জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে লালমোহনে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে ঢুকে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে জখম

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | বুধবার, জুন ১৫, ২০১৬
জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে
লালমোহনে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে ঢুকে
ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে জখম
লালমোহনে জমি- জমা বিরোধের জের ধরে
ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ঢুকে আরমান সুজের
মালিক ব্যবসায়ী মোঃ নুরহোসেনকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে পতিপক্ষের ক্যাডাররা।
মঙ্গলবার বিকেল অনুমান ৫ টার
লালমোহন বাজারের নুরহোসেনের ব্যবসা
প্রতিষ্ঠানে ঢুকে কে ক্যাডাররা তাকে
এলোপাথারি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ।
তাকে তাৎক্ষণিক লালমোহন হাসপাতালে
নেওয়া হয় ।পরে তাকে লালমোহন
হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তার
অবস্থা গুরুতর হওয়াই তাকে দুরুত
বরিশাল মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া
হয়। নুরহোসেনের স্বজনরা জানান নুর
হোসেন পিতা ৬/৭ বছর পূর্বে ইউনুছের
শাশুড়ি মোনোরা বেগমের কাছ থেকে ২০
শতাংশ জমি ক্রয় করে কিন্তু দলিল নানিয়ে ঐ জমিতে ঘড় করে বসবাস করে আসছে । এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইউনুছ নেতৃত্বে ৩/৪ জন ক্যাডাররা লালমোহন বাজারে নুরহোসেনের নিজের জুতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসা অবস্থা ।
বিকেল ৫টার দিকে ক্যাডার তাকে এলোপাথারি কুপিয়ে রক্তাক্ত করে। তার ডাক চিক্তারে আশপাশের লোকজন আসলে ক্যাডাররা চলেযায় । নুর হোসেনকে উদ্ধার করে দ্রুত লালমোহন হাসপাতালে নেওয়া হয়। ।এ ব্যাপারে মোনোরার জামাই ইউনুছের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান আমার শাশুড়ি মোনোরা বেগম ১৯৮৩ সালে নুরহোসেনের
দাদা, হাসেম বেপারী ও তার স্ত্রী ,ছেলে দীল মোহাম্মদের থেকে মোট ২০ শতাংশ জমি ক্রয় করে। ঐ ২০ শতাংশ জমি নুরহোসেনেরা জবর দখল করে ভোগ করছে ।বিভিন্ন শালীস বিচার করেলেও তারা শালিস নামেনে দখল ছাড়ছেনা ।এ ঘটনার পর খবর শুনে লালমোহন উপজেলার চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ গিয়াস উদ্দিন আহম্মেদ, উপজেলা চেয়ারম্যান ভাইস ফখরুল আলোম ,পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সফিকুল ইসলাম বাদল, লালমোহন বাজার ব্যবসায়ী সভাপতি মোশ্তাফা মিয়া
সহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন
করেন এবং এ ঘটনায় এস্থানীয় এমপি
আলহাজ্ব নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন সহ সকলে তীব্র নিন্দা জানান। এ বেপারে লালমোহন থানার অফিসার ইনচর্জ মোঃ হুমায়ন কবীর জানান এ ঘটনায় থানায় এখনো কোন অভীযোগ করা হয়নি।