কুড়িগ্রামে বিদ্রোহী প্রার্থীরা এখন নৌকা প্রতীকের হয়ে ভোট চাচ্ছেন

কুড়িগ্রাম থেকে, রাশিদুল ইসলাম | বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৫
কুড়িগ্রামে বিদ্রোহী প্রার্থীরা এখন নৌকা প্রতীকের হয়ে ভোট চাচ্ছেন


কুড়িগ্রাম পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা এখন নৌকা প্রতীকের জন্য ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছেন। গত ক’দিন আগেও যারা বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচনের জোর তৎপরতা চালালেন তারাই এখন কেন্দ্রের নির্দেশ মেনে দলের মনোনীত নৌকা প্রতীক প্রার্থী আব্দুল জলিলের  হয়ে ভোট চেয়ে বেড়াচ্ছেন।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, কুড়িগ্রাম পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের জেলা মনোনীত প্রার্থী কাজিউল ইসলাম দীর্ঘদিন যাবত দলীয় প্রার্থী হিসেবে নিজেকে জনগণের কাছে জাহির করেছেন। কিন্তু অদৃশ্য কারণে তিনি কেন্দ্রের সমর্থন থেকে বঞ্চিত হন। দলের জন্য অগাদ পরিশ্রম করে কেন্দ্রের সমর্থন

না পেয়ে নিজের সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করার জন্য কেন্দ্রিয় একাধিক নেতাদের সাথে সাক্ষাত করে আর্শিবাদ নিয়েছেন। অবশেষে গত ১৩ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করেন কাজিউল ইসলাম। পাশাপাশি অপর বিদ্রোহী প্রার্থী সাইদুল হাসান দুলালও বহিস্কারের ভয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহার করতে বাধ্য হন।

বর্তমানে কুড়িগ্রাম পৌর নির্বাচনে কুড়িগ্রামে মাত্র ৩জন মেয়র প্রার্থী নিজ নিজ দলীয় প্রতীক পেয়ে এখন ভোট যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন। তারা হলেন-কুড়িগ্রাম জেলা বিএনপি’র সাংগাঠনিক সম্পাদক নূর ইসলাম নুরু (ধানের শীষ), জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আব্দুল জলিল (নৌকা), এবং ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের বেলাল হোসেন (হাত পাখা)।

আশঙ্কা ছিল আ’লীগের তৃণমূল নেতা-কর্মীদের প্রার্থী কাজিউল ইসলাম মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করলে দলের মনোনীত প্রার্থী আব্দুল জলিলকে পরাজয় বরণ করতে হতো। কিন্তু এখন সেই আশঙ্কা কেটে গেছে। দলীয় প্রতক না পেয়ে বিদ্রোহীর ভূমিকায় অবর্তীণ হয় কাজিউল ইসলাম। অবশেষে তুণমূল সমর্থিত প্রার্থী কাজিউল ইসলাম তার মনোনয়পত্র প্রত্যাহার করায় ভীত-কম্পিত অবস্থায় রয়েছে বিএনপি। নৌকা প্রতীকের বিজয় এখন অনেকটাই নিশ্চিত।

কুড়িগ্রাম পৌর নির্বাচনে সর্বশেষ মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারকারী পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজিউল ইসলাম বলেন-দলই জীবন। সারা জীবন দলের আনুগত্য করে এসেছি, আজও করছি। নৌকার বিজয় মানে শেখ হাসিনার বিজয়। তাই নৌকার হয়ে ভোট প্রার্থনা করছি ভোটারদের কাছে।

অপরদিকে, কুড়গ্রাম বিএনপির মনোনীত প্রার্থী সাংগাঠনিক সম্পাদক নূর ইসলাম নূরু (প্রতীক ধানের শীষ) বলেন-ভোট যদি অবাধ এবং নিরপেক্ষ হয় তাহলে আমি আশাবাদি ধানের শীষের বিজয় সুনিশ্চিত।