নাটোরে একই দিনে ৫ মরদেহ উদ্ধার

তাপস কুমার, নাটোর: | রবিবার, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৬
নাটোরে একই দিনে ৫ মরদেহ উদ্ধার
নাটোরে জেলার বিভিন্ন স্থানে পৃথক ঘটনায় নিহত পাঁচ ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার দুপুরে জেলার নলডাঙ্গা, বাগাতিপাড়া ও সিংড়া থেকে মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।
নিহতরা হলেন নীরা ঢুলি(৬৫), আসকান আলী(৬৭), সামাদ মোল্লা(৪৫),কালাম (৩০) ও জাহিদা (৭০)।
বাগাতিপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানান, উপজেলার চকগোয়াশ এলাকার একটি আম বাগানে অর্ধনগ্ন অবস্থায় নীরা ঢুলি(৬৫) এবং প্রায় একই সময়ে দেব নগর গ্রামে গলায় রশি পেঁচানো অবস্থায় আসকান আলীর (৬৭) মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত নীরা ঢুলির ছেলে স্বপন জানান, শুক্রবার বিকালে নীরা ঢুলি তমালতলা বাজারে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। এর পর থেকে তাকে আর পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে শনিবার সকালে চকগোয়াশ মাঠে নীরার মরদেহ পাওয়া যায়।
অপরদিকে, দেবনগর গ্রামে গলায় রশি পেঁচানো অবস্থায় উদ্ধার হয় আসকান আলীর মরদেহ। তিনি পারিবারিক অশান্তি থেকে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।
সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন মন্ডল জানান, দিনাজপুর টু ফরিদপুরগামী বিআরটিসি পরিবহনের একটি বাস জোলারবাতা নামক স্থানে একটি অটোভ্যানকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই ভ্যানচালক উপজেলার ছোট চৌগ্রামের মৃত জনাব আলীর ছেলে কালাম(৩০) ও যাত্রী একই এলাকার মৃত তায়েজ উদ্দিনের স্ত্রী জাহিদা (৭০) মারা যান। এঘটনায় বাসসহ বাসের চালককে আটক করেছে পুলিশ।
এদিকে নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল জানান, উপজেলার হালতিবিলের কুচকুড়ি এলাকায় ১১ একর খাস জমির দখল নিয়ে খাজুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের সভাপতি খলিলুর রহমান মৃধা এবং সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেনের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা বিরোধের জের ধরে শনিবার দুপুরে ওই খাস জমি দখল করতে যায় সোহরাব হোসেনের লোকজন। এসময় খলিলুর রহমান গ্রুপের সমর্থকরা বাধা দিলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ৮ জন আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে আনার পথে সোহরাব হোসেনের সমর্থক সামাদ মোল্লা (৪৫) মারা যান। আহতদের মধ্যে সোহরাব হোসেন ও আব্দুর রশীদকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও অপর ৫ জনকে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।