যায়নি। তাদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও কোন সাড়া পাননি তারা।

বিষয়টি জানালে পুলিশ এসে রবিবার সকাল ১০টার দিকে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

ওই গৃহবধূর স্বজনরা অভিযোগ করে বলেন, ‘ফাহিমার গলায় জখমের চিহ্ন রয়েছে। রাতে স্বামী ও শ^শুর বাড়ির লোকজন তাকে শ^াসরোধে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এ কারণে স্বজনরা চলে আসায় ধরা পড়ার ভয়ে তারা পালিয়ে গেছে।

সিংগাইর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দুজ্জামান জানান, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

ওই গৃহবধূর স্বামী ও তার বাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান ওসি।