যে সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে অতিষ্ট খিলপাড়াবাসী

স্টাফ রিপোর্টার: | শুক্রবার, অক্টোবর ২৩, ২০১৫
যে সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে অতিষ্ট খিলপাড়াবাসী

রিকশাওয়ালা কিংবা খেটে খাওয়া শ্রমীক অথবা ব্যবসায়ী কিংবা গ্রামের সাধারন আমজনতা কেউ যেন রেহাই পা”েছ না। এর মধ্যে বাদ পড়ছে না কোমলমতি স্কুল ও কলেজগামী কোন মেয়ে শিার্থীরাও।এসব সন্ত্রাসীরা গ্রামের বিভিন্ন সাধারন মানুষকে নানা কায়দায় জুলুম করে আসছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। নোয়াখালীর চাটখিল থানার অন্তর্গত খিলপাড়া ইউনিয়নের গ্রামগুলোতে এসব সন্ত্রাসীরা ক্রমেই ত্রাস হয়ে উঠছে  বলে অভিমত অনেকের।

খুন,গুম করা, নারী নির্যাতন কিংবা মাদকের অবাধ ছড়াছড়িতে সবটাই যেন তাদের দখলে।
গ্রামবাসীর অভিযোগ আর অপরাধ সংবাদের অনুসন্ধানী তথ্য এসব সন্ত্রাসীদের নাম ও পরিচয় সম্পর্কে জানা যায়, এরা হল: ১.সন্ত্রাসী কিশোর প্রকাশ: কেরানীর নাতি, পিতা: কামাল হোসেন, সাং- সানুখালী, ২. সন্ত্রাসী মামুন হোসেন প্রকাশ: কালা জয়নালের ভাতিজা, সাং- সানুখালী, ৩. সন্ত্রাসী ছিদ্দিক উল্লা, পিতা:- মৃত সুরুজ মিয়া সাং- খিরিহাটি (নোয়াবাড়ি), ৪. সন্ত্রাসী সেলিম, প্রকাশ-সেল্লা, পিতা: মৃত আব্দুল আজিজ সাং খিরিহাটি (র“ইর বাড়ি), ৫.সন্ত্রাসী সোলেমান প্রকাশ : সেলিমের ভাতিজা, পিতা: আবুল কাশেম (র“ইর বাড়ি), ৬. সন্ত্রাসী সিরাজ, প্রকাশ-টুক্কা পিতা:- মৃত সুরুজ মিয়া সাং- খিরিহাটি (নোয়াবাড়ি), ৭. সন্ত্রাসী সাদ্দাম হোসেন প্রকাশ- ফজা মিয়ার নাতী (হালের বাড়ি) প্রমুখ। এরা প্রত্যেকেই খিলপাড়া ইউনিয়নের অধিবাসী বলে জানা যায়।
¯’ানীয়দের সাথে আলাপকালে তারা জানান এসব সন্ত্রাসীরা দিন রাত আমাদের গ্রামকে এবং গ্রামের বাসিন্দাদেরকে দিনের পর দিন অতিষ্ট করে তুলেছে। খিরিহাটি গ্রামের প্রবীন বৃদ্ধা আব্দুর রউফ জানান, সেলিমের কুকর্ম এবং অত্যাচার এ গ্রামে নতুন কিছু নয়। আমার ছেলে শহীদ এবং সুমন কে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করার বহু অপচেষ্টা চালিয়েছে। এখনো অনেক স্কুলগামী মেয়েদের নিকট তার কুনজর পড়ে। তাই আমরা শান্তিতে নাই।

এর মধ্যে সন্ত্রাসী ছিদ্দীক উল্লাহ এর নামে একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানা যায়। নিজেকে ¯’ানীয় আওয়ালীগ কর্মী বলে দাবি করলেও তবে অনুসন্ধানীতে আওয়ামী রাজনীতির সাথে তার কোন সম্পৃক্ততার প্রমান পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে খিরিহাটি গ্রামের আওয়ামীলীগের একজন একনিষ্ট সমর্থক ¯’ানীয় র“ইর বাড়ির আবুল কালাম প্রকাশ: কালা দৈনিক ভোরের অপো কে জানান আমি দির্ঘদিন যাবৎ আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত। আমি যতদুর জানি সেলিম ও ছিদ্দিক উল্লাহ উভয়ই গাজাঁ ব্যবসায়ী এবং এদের নামে বহু বার নালিশ এবং দেন দরবার হয়েছে। আর ছিদ্দিক উল্লাহ কে প্রায় অবৈধ অস্ত্র সাথে নিয়ে চলাচল করতে দেখা যায়। এদের কারনে কেউ শান্তিতে ঘুমাতে পারে না। সুতরাং এমন কোন লোক আওয়ামীলীগে থাকতে পারে না। এরা দলের নাম পচানোর জন্যেই দলের নাম ভাঙ্গিয়ে তাদের অপকর্ম চালিয়ে আসছে।

এর আগেও দেলিয়াই বাজারের একটি খুন এবং খিলপাড়ার বেশ কয়েকটি হত্যাকান্ডে তাদের জড়িত থাকার গুঞ্জন শুনা যায়। এসব সন্ত্রাসীদের বিষয়ে চাটখিল থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, এদের বির“দ্ধে কেউ এখানো লিখিত অভিযোগ দেয়নি তবে বিষয়টি আমরা অবশ্যই গুর“ত্বের সাথে খতিয়ে দেখবো। এ বিষয়ে ভুক্তভোগীসহ সাধারন আমজনতা প্রশাসনসহ উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম এর সুবিবেচনা এবং এবং এদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ কামনা করেন।