মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিক নিয়োগে জটিলতা কাটানোর উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, | শুক্রবার, অক্টোবর ১৪, ২০১৬
মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিক নিয়োগে জটিলতা কাটানোর উদ্যোগ
শ্রমিক সংকটে পড়েছে মালয়েশিয়ার শিল্প কারখানাগুলো। বিদেশি শ্রমিক নিয়োগে চলতি বছরের শুরুর দিকে নেয়া নীতির কারণে এই অবস্থার তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে বিদেশি শ্রমিকের ঘাটতি মোকাবেলায় স্থায়ী সমাধান খুঁজে বের করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে সমস্যা সমাধানে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর বিষয়কমন্ত্রী দাতুক সেরি উই কা সিউং।

এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী জানান,  প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়টিকে খুব গুরুত্বসহকারে নিয়েছেন এবং ব্যক্তিগতভাবে এ সমস্যা সমাধান করবেন বলে জানিয়েছেন।

মালয়েশিয় সরকারের এই সিদ্ধান্তে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেয়ার প্রক্রিয়া দ্রুত শুরুর সম্ভাবনা জেগেছে আবার।

গত ফেব্রুয়ারি মাস থেকে মালয়েশিয়ার সরকার হঠাৎ করে বিদেশি শ্রমিক নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এমনকি বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক আনার চুক্তি ও স্থগিত করে ওই সময়। তখন থেকে মালয়েশিয়ার শিল্প-কারখানায় শ্রমিক সংকট দেখা দেয়।

এই সিদ্ধান্তের পর থেকেই স্থানীয় পত্রিকায় নিয়মিত লেখালেখি হলেও এতদিন বিষয়টি আমলে নেননি মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দাতুক সেরি নাজিব তুন রাজাক।

মন্ত্রিসভা ইতোমধ্যে বিদেশি শ্রমিক নিয়োগের ক্ষেত্রে আরো উন্নত ব্যবস্থার বিষয়ে ভাবছে, যার ফলে অন্যান্য খাতেও শ্রমিক নিয়োগের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করা যাবে। আরো স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কারণ উৎপাদনশীল খাতের জন্য শ্রমিক খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

গত ১২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার উইসহ দলটির সভাপতি ও পরিবহনমন্ত্রী দাতুক সেরি লিও টিয়ং লাইয়ের সঙ্গে মন্ত্রিসভায় তাইপেই ইনভেস্টরস অ্যাসোসিয়েশন মালয়েশিয়া থেকে একটি প্রতিনিধি দল শ্রমিক সংকট সমাধানের জন্য সরকারের কাছে স্বারকলিপি দেয়। তাদের অভিযোগ- তাইওয়ানের বিনিয়োগে মালয়েশিয়ায় যে শিল্প প্রতিষ্ঠান গুলো রয়েছে, সেগুলোতে প্রায় ৯০% কোম্পানি বিদেশি শ্রমিক নিয়োগের সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে।

মালয়েশিয়ান চায়নিজ অ্যাসোসিয়েশন এর উপ-পরিচালক লিম আহ লেক এর ফেসবুক পেইজে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমাদের মতামত শোনার পর, তিনি বিদেশি শ্রমিকদের ঘাটতির ব্যাপারটি নিজ দায়িত্বে সমাধানের পথ খুঁজে বের করবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন।’