শিবপুরে রাব্বী নামে স্কুল ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা করেছে এক পাষন্ড মহিলা

নরসিংদী প্রতিনিধি, | শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৬
শিবপুরে রাব্বী নামে স্কুল ছাত্রকে
পিটিয়ে হত্যা করেছে এক পাষন্ড মহিলা
শিবপুর এক ভয়াবহ শিশু হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছে। পিতার সাথে শত্র“তার কারণে ফেরদৌসি নামে এক ঝগড়াটে বদচরিত্রের মহিলা, রাব্বী (১১) নামে এক স্কুল ছাত্রকে ডেকে নিয়ে হত্যা করেছে। পরে লাশ গুম করার জন্য বস্তায় ভরে পুকুরের পানিতে ফেলে দিয়েছে। সে পূবেরগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণীতে লেখাপড়া করতো। ৩ দিন নিখোঁজ থাকার পর গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে নিহত শিশু রাব্বীর লাশ তার আত্মীয়-স্বজনরা পুকুরের পানি থেকে বস্তাভর্তি অবস্থায় উদ্ধার করেছে। ফেরদৌসি তাকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করে ভোতা  অস্ত্র দিয়ে ছেচে মুখের দাঁত ভেঙ্গে দিয়েছে। পিটিয়ে সারা শরীর তুলাধুনা করে দিয়েছে। লাশ উদ্ধারের পর তার বন্ধু সহপাঠী তৌফিক, ফেরদৌসির কুকর্মের ঘটনা ফাঁস করে দিয়েছে।
জানা গেছে, শিবপুর উপজেলার আশ্রাবপুর গির্জাপাড়ার মানিক মিয়ার মেয়ে ফেরদৌসি বেগম এলাকায় বিভিন্ন চোরাকারবারী ও মাদক ব্যবসা করে। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে দেহ ব্যবসারও অভিযোগ রয়েছে। এলাকার শিশুরা তার বাড়ীর পাশে খেলাধুলা করতে গিয়ে তার অসামাজিক কার্যকলাপ দেখে ফেলে। এরপর এসব ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এসমস্ত অসামাজিক কার্যকলাপ নিয়ে পূবেরগাঁও গ্রামের পত্রিকার হকার আবু কাউছারের সাথে ফেরদৌসির বিরোধ সৃষ্টি হয়। এ বিরোধের জের ধরে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার সময় ফেরদৌসি পাশ্ববর্তী দুজন ছেলেকে দিয়ে রাব্বীকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর সে আর বাড়ী ফিরেনি। তার পিতা-মাতা, আত্মীয়-স্বজন বহু জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পায়নি। পরে মাইকযোগে শিবপুর শহর ও আশেপাশের এলাকায় রাব্বীর নিখোঁজ বার্তা প্রচার করা হয়। রাব্বী নিখোঁজের ঘটনা জানাজানি হবার পর ফেরদৌসির বাড়ীর পাশেরবাড়ীর তৌফিক, রাব্বীর পিতামাতাকে জানায় যে, ফেরদৌসি রাব্বীকে ডেকে নিয়ে মারধোর করতে দেখেছে। এই ঘটনা জানার পর রাব্বীর আত্মীয় স্বজনের মনে বদ্ধমূল ধারণা হয় যে, ফেরদৌসি তাকে মেরে ফেলেছে। এই সন্দেহে তারা ফেরদৌসির বাড়ীর আশেপাশে রাব্বীকে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে পাশের পুকুরের পানিতে নেমে তল্লাশী চালায়। এক পর্যায়ে পুকুরের মাঝে একটি বস্তা খুঁজে পায়। তারা বস্তাটি কিনারায় তুলে বাধন খুলে দেখতে পায় এর ভিতর রাব্বীর লাশ। খবর পেয়ে শিবপুর থানা পুলিশ তাৎক্ষনিকভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের  জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এসময় ফেরদৌসি বাড়ী থেকে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।