সৈয়দপুরে স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কার ৷

মো.ইমানুর রহমান,নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি | বুধবার, নভেম্বর ৪, ২০১৫

সৈয়দপুরে স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কার ৷

নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌর এলাকার ৩ কিলোমিটার একটি সড়ক দীর্ঘদিনেও সংস্কার না হওয়ায় এবার স্বেচ্ছশ্রমে সড়কটি সংস্কার করছেন এলাকাবাসী। তবে পৌর বাজেট না থাকলেও ব্যক্তিগত উদ্যোগে এলাকাবাসীর সাথে শরীক হয়েছেন ওয়ার্ড কাউন্সিলরও। পার্শ্ববর্তী বোতলাগাড়ী, কাশিরাম বেলপুকুর ও খাতামধুপুর ইউনিয়নের প্রায় ৫ সহস্রাধিক লোক সৈয়দপুর শহরে আসা-যাওয়ার জন্য ওই সড়কটি ব্যবহার করেন বলে জানা

গেছে। সরেজমিন দেখা গেছে, সৈয়দপুর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড কয়াগোলাহাটের ডাঙ্গাপাড়া মোড় থেকে জামবাগান পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার সড়কটির নাজুক অবস্থা। দীর্ঘদিনেও সংস্কার না হওয়ায় সড়কে সৃস্টি হয়েছে অসংখ্য গর্ত। বর্ষা মৌসুমে সড়কটির চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে।

কমরেড মোস্তাকিমের নেতৃত্বে সড়কটি সংস্কারে নামেন ওই এলাকার মোজাম্মেল, শারাফাত, লাল্টু, আব্দুর রাজ্জাক, শাহাবুদ্দিন, শহিদুল্লাহ, খতিবার, জহির খান, বুদারুসহ ১৫-২০ জন এলাকাবাসী। জামবাগান এলাকার মোস্তাকিম (৩৭) অভিযোগ করে বলেন, আমরা পৌরসভার নাগরিক কিন্তু নাগরিক সেবা থেকে আমরা বঞ্চিত। ভোটের সময় মেয়র-কাউন্সিলর প্রার্থি সড়কটি সংস্কারে প্রতিশ্র“তি দিলেও নির্বাচিত হওয়ার পর আর ফিরেও

তাকান না। ২০-২৫ বছর ধরে এ যন্ত্রনা ভোগ করলেও দেখার কেউ নেই। তবে কাউন্সিলর শাহিন হোসেন সড়কটি সংস্কারে ব্যক্তিগত উদ্যোগে সহযোগিতা করছেন। ওই এলাকার বুদারু হোসেন (৪২) আক্ষেপ করে বলেন, পৌরসভার অনেক সড়ক সামান্য ভাঙ্গলেই সংস্কার শুরু হয় অথচ এই

সড়কটি দীর্ঘদিনেও সংস্কারও করা হয় না, পাকাকরণও হয় না। এ ব্যাপারে ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহিন হোসেন জানান, সৈয়দপুর শহরে প্রবেশের জন্য গুরুত্বপুর্ণ ওই কাঁচা সড়কটি সংস্কার ও পাকাকরণে একাধিকবার পৌর কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। কিন্ত কোন লাভ হয়নি।

পৌর বাজেট না থাকলেও এলাকাবাসীর ও সাধারণ পথচারীর যাতায়াতের সুবিধার্থে টুকিটাকি সংস্কার অব্যাহত রেখেছি। প্রত্যেক বর্ষা মৌসুমে নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের লোহার গুড়া ও বাবরি দিয়ে সংস্কার করি। এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে সড়কটি সংস্কার করছে, আমি দেখে এসেছি এবং সংস্কার কাজে অংশগ্রহণকারী ১০-১২ জন দিনমজুরকে ব্যক্তিগত অর্থ দিয়ে পারিশ্রমিক দিব বলেও তাদের জানিয়েছি।