রায়পুরে বন্দুক যুদ্ধে ডাকাত নিহত১,আহত পুলিশ সদস্য ৪জন।

রায়পুর(লক্ষীপুর)প্রতিনিধি, | মঙ্গলবার, আগস্ট ৯, ২০১৬
রায়পুরে বন্দুক যুদ্ধে ডাকাত নিহত১,আহত পুলিশ সদস্য ৪জন।
লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আলমগীর (৩২) নামে এক তালিকাভুক্ত ডাকাত সরদার নিহত হয়েছেন। এসময় পুলিশের এসআই ফারুকসহ চার পুলিশ সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।
জানা যায় মঙ্গলবার ভোর রাত ২টার দিকে উপজেলার চরমোহনা ইউনিয়নের দক্ষিণ রায়পুরের একটি সুপারি বাগানে এ ঘটনা ঘটে। তার বিরুদ্ধে ডাকাতির ঘটনায় থানায় ৭টি মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানায়। নিহত আলমগীর একই এলাকার মৃত লেদামিয়ার ছেলে। তার মরদেহ লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।
আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন- এসআই ফারুর হোসেন, কনস্টেবল সফিক, কমর, ওহিদ। তাদেরকে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ লোকমান হোসেন জানান, উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ রায়পুর গ্রামের একটি সুপারি বাগানে রাত ২টার দিকে একদল ডাকাত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। গোপন সংবাদ পেয়ে টহল পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে ডাকাতরা উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এতে আলমগীর নামে এক ডাকাতকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তাকে প্রথমে রায়পুর সরকারি হাসপাতাল ও পরে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ঘটনার সময় আহত হন ৪ পুলিশ সদস্য। পরে ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় বন্দুক ও ৩ রাউন্ড গুলি, দু’টি ছেনিসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয় বলে দাবি করেন ওসি।
এছাড়া তিনি বলেন, নিহত ডাকাত আলমগীর পুলিশের তালিকাভুক্ত আসামি। তার বিরুদ্ধে সাবেক জেলা প্রশাসক একে এম টিপু সুলতানের গাড়ীতে হামলাসহ থানায় ৭টি মামলা রয়েছে।