চালু হচ্ছে বাংলাবান্ধায় ইমিগ্রেশন সুবিধা।

আবু সাঈদ পঞ্চগড় প্রতিনিধি: | বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১৭, ২০১৬
চালু হচ্ছে বাংলাবান্ধায় ইমিগ্রেশন সুবিধা।
দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতে যাতায়াতের জন্য অবশেষে চালু হচ্ছে এই ইমিগ্রেশন সুবিধা। উদ্বোধনের ১৮ বছর পর অবশেষে চালু হচ্ছে পঞ্চগড় এর তেঁতুলিয়ার বাংলাবান্ধা স্থল বন্দরে ইমিগ্রেশন সুবিধা।
বাংলাদেশ ও ভারতের কর্মকর্তারা আগামী বৃহস্পতিবার (১৮-০২-২০১৬ ইং) এ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন বলে পঞ্চগড় জেলা প্রশাসন জানিয়েছে। এই
ইমিগ্রেশন সুবিধা চালুর সিদ্ধান্তের খবর শুনে পুরো পঞ্চগড়সহ তেঁতুলিয়ার মানুষকে অনেক খুশি দেখা গেছে।
পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন জানান, গত রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ইমিগ্রেশন সুবিধা চালুর বিষয়ে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।বৈঠকে আগামী বৃহস্পতিবার ইমিগ্রেশন সুবিধা চালুর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়।
আরো জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, ভারতের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বিজয় কুমার সিং ও ঢাকায়
ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে থাকার কথা রয়েছে।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সাদাত সম্রাট বলেন, মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে দলীয়ভাবে আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে।
পঞ্চগড় আমদানি-রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মেহেদী হাসান বাবলা বলেন, ইমিগ্রেশন সুবিধা পেলে সাশ্রয়ী ও সহজতর সড়ক যোগাযোগের কারণে এ বন্দর ব্যবহারে ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষ আরও উৎসাহী হবে।
এতে সরকারের বিপুল রাজস্ব আদায় ও স্থানীয় আর্থ-সামাজিক অবস্থায় ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে বলে মনে করেন তিনি।
স্থানীয় বিভিন্ন সংগঠন ইমিগ্রেশন সুবিধা চালুর দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছিল। ভারতের বর্তমান রাষ্ট্রপতি ও তৎকালীন কেন্দ্রীয়
অর্থমন্ত্রী প্রণব মুখার্জিসহ দুই দেশের কয়েকজন মন্ত্রী একাধিকবার সে সুবিধা চালুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।
এ বন্দর দিয়ে ১৯৯৭ সালের ১ সেপ্টেম্বর নেপালের সঙ্গে এবং ২০১১ সালের ২২ জানুয়ারি ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য কার্যক্রম শুরু হয়।