মাদকে ভাসছে ঠাকুরগাঁও

নিজস্ব প্রতিবেদক, | সোমবার, নভেম্বর ৭, ২০১৬
মাদকে ভাসছে ঠাকুরগাঁও
জেলা আইন শৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় মাদকদ্রব্য  নিয়ন্ত্রণে জিরো টলারেন্স বলা ঘোষণা দেয়া হলেও মাদক নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে না ঠাকুরগাঁওয়ে।

ঠাকুরগাঁও শহরের রোড এলাকায় রেললাইনের বস্তি মাদকের নিরাপদ আস্তানা হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।এখান থেকে শহরের যুবকদের নিকট ফেন্সিডিল সরবরাহ করা হয়।এছাড়াও জেলার বালিয়াডাঙ্গী ও হরিপুর সীমান্ত দিয়ে অবাধে আসছে ফেন্সিডিলসহ মাদকদ্রব্য। এ নিয়ে প্রতি মাসে জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় হট্টগোল হলেও কাজের কাজ কিছুই হয় না।

বিজিবির মতে, তারা মাদক নিয়ন্ত্রণে আন্তরিক। কিন্তু সীমান্তবর্তী কিছু অসাধু ব্যক্তি অল্প সময়ে অধিক লাভের আশায় সীমান্ত দিয়ে এদেশে ফেন্সিডিল নিয়ে আসছে। প্রায় সময়ে বিজিবি তাদের ১২৫ কিঃ মিঃ সীমান্তের কোথাও না কোথাও ফেন্সিডিল আটক করছে। কিন্তু মালিকবিহীন।

এদিকে জেলায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অফিস থাকলেও তাদের মাদকবিরোধী অভিযান নেই বললেও চলে।তিন-ছয় মাসে তারা দুই একটি অভিযান চালিয়ে তৃপ্তির ঢেকুর তুলে মাসোহারা বাণিজ্যে মেতে উঠে।অথচ তাদের চোখের সামনে দিয়ে প্রতিদিন শহরের মাদকসেবীরা দলবেঁধে মোটরসাইকেলে বালিয়াডাঙ্গী সীমান্তে যায় ফেন্সিডিল আনতে কিংবা সেবন করতে।

থানা পুলিশ প্রায় সময়ে মাদকসহ ব্যবসায়ী ও সেবীদের আটক করে আদালতে চালান দিয়ে আসছে। কিন্তু আদালত থেকে জামিনে এসে মাদক ব্যবসায়ীরা আবার একই ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ছে। সে ক্ষেত্রে পুলিশ কর্মকর্তারা মাদক ব্যবসায়ীদের মামলায় সহজে জামিন না দেয়ার জন্য কোর্ট ইন্সপেক্টরের মাধ্যমে অনুরোধ জানালেও যথারীতি আসামিরা আইন অনুযায়ী জামিন পেয়ে যাওয়ায় তাদের ওই পথ থেকে বের করে আনা যাচ্ছে না বলে জানান  সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) আবুল কালাম আজাদ।