কাঠালিয়াতে মুসলমানদের বসত ঘর উচ্ছেদ করে, ঘর ও মন্দির নির্মান করেন হিন্দুরা

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ | রবিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৫
কাঠালিয়াতে মুসলমানদের বসত ঘর উচ্ছেদ করে, ঘর ও মন্দির  নির্মান করেন হিন্দুরা

 ঝালকাঠী কাঠালিয়ার ২নং পাটিগালঘাটা ইউনিয়নের  মরিচবুানিয়া গ্রামে বসত ঘর উচ্ছেদ করে ঘর ও 

মন্দির নির্মান করেছে  হিন্দুরা। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ও বর্তমান ইউপি মেম্বর মোঃ মস্তফা হাং তিনি জানান পূর্ব পুরুষ থেকে ঐ জমি ভোগ দখল করতো মালেক গং এর পরিবার। বিপুল চন্দ্র গং বাদী হইয়া ঝালকাঠী জেলা জজ প্রথম আদালতে বিবাদী মোঃ মালেক গং এর বিরুদ্ধে একখানা দেওয়ানি মকর্দ্দমা দায়ের করেন। মামলা নং ২২-১০।

মামলার রায় পায় মোঃ মালেক গং।এই মামলার রায় হয় ০১/০৭/২০১৪ইং তারিখে। মোঃ মালেক গং রায় পাওয়ার পরে তিনি ঐ জমিতে বসত বাড়ি করে ও গাছপালা রোপন করে ও তার দখলে থাকে। এছড়া ও জানা যায় যে, মোঃ মালেক গং পূর্ব পুরুষ থেকে ঐ জমির দখলদার ছিল। বিপুল চন্দ্র গং ১১/১২/২০১৫ইং তারিখ রাতে আনুমান চার ঘটিকার সময় মালেক গং এর দখল কৃত জমিতে বাসঁ ও টিন দিয়ে ছোট্ট একটি ঘর তৈরী করে যাহাতে বুঝা যায় যে, ঐ জমি বিপুল চন্দ্র গং এর দখলে আছে।

শুধু ঘর না ঘরের পাশাপাশি হিন্দুদের পুজা মন্দির তৈরী করে। মালেক গং এরা নিরুপায় হইয়া আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য কেননা ঐ মন্দির বিপুল চন্দ্র গং ভাংচুর করিয়া মালেক গং এর বিরুদ্ধে হয়রানি ও মিথ্যা মামলা আরোপ করতে পারে বলে জানান মালেক গং। মোঃ মালেক গং জানান যে, তারা যদি কাগজ পত্রতে ঐ জমি পেয়ে থাকে তাহা হইলে মালেক গং রা ঐ জমি বিপুল চন্দ্র গং দের ছড়িয়া দিতে বাধ্য থাকিবে।