ছিনতাই করতে গিয়ে আটোয়ারীতে কথিত সাংবাদিক জনতার হাতে আটক অতঃপর মুচলেকা দিয়ে ভোর রাতে থানা হতে মুক্তি লাভ

আটোয়ারী (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি | রবিবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৫
ছিনতাই করতে গিয়ে আটোয়ারীতে কথিত সাংবাদিক জনতার হাতে আটক অতঃপর মুচলেকা দিয়ে ভোর রাতে থানা হতে মুক্তি লাভ

 রাতের অন্ধকারে ছিনতাই করতে গিয়ে পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে কথিত সাংবাদিকসহ ৩ যুবক জনগনের হাতে আটক অতঃপর ভোর রাতে মুচলেকা দিয়ে থানা হতে মুক্তি লাভ। উলে-খ, উপজেলার প্রাণ কেন্দ্র ফকিরগঞ্জ বাজারের হোটেল ব্যবসায়ী হাসিবুল এর পুত্র রনি(১৮) শনিবার রাত প্রায় ৮টার

সময় দোকান হতে বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। রনি নগদ প্রায় কুড়ি হাজার টাকা নিয়ে ছোটদাপ গোরস্থান সংলগ্ন ফার্মের কাছে পৌছলে কথিত সাংবাদিক মিন্টু ও আতাবুল এর নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক রনির গতিরোধ করে। উপায়ন্ত না পেয়ে রনি চিৎকার করলে স্থানীয়রা ছুটে আসে

ছিনতাইকারীদের হাত হতে তাকে উদ্ধার করে। এসময় জনতা কথিত সাংবাদিক তোড়িয়া ডুহাপাড়া গ্রামের মৃত হাকিম মাষ্টারের পুত্র মিন্টু(৩৫), সুখাতি গ্রামের নজরুল ইসলামের পুত্র হৃদয়(২২) ও পুহাতু এর পুত্র শাহীন(২০)কে আটক করে থানায় সোপর্দ করে। পরে রনি বাদী হয়ে আটোয়ারী

থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ অজ্ঞাত কারণে মামলা নিতে গড়িমসি করে। ইতিমধ্যে প্রভাবশালী একটি মহল বিষয়টি দফারফা করে আটককৃতদের মুচলেকা দিয়ে থানা হতে ছাড়িয়ে নেয়। এব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহ আলম এর সাথে কথা বললে তিনি জানান,

বাদী অভিযোগ দিতে এসেছিল, আমি অভিযোগ নিয়েছি। পরে স্থানীয় লোকজন বাদীর সাথে আপোষ মিমাংসা করে নেওয়ায় তাদের ছাড়িয়ে দেওয়া হয়। আটককৃত শাহীন ও হৃদয় জানায়, সাংবাদিক মিন্টু ও আতাবুলের হুকুমে আমরা একাজ করেছি। তাদের কথা না শুনলে তারা আমাদের নানা ভাবে

ভয়ভীতি দেখায়। ভয়ে আমরা একাজ করতে বাধ্য হই। এপর্যন্ত তারা আমাদের সাথে নিয়ে বিভিন্ন রাস্তায় ছিনতাই করে ১০ থেকে ১২টি মোবাইল ও টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটায় কিন্তু আমাদেরকে শুধু ২/৩শ টাকা করে দিত।