শরীয়তপুর পরকীয়ায় প্রবাসীর স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

শেখ জাভেদ, শরীয়তপুর প্রতিনিধি | বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২৮, ২০১৬
শরীয়তপুর পরকীয়ায় প্রবাসীর স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা
শরীয়তপুর সদর উপজেলার পূর্ব সোনামূখী গ্রামে জেবুন্নেছা (৪০) নামে এক গৃহবধূকে পরকীয়ার জেরে কুপিয়ে  ও গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার দিবাগত রাতে এ হত্যার ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুর সদর উপজেলার রুদ্রকর ইউনিয়নের পূর্ব সোনামূখী গ্রামে জেবুন্নেছা (৪০) নামে এক গৃহবধূকে পরকীয়ার জেরে কুপিয়ে এবং গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। জেবুন্নেছা পোল্যান্ড প্রবাসী মজিবর রহমান (রাজু আহমেদ) বেপারীর স্ত্রী। জেবুন্নেছার দুই সন্তান রয়েছে। তার ছেলে রিজন হোসেন (৮) স্থানীয় মাদ্রাসা সোনামূখী হাফিজিয়া মাদ্রাসায় পড়ার সুবাদে সেখানে থাকে। জেবুন্নেছা তার নিজের ঘরে প্রতিবন্ধী মেয়ে রাইছা আক্তার (৬) কে নিয়ে ঘুমাচ্ছিলেন। গভীর রাতে রাইছার কান্না শুনতে পায় তার বাড়ির লোকজন। রাইছার কান্না শুনে বাড়ির লোকজন জেবুন্নেছার ঘরে প্রবেশ করে। এ সময় অন্ধকারে জেবুন্নেছার ঘরে সাড়া শব্ধ না পেয়ে তার শাশুরী জলেফা চিৎকার দিলে তার (জলেফা) বড় ছেলে মোঃ করিম বেপারী ও আশেপাশের লোকজন এসে লেপের নিছে জেবুন্নেছার গলা কাটা মৃত দেহ দেখতে পান। পুলিশ গিয়ে জেবুন্নেছার মৃত দেহ উদ্ধার করে।
জেবুন্নেছার স্বামীর (মজিবর রহমান (রাজু আহমেদ) বেপারীর) বড় ভাই আব্দুল করিম বলেন, এমন মৃত্যু মেনে নেওয়ার মতো না। আমরা যাদের সন্দেহ করি তাদের বিরুদ্ধে মামলা করবো।
জেবুন্নেছার শাশুরি জলেফা বলেন, গভীর রাতে আমার নাতনী রাইছার কান্না শুনতে পাই। রাইছার কান্না শুনে ঘরের ভিতর ঢুকলে আমার বউ মার লাশ দেখতে পাই। ওর মাথায় কয়েকটা কোপের চিহ্ন দেখি।
পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি। পুলিশ গিয়ে জেবুন্নেছার মৃত দেহ উদ্ধার করেছে। ময়নাতদন্তর জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পিছনে কী আছে তা তদন্ত করে জানা যাবে।


অপরাধ সংবাদ/রা