প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের পর নদীতে নিক্ষেপ

মাদারীপুর প্রতিনিধি, | শনিবার, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৬
প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের পর নদীতে নিক্ষেপ
মাদারীপুরের শিবচরে এক প্রতিবন্ধী ভিক্ষুককে গণধর্ষণের পর নদীতে ফেলে দিয়েছে বখাটেরা। শুক্রবার বিকালে ওই ভিক্ষুককে ময়নাকাটা নদীর কচুরিপানা থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে স্থানীয়রা।

কয়েকজন জেলে জানান, গতকাল দুপুরে উপজেলার ময়নাকাটা নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে কুচরিপানার মধ্যে অচেতন অবস্থায় ওই ভিক্ষুককে দেখতে পান তারা। পরে এক ভ্যানচালক তাকে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই ভিক্ষুক পুলিশকে জানায়, গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে নয়টা থেকে দশটা পর্যন্ত পাশের রাস্তায় একটি দোকানের পাশে বসে ভিক্ষা করছিলেন তিনি। এ সময় কয়েকজন দুর্বৃত্ত তাকে ডেকে নিয়ে ব্যঙ্গচোরা এলাকার একটি বাগানের মধ্যে ধর্ষণ করে। পরে তাকে নদীতে ফেলে দেয়।

প্রতিবন্ধী ওই নারী তিন সন্তানের জননী। তার স্বামীর বাড়ি সাভার এলাকায়। বাবার বাড়ি শিবচরের কাচিকাটা গ্রামে। গত তিন/চার বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় তার ডান পা কেটে ফেলতে হয়। এরপর থেকে তিনি মাদারীপুরের শিবচর উপজেলায় বাবার বাড়িতে থাকতেন। সেখানে থেকেই ভিক্ষা করতেন। অবস্থার অবনতি হওয়ায় গতকাল বিকালে তাকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

জানতে চাইলে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মো. মাহফুজুর রহমান জানান, প্রাথমিক পরীক্ষায় তাকে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জাকির হোসেন মোল্লা জানান, ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে তার ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।