বিদেশে পাঠাবে বলে দুই বন্ধুর কাছ থেকে ১২ লক্ষ টাকা নিয়ে উদাও প্রতারক চক্র

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | বৃহস্পতিবার, জুন ৯, ২০১৬
    বিদেশে পাঠাবে বলে দুই বন্ধুর  কাছ থেকে
১২ লক্ষ টাকা নিয়ে উদাও প্রতারক চক্র
বিদেশ যাবো পরিবার পরিজনের হাজারও স্বপ্ন পূরন করবো। স্বপ্ন পূরন করতে গিয়ে সম্পত্তি বিক্রি প্রিয়তমার স্ত্রীর অলংকার বিক্রি করে সে টাকা জমা দিলো প্রতারক চক্রের হাতে। দুই বন্ধু প্রায় ১২ লক্ষ টাকা ইকবাল নামে এক প্রতারক চক্রের কাছে দিলেন। বিদেশ(আইবেরী কোষ্ট) যাবেন বলে।স্বপ্ন শুধু স্বপ্ন রয়েগেল। টাকার চিন্তাই আর বিদেশ না যেতে পেরে তাদের জীবনে এখন শুধু অন্ধকার ।

অনুসন্ধানে জানাযায়,মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ও মোঃ পারবেজ নামে দুই বন্ধু (আইবেরী কোষ্ট) নামে ওই রাষ্ট্র জাবে বলে ইকবাল নামে এক প্রতারকের কাছে ১২ লক্ষ টাকা জমা দেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। বর্তমানে দুই বন্ধু প্রতারক চক্র শিখারে বন্দী। দেখতে দেখতে দুই বছর পার হয়ে গেল। তার পরেও বিদেশ যাওয়া আর হলো না দুই বন্ধুর। বহুবার তাদের বিদেশ নিবে বলে প্রতারক চক্রটি ঢাকা ইয়ারপোর্ট নিয় বসিয়ে রাখছে জাহাঙ্গীর ও পারভেজকে। এ প্রতারক চক্র রয়েছে তোফায়েল আহম্মদ আরেক প্রতারক ।

প্রতারক ইকবাল গাজীপুর সদর ইউজেলার শরীফপুর গ্রামের (আলাউদ্দিন)বাড়ীর মৃত: ইব্রারাহী আজমের ছেলে ও তার সহ তোফায়েল আহম্মদ নোয়াখালী জেলার সোনামুড়ী উপজেলার কালিহাট গ্রামের মৃত: মোঃ আলীর ছেলে । বর্তমানে দুই প্রতারক ঢাকা তেজকুণী শিল্প এলাকাতে থাকেন।

ভুক্তভোগী জাহাঙ্গীর  আলম লক্ষ্মীপুর  পৌরসভার ১২ নং ওয়ার্ড লাহার কান্দি গ্রামের সুলতান আহম্মদের ছোট ছেলে  ও ফারভেজ সদর উপজেলার টুমচর ইউনিয়নের বাসিন্দা। সম্প্রতি জাহাঙ্গীর  আলম বাদি হয়ে লক্ষ্মীপুর অতিরিক্ত চিপ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেড সদর আদালতে একটি মামলা দায়ের  করেন। যার সি  আর নং – ৩১৬ ধারা এন.আই. এসিটির এর  ১৩৮ ধারা বর্তমানে তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি ফরোয়ানা  জারি করেছেন বিজ্ঞ আদালত। মুঠোফোনে (০১৯৬৬১০০৯৯৮) এই নম্বারে ইকবালের সাথে কথা হলে তিনি জানান টাকার বিষয়টি তোফায়েল আহম্মেদ জানেন। এবং তার বাড়ী নোয়াখালী সোনাইমুড়ী। বর্তমানে সে ঢাকা তেসকুনী শিল্প  এলাকায় থাকে এবং তাকে পুলিশে খুজে বেড়াচ্ছে। এমনই কথা বলে প্রতারক  ইকাবল ফোনের সংযোগ কেটে দেয়।