বরগুনা সোনাকাটা ইকোপার্কটি সংস্কার অভাবে ভোগান্তিতে দর্শনার্থী ও পর্যটক

বরগুনা প্রতিনিধি, | সোমবার, আগস্ট ৮, ২০১৬
বরগুনা সোনাকাটা ইকোপার্কটি সংস্কার অভাবে ভোগান্তিতে দর্শনার্থী ও পর্যটক
২০১৩ সালের ১৯ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পর্যটন কেন্দ্রটির উদ্ভোধন করেনসল্প সময়ে পরিচিত জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্রে হিসেবে পরিনত হয়েছে বরগুনার সোনাকাটা ইকো-ট্যুরিজম। পর্যটন কেন্দ্রের সৌন্দর্য পর্যটকদের মুগ্ধ করলেও দির্ঘদিন ধরে ভাঙ্গা রাস্তা ও ব্রীজগুলো সংস্কার অভাবে দর্শনার্থীদের ফেলছে ভোগান্তিতে। অবশ্য প্রশাসন বলছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালায়ের সহায়তায় শিগ্রই সমস্যাগুলোর সমাধান করা হবে।

“সোনাকাটা ইকো-ট্যুরিজম” দুর দুরন্ত থেকে হাজার হাজার পর্যটক যেখানে ছুটে আসেন প্রতিদিন। বনের মধ্যে ছোট্ট রাস্তা ধরে বনের সুন্দর্য্য উপভোগ করতে করতে হারিয়ে যায় গভীর অরন্যে। কিছুদুর গেলেই  রাস্তার পাশে বেষ্টনির মধ্যে মায়াবী চিত্রা হরিন, মেছো বাঘ, কুমির পর্যটকদের আনন্দ বাড়িয়ে তোলে দিগুন। আর গাছে গাছে দেখা মিলবে কাঠবিড়ালীর লুকোচুরি খেলা। কিন্তু এসব সৌন্দর্য্য উপভোগে বাধাঁ হয়ে দাড়িয়েছে বনের মধ্যে ছোট খালের উপর নির্মিত ব্রিজগুলো। দির্ঘদিনেও সংস্কার অভাবে ব্রিজগুলোর কাঠের পাটাতন ভেঙ্গে গেছে। পার্কে ঘুরতে আসা পর্যটকরা অনেকে ঝুঁকি নিয়ে সৌন্দর্য্য উপভোগ করলেও আবার অনেকেই হতাসা নিয়ে ফিরছেন।
উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৯ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পর্যটন কেন্দ্রটির উদ্ভোধন করেন। এখান থেকে সমুদ্র সৈকত, ম্যানগ্রোভ বন ও বন্য পরিবেশে বিভিন্ন বন্য প্রাণী দেখার সুযোগ থাকায় ৩ বছরের মধ্যে জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে উঠেছে এটি। দ্রুত রাস্তা ও ব্রীজগুলো সংস্কার করবে সরকার এমনটাই প্রত্যাশা দর্শনার্থীদের।
সোনাকাটার চেয়ারম্যান ফরাজি মো:ইউনুস বলেন, প্রধানমন্ত্রী এ আসনে নির্বাচন করেছেন সেই সুবাধে এ উপজেলাটি তার আমরা মনে করি। এর পরেও এ উপজেলায় তেমন কোন উন্নায়নের ছোয়া লাগছে না। পর্যাটন কেন্দ্রটি অতিদ্রুত সংস্কার করা হোক এ প্রত্যাশা আমাদের তালতলী বাসির।
স্থানীয় আবুল বাশার বলেন, প্রতিদিন হাজারো দর্শনার্থী আসলেও তারা এখানে পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা পাচ্ছেন না। তেমনি ইক্যোপার্কটির রাস্তাঘাট ভালো না থাকায় তারা আনন্দ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। অতিদ্রুত এগুলো মেরামত করা হবে এ আশা তাদের সকলের।
বরগুনা জেলা প্রশাসক ড.মুহাঃ বশিরুল আলম নয়াদিগন্তকে বলেন, পর্যটকদের ভোগান্তি কমাতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমে সমস্যাগুলোর সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।