শরীয়তপুরে সাংবাদিককে হত্যার হুমকী দেওয়ায় প্রতিবাদ সভা

মহসিন রেজা, শরীয়তপুর প্রতিনিধি | রবিবার, মার্চ ২০, ২০১৬
শরীয়তপুরে সাংবাদিককে হত্যার হুমকী দেওয়ায় প্রতিবাদ সভা

শরীয়তপুরে সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম পাইলটকে হত্যার হুমকী দিয়ে চিঠি দিয়েছে “আজরাইল” এর প্রতিবাদে প্রতিবাদ সভা করেছে শরীয়তপুর প্রেস ক্লাব। রোববার সকালে শিল্পকলা একাডেমি সড়কে দৈনিক রুদ্রবার্তা কার্যালয়ের এই চিঠি পাওয়া যায়। সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম পাইলট দৈনিক সমকাল পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি ও স্থানীয় দৈনিক রুদ্রবার্তা পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক। এঘটনায় পালং মডেল থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করা হয়েছে।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম পাইলটকে আওয়ামী লীগ, বর্তমান সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের দালাল হিসেবে কাজ করছে এজন্য তাকে মেরে ফেলার হুমকী দেয়া হয়। এছাড়া চিঠিতে সাগর-রুনী হত্যা, সমকালের সাংবাদিক গৌতম দাস হত্যা, দৈনিক রানার পত্রিকার সম্পাদক হত্যা ও ঝালকাঠির বিচারক হত্যার কথা উল্লেখ করে সাবধান করে দেওয়া হয়। চিঠিতে প্রেরকের স্থানে লেখা ছিল “আজরাইল” ও ঠিকানা আসেপাশে।

এবিষয়ে শরীয়তপুর প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি শেখ খলিলুর রহমান প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, একজন সাংবাদিকে তার লেখালেখির কারনে অনেক শত্র“ হতে হয়। যারাই সাংবাদিক পাইলটকে হুমকি দিয়ে চিঠি পাঠিয়েছে তাদেরকে আইনের আওতায় আনার জন্য স্থানীয় প্রশাসনকে অনরোধ করেন তিনি।

এব্যাপারে পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খলিলুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

এই চিঠি দিয়ে হুমকীর ঘটনার পর শরীয়তপুর প্রেস ক্লাব রোববার বিকেল সাড়ে ৫টায় এক প্রতিবাদ সভার আয়োজনে দাবি করা হয়, একের পর এক সাংবাদিকে হত্যা করা হচ্ছে ও হুমকী দেওয়া হচ্ছে। এমন হত্যার হুমকী দেওয়া অপরাধিদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের কাছে জোর দাবি করা হয় ও প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা জানানো হয়। এসময় শরীয়তপুর জেলায় কর্মরত সাংবাদিক গণ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, হত্যার হুমকী দিয়ে চিঠি দেওয়ায় জেলার স্থানীয় সাংবাদিকদের মধ্যে এক ধরনের ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।